জুনাইদ আহমেদ পলক

প্রতিমন্ত্রী, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়

জুনাইদ আহ্‌মেদ‍ পলক[১] (জন্ম: মে ১৭, ১৯৮০) একজন বাংলাদেশী আইনজীবী এবং রাজনীতিবিদ। তিনি ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে রাজশাহী বিভাগের নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলা থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নির্বাচিত বাংলাদেশের সর্বকনিষ্ঠ সংসদ সদস্য। তিনি ২০১৯ সালের ৭ জানুয়ারি নির্বাচিত সরকারের সংসদ সদস্য এবং ডাক এবং টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০২৪ সালের ১১ জানুয়ারি তিনি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক
বাংলা উইকিপিডিয়ার ১০ম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে ২০১৫ সালে জুনাইদ আহ্‌মেদ‍ পলক
প্রতিমন্ত্রী, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১১ জানুয়ারি ২০২৪
প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনা
সংসদীয় এলাকানাটোর-৩
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1980-05-17) মে ১৭, ১৯৮০ (বয়স ৪৪)
নাটোর, বাংলাদেশ
নাগরিকত্ববাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীআরিফা জেসমিন কনিকা
সন্তান
  • অপূর্ব
  • অর্জন
  • অনির্বাণ
পিতামাতাফয়েজ উদ্দিন আহমেদ (বাবা)
শিক্ষাএমএসএস, এলএলবি
প্রাক্তন শিক্ষার্থীজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতি
জীবিকাআইনজীবী
ওয়েবসাইটwww.palak.net.bd

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা সম্পাদনা

জুনাইদ আহ্‌মেদ‍ পলক ১৯৮০ সালের ১৭ মে বাংলাদেশের নাটোর জেলার সিংডা উপজেলার সেরকোল তেলিগ্রাম এ জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম ফয়েজ উদ্দিন এবং মায়ের নাম জামিলা আহমেদ। তিনি ১৯৯৫ সালে সিংড়া দমদমা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও ১৯৯৭ সালে রাজশাহী ওল্ড ডিগ্রি কলেজ (বর্তমানে রাজশাহী কলেজ নামে পরিচিত) থেকে এইচএসসি পাশ করেন। পরবর্তীতে ঢাকা কলেজ হতে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এল.এল.বি ডিগ্রি অর্জন করে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টে আইন পেশায় নিয়োজিত হন। তার স্ত্রীর নাম আরিফা জেসমিন (কনিকা)। এ দম্পতির তিন সন্তান। তারা হলো অপূর্ণ জুনাইদ, অর্জুন জুনাইদ এবং অনির্বাণ জুনাইদ।

রাজনৈতিক জীবন সম্পাদনা

বাবা মরহুম ফয়েজ উদ্দিনের পদানুসরণ করে জুনাইদ আহ্‌মেদ‍ পলক বিশ বছর বয়সে আওয়ামী লীগের একজন সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে যোগ দেন। ২৮ বছর বয়সে ২০০৮ সালে সিংড়া নির্বাচনী এলাকা থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান।

 
রাজশাহী সিটি কর্পোরেশানে জুনাইদ আহমেদ পলক

পুরস্কার ও সম্মাননা সম্পাদনা

ইয়াং গ্লোবাল লিডার ২০১৬ সম্পাদনা

২০১৬ সালের মার্চে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম জুনাইদ আহ্‌মেদ‍ পলককে ইয়াং গ্লোবাল লিডার ২০১৬' হিসেবে মনোনীত করে। ৪০ বছরের কম বয়সী তরুণদের নাম প্রকাশ করে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম। দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের মধ্যে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। তিনি Young Bangla ও CRI এর অন্যতম কান্ডারী।[২] ২০১৮ তে বৈশ্বিক নীতিনির্ধারনী সংস্থা আ্যাপলিটাকল এ প্রকাশ করা হয় "ডিজিটাল গভর্নমেন্টে বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের তালিকায় স্থান পেয়েছেন।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা