ডিএফএল-সুপারকাপ

(ডিএফবি-সুপারকাপ থেকে পুনর্নির্দেশিত)

ডিএফএল-সুপারকাপ (জার্মান: DFL-Supercup, জার্মান: [deː ʔɛf ˈɛlː ˈzuː.pɐ.kap] (এই শব্দ সম্পর্কেশুনুন); এছাড়াও জার্মান সুপার কাপ নামে পরিচিত) হলো জার্মানির দুইটি ফুটবল ক্লাবের মধ্যে আয়োজিত একটি একক ফুটবল ম্যাচের প্রতিযোগিতা, যেখানে বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়ন এবং ডিএফবি-পোকালের চ্যাম্পিয়ন দল প্রতিযোগিতা করে। এই ম্যাচটি ডয়চে ফুসবাল লিগা (জার্মান ফুটবল লীগ) দ্বারা পরিচালিত হয়।

ডিএফএল-সুপারকাপ
ডিএফএল-সুপারকাপের লোগো.svg
আয়োজকডয়চে ফুসবাল লিগা
প্রতিষ্ঠিত২০১০
(১৯৮৭–১৯৯৬ ডিএফবির অধীনে)
অঞ্চল জার্মানি
দলের সংখ্যা
বর্তমান চ্যাম্পিয়নবায়ার্ন মিউনিখ (৯ম শিরোপা)
সবচেয়ে সফল দলবায়ার্ন মিউনিখ (৯টি শিরোপা)
টেলিভিশন সম্প্রচারকজেডডিএফ
ডিএজেডএন
আন্তর্জাতিক সম্প্রচারক
ওয়েবসাইটwww.bundesliga.de/de/supercup/

এপর্যন্ত এই প্রতিযোগিতাটি ৭টি ক্লাব জয়লাভ করেছে, যার মধ্যে ৩টি ক্লাব একাধিকবার জয়লাভ করেছে। বায়ার্ন মিউনিখ এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসের সবচেয়ে সফল ক্লাব, যারা সর্বশেষ পাঁচ বছরে টানা ৫টি শিরোপাসহ সর্বমোট ৯টি শিরোপা জয়ালাভ করেছে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড, যারা এপর্যন্ত ৬ বার এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে জার্মান ভেয়ার্ডার ব্রেমেন, যারা এপর্যন্ত ৩ বার শিরোপা জয়লাভ করেছে। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ ২০২১ সালে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে ৩–১ গোলে হারিয়ে ক্লাবের ইতিহাসে নবমবারের মতো শিরোপা ঘরে তুলতে সক্ষম হয়েছিল।[১][২][৩] এই প্রতিযোগিতায় বুন্দেসলিগার চ্যাম্পিয়ন ক্লাবগুলো সর্বাধিক ১৪ বার শিরোপা জয়লাভ করেছে, দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ডিএফবি-পোকালের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবগুলো (যারা এপর্যন্ত ৪ বার শিরোপা জয়লাভ করেছে)।

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৯৭ সালে এটি ডিএফবি-লিগাপোকাল নামে একটি লীগ কাপ দ্বারা অপসারিত হয়েছে। ২০০৮ সালে কোন ফুটবল সংস্থা আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদিত না হওয়ায় ম্যাচটি টি-হোম সুপারকাপ হিসেবে আয়োজন করা হয়েছিল, যেখানে বুন্দেসলিগা এবং ডিএফবি-পোকাল উভয় প্রতিযোগিতার শিরোপাজয়ী বায়ার্ন মিউনিখ এবং ডিএফবি-পোকালের ফাইনালে অংশগ্রহণকারী বরুসিয়া ডর্টমুন্ড প্রতিযোগিতা করেছিল। উয়েফা ইউরো ২০০৮-এর কারণে নির্ধারিত ভিড়ের কারণে উক্ত ম্যাচটি ডিএফবি-লিগাপোকাল দ্বারা এক বছরের প্রতিস্থাপিত হয়েছিল, কেননা ডিএফএল-সুপারকাপ এক মৌসুমের জন্য বাতিল করা হয়েছিল। ২০০৯ সালের ১০ই নভেম্বর তারিখে ডয়চে ফুসবাল লিগার বার্ষিক সাধারণ সভায় সুপারকাপকে ২০১০–১১ মৌসুম থেকে পুনর্বহাল করা হয়েছে।[৪] ডয়চে ফুসবাল লিগা দ্বারা পরিচালিত হওয়ার কারণে এই প্রতিযোগিতাকে সুপারকাপকে ডিএফএল-সুপারকাপ বলা হয়; এরপূর্বে এটিকে ডিএফবি-সুপারকাপ বলা হতো কেননা তখন এটি জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা পরিচালিত হতো।

২০১০ সাল থেকে, ডিএফবি-সুপারকাপের বিপরীতে যদি একটি দল লীগ এবং কাপ উভয় শিরোপা জয়লাভ করে, তবে এই প্রতিযোগিতায় বুন্দেসলিগার রানার-আপ অংশগ্রহণ করার সুযোগ পায়। ৯০ মিনিট পর খেলা সমতায় থাকবে অতিরিক্ত সময়ের খেলা আয়োজন না করে পেনাল্টি শুট-আউটের মাধ্যমে ম্যাচের ফলাফল নির্ধারণ করা হয়।

সারাংশসম্পাদনা

২০২১ সাল পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
পাদটীকা
গাঢ় দ্বারা উক্ত আসরের চ্যাম্পিয়ন দল নির্দেশ করে
বছর বুন্দেসলিগা ফলাফল ডিএফবি-পোকাল মাঠ
১৯৮৭ বায়ার্ন মিউনিখ ২–১ হামবুর্গার ভাল্ডস্টাডিওন, ফ্রাঙ্কফুর্ট
১৯৮৮ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ২–০ আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ভাল্ডস্টাডিওন, ফ্রাঙ্কফুর্ট
১৯৮৯ বায়ার্ন মিউনিখ ৩–৪ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ফ্রিৎস-ভাল্টার-স্টাডিওন, কাইজারস্লাউটার্ন
১৯৯০ বায়ার্ন মিউনিখ ৪–১ কাইজারস্লাউটার্ন ভিল্ডপার্কস্টাডিওন, কার্লস্রুহে
১৯৯১[টীকা ১] কাইজারস্লাউটার্ন ৩–১ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন নিডারসাকসেনস্টাডিওন, হানোফার
১৯৯২ ভিএফবি স্টুটগার্ট ৩–১ হানোফার ৯৬ (২. বুন্দেসলিগা) নিডারসাকসেনস্টাডিওন, হানোফার
১৯৯৩ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ২–২ (অ.স.প.)
(৭–৬ পেনাল্টি)
বায়ার লেভারকুজেন উলরিখ-হাবারলান্ড-স্টাডিওন, লেভারকুজেন
১৯৯৪ বায়ার্ন মিউনিখ ১–৩ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন অলিম্পিক স্টেডিয়াম, মিউনিখ
১৯৯৫ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ১–০ বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ রাইনস্টাডিওন, ডুসেলডর্ফ
১৯৯৬ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ১–১ (অ.স.প.)
(৪–৩ পেনাল্টি)
কাইজারস্লাউটার্ন (২. বুন্দেসলিগা) কার্ল-বেনৎস-স্টাডিওন, মানহাইম
২০১০ বায়ার্ন মিউনিখ ২–০ শালকে ০৪ ইম্পুলস এরিনা, আউগসবুর্গ
২০১১ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ০–০ (অ.স.প.)
(৩–৪ পেনাল্টি)
শালকে ০৪ ভেল্টিন্স-এরিনা, গেলসেনকির্খেন
২০১২ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ১–২ বায়ার্ন মিউনিখ (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) অ্যালিয়াঞ্জ এরিনা, মিউনিখ
২০১৩ বায়ার্ন মিউনিখ ২–৪ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
২০১৪ বায়ার্ন মিউনিখ ০–২ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
২০১৫ বায়ার্ন মিউনিখ ১–১
(৪–৫ পেনাল্টি)
ভিএফএল ভলফসবুর্গ ফোক্সওয়াগেন এরিনা, ভলফসবুর্গ
২০১৬ বায়ার্ন মিউনিখ ২–০ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
২০১৭ বায়ার্ন মিউনিখ ২–২
(৫–৪ পেনাল্টি)
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
২০১৮ বায়ার্ন মিউনিখ ৫–০ আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট কমারৎসব্যাংক-এরিনা, ফ্রাঙ্কফুর্ট
২০১৯ বায়ার্ন মিউনিখ ০–২ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
২০২০ বায়ার্ন মিউনিখ ৩–২ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (বুন্দেসলিগা রানার-আপ) অ্যালিয়াঞ্জ এরিনা, মিউনিখ
২০২১ বায়ার্ন মিউনিখ ৩–১ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড
  1. ১৯৯১ সালের আসরে চারটি দল অংশগ্রহণ করেছিল, যেখানে প্রাক্তন পূর্ব ও পশ্চিম জার্মানির লীগ ও কাপ বিজয়ী ছিল।

অনানুষ্ঠানিক ম্যাচসম্পাদনা

জার্মান চ্যাম্পিয়ন দল বেশ কয়েকবার কাপ বিজয়ী দলের মুখোমুখি হয়েছিল, যা আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি লাভ করেনি।

বছর জার্মান চ্যাম্পিয়ন ফলাফল কাপ চ্যাম্পিয়ন মাঠ নাম
১৯৪১ শালকে ০৪ ২–৪ ড্রেসডনার ডিএসসি-স্টাডিওন, ড্রেসডেন হেরাউসফর্ডারুংসকাম্ফ[৫]
১৯৭৭ বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ৩–২ হামবুর্গার ফোক্সপার্কস্টাডিওন, হামবুর্গ ডয়চার সুপারকাপ[৬]
১৯৮৩ হামবুর্গার ১–১
(২–৪ পেনাল্টি)
বায়ার্ন মিউনিখ অলিম্পিক স্টেডিয়াম, মিউনিখ
২০০৮ বায়ার্ন মিউনিখ ১–২ বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (রানার-আপ) সিগনাল ইডুনা পার্ক, ডর্টমুন্ড টি-হোম সুপারকাপ[৬]
২০০৯ ভিএফএল ভলফসবুর্গ ১–২ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ফোক্সওয়াগেন এরিনা, ভলফসবুর্গ ফোক্সওয়াগেন সুপারকাপ[৭]

পরিসংখ্যানসম্পাদনা

দল অনুযায়ীসম্পাদনা

 
ডিএফএল-সুপারকাপের বর্তমান শিরোপা
ক্লাব বিজয়ী রানার-আপ বিজয়ের বছর রানার-আপের বছর
বায়ার্ন মিউনিখ ১৯৮৭, ১৯৯০, ২০১০, ২০১২, ২০১৬,
২০১৭, ২০১৮, ২০২০, ২০২১
১৯৮৯, ১৯৯৪, ২০১৩, ২০১৪, ২০১৫,
২০১৯
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ১৯৮৯, ১৯৯৫, ১৯৯৬, ২০১৩, ২০১৪,
২০১৯
২০১১, ২০১২, ২০১৬, ২০১৭, ২০২০,
২০২১
ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ১৯৮৮, ১৯৯৩, ১৯৯৪ ১৯৯১
কাইজারস্লাউটার্ন ১৯৯১ ১৯৯০, ১৯৯৬
শালকে ০৪ ২০১১ ২০১০
ভিএফবি স্টুটগার্ট ১৯৯২
ভিএফএল ভলফসবুর্গ ২০১৫
আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ১৯৮৮, ২০১৮
হামবুর্গার ১৯৮৭
হানোফার ৯৬ ১৯৯২
বায়ার লেভারকুজেন ১৯৯৩
বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ১৯৯৫

প্রতিযোগিতা অনুযায়ীসম্পাদনা

প্রতিযোগিতা বিজয়ী রানার-আপ
বুন্দেসলিগা চ্যাম্পিয়ন ১৪
ডিএফবি-পোকাল চ্যাম্পিয়ন ১১
বুন্দেসলিগা রানার-আপ

শীর্ষ গোলদাতাসম্পাদনা

 
এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসে সর্বাধিক গোল (৭টি) করা পোলীয় ফুটবল খেলোয়াড় রবের্ত লেভানদোভস্কি
অবস্থান খেলোয়াড় ক্লাব গোল
  রবের্ত লেভানদোভস্কি বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
বায়ার্ন মিউনিখ
  থমাস মুলার বায়ার্ন মিউনিখ
  উইন্টন রাফার ভেয়ার্ডার ব্রেমেন
  মার্কো রয়েস বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
  আরিয়েন রোবেন বায়ার্ন মিউনিখ
  ইয়ুর্গেন ভেগমান বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
বায়ার্ন মিউনিখ
  পিয়ের-এমেরিক অবামেয়াং বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
  গুন্টার ব্রাইৎস্কে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
  ইয়ুর্গেন ডেগেন কাইজারস্লাউটার্ন
১০   মানফ্রেড বেন্ডার বায়ার্ন মিউনিখ
  নিকলাস বেন্টনার ভিএফএল ভলফসবুর্গ
  ভ্লাদিমির বেসচাস্তনিক ভেয়ার্ডার ব্রেমেন

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Das Spiel"DFB - Deutscher Fußball-Bund e.V. (জার্মান ভাষায়)। ১৬ অক্টোবর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২১ 
  2. "Bayern beat Dortmund in Super Cup"BBC Sport। ১৭ আগস্ট ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২১ 
  3. "German Super Cup - Dortmund vs Bayern: Lewandowski leads Bayern to German Super Cup win in Dortmund"MARCA। ১৭ আগস্ট ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২১ 
  4. "Super Cup starts again"FIFA। ১০ নভেম্বর ২০০৯। ১৬ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০০৯ 
  5. "Dresdener SC – FC Schalke 04"dsc-museum.deDresdner SC। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  6. "(West) Germany – List of Super/League Cup Finals"। RSSSF। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুলাই ২০১১ 
  7. "Werder gewinnt beim Meister: VfL Wolfsburg– Werder Bremen 1:2 (0:1)"kicker। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা