চুনী গোস্বামী

ভারতীয় ফুটবলার ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব

চুনী গোস্বামী (১৫ জানুয়ারি, ১৯৩৮ ― ৩০ এপ্রিল, ২০২০) একজন বিখ্যাত বাঙালি ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি ভারতের জাতীয় দলেও খেলেছেন। ক্রিকেটার হিসেবেও তিনি সফল ছিলেন। বাংলা দলের হয়ে রনজি ট্রফি তে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন তিনি।

চুনী গোস্বামী
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম সুবিমল গোস্বামী
জন্ম (১৯৩৮-০১-১৫)১৫ জানুয়ারি ১৯৩৮
জন্ম স্থান কিশোরগঞ্জ, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি
(বর্তমানে বাংলাদেশে)
মৃত্যু ৩০ এপ্রিল ২০২০(2020-04-30) (বয়স ৮২)
মৃত্যুর স্থান কলকাতা , পশ্চিমবঙ্গ , ভারত
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
১৯৪৬–১৯৫৪ মোহনবাগান বয়ঃকনিষ্ঠ দল
১৯৫৪–১৯৬৮ মোহনবাগান
জাতীয় দল
১৯৫৬–১৯৬৪ ভারত ৩২ (৯)
দলসমূহ পরিচালিত
১৯৮৬–১৯৮৯ অধিকর্তা, টাটা ফুটবল একাডেমি
১০৯১–১৯৯২ ভারত
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ২৭ মে, ২০০৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ২৭ মে, ২০০৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।
চুনী গোস্বামী
Chuni Goswami 1959.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামসুবিমল গোস্বামী
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডান কবজি ফাস্ট বোলিং
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৬২/৬৩ – ১৯৭২/৭৩বাংলা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফ.সি.
ম্যাচ সংখ্যা ৪৬
রানের সংখ্যা ১৫৯২
ব্যাটিং গড় ২৮.৪২
১০০/৫০ ১/৭
সর্বোচ্চ রান ১০৩
বল করেছে ২৯১৭
উইকেট ৪৭
বোলিং গড় ২৪.০৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৫/৪৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪০/–
উৎস: Cricinfo, ৭ মার্চ ২০১৪

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

চুনী গোস্বামী বর্তমান বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তার আসল নাম সুবিমল গোস্বামী। [১]

ক্রীড়া জীবনসম্পাদনা

তিনি ১৯৪৬ থেকে ১৯৫৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত মোহনবাগানের জুনিয়র দলে খেলেন। ভারতীয় ফুটবলার বলাইদাস চট্টোপাধ্যায় ও বাঘা সোমকে কোচ হিসেবে পান তিনি। এরপর ১৯৫৪ থেকে ১৯৬৮ অবধি মোহনবাগানের মূল দলে খেলেন। তিনি মূলত স্ট্রাইকার পজিসনে খেলতেন। তিনি ১৯৬০ থেকে ১৯৬৪ খ্রিষ্টাব্দ অবধি মোহনবাগানের অধিনায়ক ছিলেন। এই সময়ে মোহনবাগান ডুরান্ড কাপ সহ বহু প্রতিযোগিতায় ভাল ফল করেছিল।[১] তার ফুটবল জীবনের সবথকে বড় কৃতিত্ব ভারতের অধিনায়ক হিসাবে ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দে জাকার্তায় এশিয়ান গেমসের সোনা জয়। ফাইনালে ভারত দক্ষিণ কোরিয়াকে ২-১ গোলে পরাস্ত করেছিল। এছাড়া তিনি অধিনায়ক হিসাবে তেল আভিভে এশিয়া কাপের রৌপ্য পদক জয় করেছিলেন। [১]

ফুটবল খেলা থেকে অবসর নেওয়ার পরে তিনি ক্রিকেট খেলায় মনোনিবেশ করেন এবং রঞ্জি ট্রফিতে তিনি বাংলার অধিনায়কত্ব করেন। তিনি দুবার রঞ্জি ট্রফির ফাইনাল খেলেছিলেন। তিনি ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন এবং ডানহাতে মিডিয়াম পেস বল করতেন। তিনি ৪৬টি প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট ম্যাচ খেলে একটি সেঞ্চুরি সহ ১৫৯২ রান করেছিলেন। তিনি বল করে ৪৭টি উইকেটও নিয়েছিলেন। [২]

১৯৫৮ এশিয়ান গেমসসম্পাদনা

হংকংয়ের বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনালে পেনাল্টি শ্যুটআউট এ গোল করেন।

১৯৬২ এশিয়ান গেমসসম্পাদনা

দক্ষিণ ভিয়েতনামের বিরুদ্ধে সেমি ফাইনালে ম্যাচ জয়ী জোড়া গোল করেন।

পুরস্কারসম্পাদনা

১৯৬৩ খ্রিষ্টাব্দে চুনী গোস্বামী অর্জুন পুরস্কার এবং ১৯৮৩ খ্রিষ্টাব্দে পদ্মশ্রী পুরস্কার পেয়েছিলেন। ২০০৫ সালে তিনি মোহনবাগান রত্ন পান।[১][৩]

মৃত্যুসম্পাদনা

৩০ এপ্রিল, ২০২০ সালে ৮২ বছর বয়েসে হৃদরোগাক্রান্ত হয়ে কলকাতায় মারা যান চুনী গোস্বামী।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. আইলাভইন্ডিয়া ওয়েবসাইটে চুনী গোস্বামী
  2. ক্রিকইনফো ওয়েবসাইটে চুনী গোস্বামী
  3. ইন্ডিয়ান ফুটবল ওয়েবসাইটে চুনী গোস্বামী
  4. সংবাদদাতা, নিজস্ব। "হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত চুনী গোস্বামী"anandabazar.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-৩০