এয়ারটেল (বাংলাদেশ)

এয়ারটেল হচ্ছে ভারতীয় বহুজাতিক টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান ভারতী এয়ারটেল লিমিটেড এর একটি পণ্য মার্কা যার বাংলাদেশ অঞ্চলের টেলিযোগাযোগ পরিসেবা এয়ারটেল বাংলাদেশ লিঃ সংস্থা দ্বারা পরিচালিত ছিল। ২০১৬ সালে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিঃ সংস্থাটির কার্যক্রম রবি আজিয়াটা লিমিটেডের সাথে একীভূত [১][২] [৩] [৪] করার মাধ্যমে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড সংস্থাটি বিলুপ্ত হয় এবং উভয় সংস্থার একীকরণের ফলে সৃষ্টি নতুন সংস্থাটি রবি আজিয়াটা লিমিটেড নামেই যাত্রা শুরু করে। এই একীভূত সংস্থাটির মালিকানায়আজিয়াটার ৬৮.৭ শতাংশ এবং ভারতী এয়ারটেল এর ৩১.৩ শতাংশ অংশীদারত্ব রয়েছে ।

রবি আজিয়াটা লিমিটেড
ধরনরবি আজিয়াটা লিমিটেডের একটি পণ্য মার্কা
শিল্পটেলিযোগাযোগ
পূর্বসূরীওয়ারিদ টেলিকম বাংলাদেশ
প্রতিষ্ঠাকাল১০ মে ২০০৭
অবস্থারবি আজিয়াটা লিমিটেডের সঙ্গে একত্রিত
সদরদপ্তররবি কার্যালয়, ৫৩, গুলশান দক্ষিণ এভিনিউ, গুলশান, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ
পরিষেবাসমূহমোবাইল টেলিফোনি, জিপিআরএস, এজ, ৪ জি +, আন্তর্জাতিক রোমিং
ওয়েবসাইটএয়ারটেল (রবি আজিয়াটা লিমিটেড)


Robi airtel.png

এয়ারটেল রবি আজিয়াটা লিমিটেডের আওতাধীন একটি পণ্য হিসেবে বাংলাদেশে টেলিযোগাযোগ পরিসেবা প্রদান করছে ।

ইতিহাসসম্পাদনা

২০০৫ সালের ডিসেম্বরে ওয়ারিদ টেলিকম ইন্টারন্যাশনাল এলএলসি ৫ কোটি ডলার এর বিনিময়ে বিটিআরসি থেকে বাংলাদেশের ৬ষ্ঠ জিএসএম মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতা হিসাবে অনুমতিপত্র পায়। ১০ মে, ২০০৭ সালে ৬১টি জেলায় মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবা প্রদানের মাধ্যমে এবং ৭০% জনসমষ্টিকে ঘিরে এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০১০ সালের জানুয়ারিতে ওয়ারিদ ১ লক্ষ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ভারতের ভারতী এয়ারটেল নিকট কোম্পানির ৭০% অংশীদারিত্ব বিক্রি করে। পরবর্তীতে যা এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড নাম ধারণ করে। ভারতী প্রস্তাবের মধ্যে ছিল কোম্পানির নতুন শেয়ার তৈরির জন্য ৩০ কোটি মার্কিন ডলারের প্রাথমিক বিনিয়োগ করার। বিটিআরসি ৪ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে এই চুক্তিকে অনুমোদন করে। একই বছরের ২০ ডিসেম্বর তা এয়ারটেল নামে সেবা প্রদান শুরু করে।

মার্চ ২০১৩ সালে, ওয়ারিদ তার বাকী ৩০% শেয়ার ভারতী এয়ারটেলের মালিকানাধীন সিঙ্গাপুর ভিত্তিক ভারতি এয়ারটেল হোল্ডিংস পিটি লিমিটেডের কাছে ৮৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে বিক্রি করে।

২০১৬-এর জানুয়ারিতে রবি এবং এয়ারটেল বাংলাদেশ ঘোষণা করে যে তারা তাদের অপারেটরকে এওত্রিত করতে চায়, এবং যৌথ সত্তাটি রবি নামে পরিচিত হবে। ১৬ নভেম্বর ২০১৬ সালে একীভূত কোম্পানি হিসেবে যাত্রা রবি যাত্রা শুরু করে।[৫]

এয়ারটেল গ্রাহকেরা রবি নেটওয়ার্কেসম্পাদনা

রবি এয়ারটেল একীভূতকরণের ফলে এয়ারটেল এর গ্রাহকেরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে রবি নেটওয়ার্ক এ যুক্ত হয়ে নিরবিচ্ছিন্নভাবে সকল সুবিধা উপভোগ করবেন। কোনো কারণে রবি নেটওয়ার্ক এ সংযুক্ত হতে ব্যার্থ হলে ফোনের নেটওয়ার্ক সেটিংস থেকে রবি নেটওয়ার্ক খুঁজে নিয়ে তাতে যুক্ত হতে পারবেন সহজেই।

[৬]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা