টেলিটক

বাংলাদেশী টেলিযোগাযোগ কোম্পানি

টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড যার ব্র্যান্ড নাম "টেলিটক" বাংলাদেশের রাষ্ট্রয়াত্ত একটি মোবাইল ফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান। প্রথমে এটা “bMobile” নামে আত্নপ্রকাশ করলেও পরবর্তীতে এটি “টেলিটক” নামে পরিবর্তিত হয়। এটি বাংলাদেশের একটি জিএসএম ও ফোরজি ভিত্তিক রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন কোম্পানি। টেলিটক ২৯ ডিসেম্বর ২০০৪ সালে যাত্রা শুরু করে।[১] এটা বাংলাদেশ সরকারের একটি পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি। ডিসেম্বর ২০১৯ অনুযায়ী, টেলিটক বাংলাদেশের চতুর্থ বৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেটর যার গ্রাহক সংখ্যা ৪৮ লাখ ৬৮ হাজার।[২]

টেলিটক
পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি
শিল্পটেলিযোগাযোগ
প্রতিষ্ঠাকাল২০০৪
সদরদপ্তরসড়ক নং - ১৭, গুলশান-১, ঢাকা
প্রধান ব্যক্তি
বাংলাদেশ প্রকৌশলী মো:সাহাব উদ্দিন ব্যবস্থাপনা পরিচালক
পণ্যসমূহটেলিযোগাযোগ, ইন্টারনেট
মালিকবাংলাদেশ বাংলাদেশ সরকার
স্লোগানআমাদের ফোন
ওয়েবসাইটwww.teletalk.com.bd

প্রদেয় সেবাসমূহসম্পাদনা

এটি প্রিপেইড, পোস্টপেইড ভিত্তিতে পরিষেবা প্রদান করে থাকে। বর্তমানে দেশের ৬৪ জেলায়, ৪০২ উপজেলায় এবং বেশিরভাগ মহাসড়কে নেটওয়ার্ক সেবা রয়েছে।

ইয়ুথ থ্রিজিসম্পাদনা

টেলিটকের একটি প্রাথমিক সেবা প্রদানকারী প্যাকেজ।

স্বাগতমসম্পাদনা

নতুন ব্যবহারকারীদের জন্য একটি সাশ্রয়ী প্যাকেজ। এর কলরেট ও এস এম এস চার্জ কম।

আগামীসম্পাদনা

এসএসসি পরিক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের জন্য টেলিটকের বিশেষ প্যাকেজ যা সাধারনত টেলিটক বিনামূল্যে প্রদান করে থাকে ৷ কলরেট , এস এম এস চার্জ এবং ইন্টারনেট চার্জ খুবই কম।

বর্ণমালাসম্পাদনা

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্যে সাশ্রয়ী কলরেট ও ইন্টারনেট প্যাকেজ সমৃদ্ধ বিশেষ বর্ণমালা সিম প্রথম ২০১৫ সালে অমর একুশে বইমেলায় শিক্ষার্থীদের জন্য স্বল্পমূল্যে প্রদান করা হয়।

অপরাজিতাসম্পাদনা

নারীর ক্ষমতায়নের জন্য টেলিটকের বিশেষ প্যাকেজ "অপরাজিতা" যা শুধু নারী গ্রাহকদের জন্য প্রযোজ্য।২০১৭ সালে এই প্যাকেজ প্রথম চালু করা হয়

মায়ের হাসিসম্পাদনা

গ্রাহক নম্বরসম্পাদনা

টেলিটক গ্রাহকদেরকে নিচের নিয়মে নম্বর প্রদান করে থাকেঃ

+৮৮০ ১৫ XXXXXXXX

যেখানে +৮৮০ বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক কোড। ১৫ হল টেলিটকের গ্রাহকদের জন্য সরকারের নির্ধারিত কোড। ৮ ডিজিট XXXXXXXX হল গ্রাহকের নম্বর।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা