কেন রাদারফোর্ড

নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটার

কেনেথ (কেন) রবার্ট রাদারফোর্ড, এমএনজেডএম (ইংরেজি: Ken Rutherford; জন্ম: ২৬ অক্টোবর, ১৯৬৫) ডুনেডিনে জন্মগ্রহণকারী নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটারনিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের পক্ষে দশ বছর প্রতিনিধিত্ব করেন। এছাড়াও, ১৯৯০-এর দশকে জাতীয় দলের অধিনায়ক ছিলেন। কেন রাদারফোর্ড ঘরোয়া ক্রিকেট অঙ্গনে ওতাগো দলের পক্ষে খেলেছেন।[১]

কেন রাদারফোর্ড
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকেনেথ রবার্ট রাদারফোর্ড
জন্ম (1965-10-26) ২৬ অক্টোবর ১৯৬৫ (বয়স ৫৫)
ডুনেডিন, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
সম্পর্কহামিশ রাদারফোর্ড (পুত্র)
ইয়ান রাদারফোর্ড (ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৫৫)
২৯ মার্চ ১৯৮৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট২২ মার্চ ১৯৯৫ বনাম শ্রীলঙ্কা
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৫০)
২৭ মার্চ ১৯৮৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই১ এপ্রিল ১৯৯৫ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮২-১৯৯৫ওতাগো
১৯৯৫-২০০০ট্রান্সভাল/গটেং
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৫৬ ১২১ ২২০ ২৪৮
রানের সংখ্যা ২,৪৬৫ ৩,১৪৩ ১৩,৯৭৪ ৬,৮৮৮
ব্যাটিং গড় ২৭.০৮ ২৯.৬৫ ৩৯.৯২ ৩১.৫৯
১০০/৫০ ৩/১৮ ২/১৮ ৩৫/৬৭ ৬/৪৪
সর্বোচ্চ রান ১০৭* ১০৮ ৩১৭ ১৩০*
বল করেছে ২৫৬ ৩৮৯ ১,৭২৯ ৮৬২
উইকেট ১০ ২২ ২১
বোলিং গড় ১৬১.০০ ৩২.৩০ ৪৬.০০ ৩৩.৪৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ১/৩৮ ২/৩৯ ৫/৭২ ৩/২৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩২/– ৪১/– ১৮০/– ৯১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৫ মার্চ ২০১৭

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

১৯৮২-৮৩ মৌসুমে ১৭ বছর বয়সে ওতাগো দলের পক্ষে অভিষেক ঘটে তার। ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমে ৪৪.২০ গড়ে ৪৪২ রান সংগ্রহ করেন। তন্মধ্যে অকল্যান্ডের বিপক্ষে ১৩০ রান করে প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকান।[২] ১৯৮৫-৮৬ মৌসুমে শেল ট্রফিতে তিনটি সেঞ্চুরি সহযোগে ৫৩.১৬ গড়ে ৬৩৮ রান করেন।[৩] প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সর্বমোট ৩৫টি সেঞ্চুরি করেন।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল বিশ্ব ক্রিকেট অঙ্গনে একাধিপত্য বিস্তার করেছিল। রাদারফোর্ড তার প্রথম সাত ইনিংসে যথাক্রমে ০, ০, ৪, ০, ২, ১ এবং ৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন।[৪] ১৯৮৫-৮৬ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য মনোনীত হননি। কিন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল ফলাফল অর্জন করায় তাকে ১৯৮৬ সালের প্রথমার্ধ্বে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার সুযোগ দেয়া হয়। এ সময় তাকে মাঝারি সারিতে ব্যাটিং করতে হয়। তিন টেস্টে তিনি দুইটি অর্ধ-শতক হাঁকান। টেস্ট ক্রিকেটে অর্ধ-শতককে শতকে রূপান্তরের তেমন চেষ্টা চালাননি।

নিউজিল্যান্ড দলকে তিন বছর নেতৃত্ব দেন। রিচার্ড হ্যাডলি’র অবসরগ্রহণ ও কেবলমাত্র মার্টিন ক্রো’র ন্যায় বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান দলে থাকায় নিউজিল্যান্ড দল কঠিন সময় অতিক্রম করে। ১৮বার চেষ্টার পর তার দল দুই টেস্ট জয়ে সক্ষম হয়।

অবসরসম্পাদনা

১৯৯৫ সালে নিউজিল্যান্ড দল থেকে বাদ দেয়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকায় চলে যান। সেখানে তিনি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে পাঁচ মৌসুমে খেলেন। প্রথমে ট্রান্সভাল ও পরে গটেংয়ে খেলেন। চূড়ান্তভাবে অবসর নেয়ার পূর্বে শেষ খেলায় শূন্য রান তুলেন। অবসর নেয়ার পর আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট দলকে পরিচালনা করেন তিনি। দুই বছর এ দায়িত্বে থাকার পর ঘোড়দৌড়ের দিকে অগ্রসর হন। ২০১৩ সাল থেকে[৫] ওয়াইকাতো রেসিং ক্লাবের মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করছেন।[৬] এছাড়াও, স্কাই নেটওয়ার্ক টেলিভিশনের পক্ষে ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার হিসেবে অংশগ্রহণ করছেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

রাদারফোর্ডের বড় ভাই ইয়ান ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৯৭৪-৭৫ থেকে ১৯৮৩-৮৪ সময়কাল পর্যন্ত ওতাগো দলে খেলেছেন।[৭] ভ্রাতৃদ্বয় ১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে ওতাগো দলে খেলেছেন। তার জ্যেষ্ঠ সন্তান হামিশ রাদারফোর্ড নিউজিল্যান্ড দলের পক্ষে টেস্ট খেলছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Otago players". Cricket Archive. Retrieved 15 March 2017.
  2. Auckland v Otago 1984–85
  3. Shell Trophy batting averages 1985–86
  4. "The New Zealanders in West Indies, 1984–85", Wisden 1986, pp. 953–66.
  5. Rodley, Aidan (২৬ এপ্রিল ২০১৩)। "Rutherford lands job at Waikato Racing Club"Stuff.co.nz। সংগ্রহের তারিখ ২২ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  6. Anderson, Ian (১৩ ডিসেম্বর ২০১৪)। "Ken Rutherford digs in on racing's sticky wicket"Where are they now?Stuff.co.nz। সংগ্রহের তারিখ ২২ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  7. Ian Rutherford at Cricket Archive Retrieved 3 July 2013.

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
মার্টিন ক্রো
নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৯২/৯৩-১৯৯৪/৯৫
উত্তরসূরী
লি জার্মন