এ কে এম আজিজুল হক (১ ফেব্রুয়ারি ১৯২৩–৩ সেপ্টেম্বর ২০০২) বাংলাদেশী সমাজসেবী, উন্নয়ন কর্মী ও সরকারি কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা ও মন্ত্রী ছিলেন।[১][২][৩]

এ কে এম আজিজুল হক
কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা
কাজের মেয়াদ
১৮ জুন ১৯৭৬ – ২৯ জুন ১৯৭৮
পূর্বসূরীআব্দুস সামাদ আজাদ
উত্তরসূরীনুরুল ইসলাম শিশু
বাংলাদেশের কৃষিমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২৯ জুন ১৯৭৮ – ১৩ এপ্রিল ১৯৭৯
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১ ফেব্রুয়ারি ১৯২৩
চান্দলা গ্রাম, বুড়িচং, কুমিল্লা, ব্রিটিশ ভারত
(বর্তমান বাংলাদেশ)
মৃত্যু৩ সেপ্টেম্বর ২০০২
ঢাকা
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
প্রাক্তন শিক্ষার্থীহার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
চট্টগ্রাম কলেজ
কুমিল্লা জিলা স্কুল

প্রাথমিক জীবন

সম্পাদনা

এ কে এম আজিজুল হক ১ ফেব্রুয়ারি ১৯২৩ সালে কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার চান্দলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি চান্দলা গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন। চট্টগ্রাম কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৪৪ সালে এমএ পাস করেন। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬০ সালে তিনি এমপিএ ডিগ্রি লাভ করেন।[৪]

কর্মজীবন

সম্পাদনা

এ কে এম আজিজুল হক ১৯৪৪ সালে ঢাকা ইন্টারমিডিয়েট কলেজের ইংরেজির বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। শিক্ষকতা পেশা ছেড়ে দিয়ে সিভিল সাপ্লাইজ বিভাগে যোগ দিয়ে প্রথমে কন্ট্রোলার, এডিসি ও পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৪৭ সালে ভারত বিভক্তির পর তিনি তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের শিক্ষা ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর একান্ত সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৪৯ সালে ডিপার্টমেন্ট অব সাপ্লাইজের উপপরিচালক হন। ১৯৫৭ সালে তিনি কুটির শিল্প কর্পোরেশনের পরিচালক নিযুক্ত হন। ১৯৫৮ সালে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ক্ষুদ্র শিল্প কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিযুক্ত হন। পূর্ব পাকিস্তান ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান হিসেবে ১৯৬২ সালে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৫ সালে পূর্ব পাকিস্তান শিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশনের পরিচালক নিযুক্ত হন। ১৯৬৮-১৯৭৩ মেয়াদে তিনি পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর পরিচালক ছিলেন।[৪]

তিনি ১৮ জুন ১৯৭৬ থেকে ১৩ এপ্রিল ১৯৭৯ সাল পর্যন্ত মন্ত্রীর মর্যাদায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৪][৫][৩]

মৃত্যু

সম্পাদনা

এ কে এম আজিজুল হক ৩ সেপ্টেম্বর ২০০২ মৃত্যুবরণ করেন।[৪]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Rahman, Syedur (২৭ এপ্রিল ২০১০)। Historical Dictionary of Bangladesh (ইংরেজি ভাষায়)। Scarecrow Press। আইএসবিএন 978-0-8108-7453-4। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০২২ 
  2. মহিউদ্দিন মাহী (১৩ মে ২০১৭)। "সচিবালয়ে মুজাহিদের নামে কালি, 'অক্ষত' যুদ্ধাপরাধী নিজামী"ঢাকাটাইমস.কম। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০২২ 
  3. খালেদা হাবিব। বাংলাদেশঃ নির্বাচন, জাতীয় সংসদ ও মন্ত্রিসভা ১৯৭০-৯১ 
  4. "হক, এ.কে.এম আজিজুল"বাংলাপিডিয়া। ২৫ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ মার্চ ২০২২ 
  5. জিবলু রহমান। ভাসানী-মুজিব-জিয়া। বাংলাদেশ: শ্রীহট্ট প্রকাশ। পৃষ্ঠা ৪৩৬। আইএসবিএন 9789849302728 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা