প্রধান মেনু খুলুন

জেল হত্যা দিবস

একটি কালো দিবস।

জেল হত্যা দিবস আওয়ামী লীগসহ বাংলাদেশের বেশ কিছু রাজনৈতিক দল কর্তৃক প্রতি বছর ৩রা নভেম্বর পালিত হয়। ১৯৭৫ সালের এই দিনে আওয়ামী লীগের চারজন জাতীয় নেতাঃ সাবেক উপরাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সাবেক বাংলাদেশী প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন মনসুর আলী এবং সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামারুজ্জামান হত্যাকাণ্ডের স্মৃতি স্বরণার্থে এ দিবস পালন করা হয়।[১][২]

ইতিহাসসম্পাদনা

বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কে স্বাধীনতার বিপক্ষ শক্তির মদদে কিছু বিপথগামী সেনা সদস্য সপরিবারে হত্যা করে। অভ্যুত্থানকারীরা ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফের পাল্টা অভ্যুত্থানের সম্মুখীন হন। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীরা দেশ থেকে নির্বাসিত হওয়ার পূর্বে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী চার জাতীয় নেতাকে হত্যা করার সিদ্ধান্ত নেয়।[৩] কতিপয় সেনা কর্মকর্তা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে  সাবেক উপ-রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সাবেক বাংলাদেশী প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, ক্যাপ্টেন মনসুর আলী এবং সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আ হ ম কামারুজ্জামানকে গুলি করে এবং  সঙ্গিন দিয়ে বিদ্ধ করে হত্যা করে।[৪]

শিকারসম্পাদনা

বিচারকার্যসম্পাদনা

জেলহত্যার প্রায় ২৯ বছর পর এর বিচারকার্য শুরু হয়। ২০০৪ সালের ২০শে অক্টোবর বিচারের রায়ে তিনজন পলাতক সাবেক সেনা কর্মকর্তাকে মৃত্যুদণ্ড, ১২  জন সেনা কর্মকর্তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়। বিএনপির চারজন সিনিয়র নেতাসহ পাঁচজনকে খালাস দেওয়া হয়।[৯]

২০০৮ সালের ২৮শে আগস্ট বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ জেলহত্যা মামলায় অভিযুক্ত ছয়জন সামরিক কর্মকর্তাকে খালাস দেয়। খালাসীদের মধ্যে সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশীদ খান, বজলুল হুদা এবং এ কে এম মহিউদ্দীন আহমেদকে ২০০৯ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ফাঁসিকাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। রাষ্ট্রপক্ষ খালাসীদের সর্বোচ্চ শাস্তির আবেদন করে সুপ্রীম কোর্টে আপিল করে।[৯]

প্রতিক্রিয়াসম্পাদনা

  • দ্য ডেইলি স্টার পত্রিকা জেলহত্যার ঘটনাটিকে "দুঃখজনক এবং অত্যন্ত লজ্জাজনক" বলে আখ্যায়িত করে।[১০]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "আজ জেলহত্যা দিবস"বাংলা ট্রিবিউন। ৩ নভেম্বরর ২০১৬।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. "শোকাবহ জেল হত্যা দিবস সোমবার"দৈনিক যুগান্তর। ০২ নভেম্বর ২০১৪।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  3. হোসেন, আকবর। "কখন এবং কেন জাতীয় চার নেতাকে হত্যার সিদ্ধান্ত?"বিবিসি বাংলা। সংগ্রহের তারিখ 18 ডিসের 2016  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  4. "জেলহত্যা দিবস: ইতিহাসের বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ড"প্রতিদিনের সংবাদ। ১৮ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  5. "ইসলাম, সৈয়দ_নজরুল"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১০ 
  6. "আহমদ, তাজউদ্দিন"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১০ 
  7. "কামারুজ্জামান, আবুল হাসনাত মোহাম্মদ"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১০ 
  8. "আলী, ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ মনসুর"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১০ 
  9. "জেল হত্যা মামলার রায় ৩০শে এপ্রিল"বিবিসি বাংলা। ঢাকা। 17 এপ্রিল, 2013।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  10. "Jail Killing Day"The Daily Star। ২০১১-১১-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-১০