রবি (মোবাইল ফোন কোম্পানি)

বাংলাদেশে মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিচালনাকারী বিদেশি কোম্পানি

রবি আজিয়াটা লিমিটেড বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল নেটওয়ার্ক সেবাদাতা ও ডিজিটাল পরিসেবা প্রদানকারী। এটি মালয়েশিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ বেরহাদ ও ভারতের ভারতী এয়ারটেল-এর যৌথ উদ্যোগ। এটিতে আজিয়াটা ৬৮.৭% অংশীদারত্ব রয়েছে, ভারতী এয়ারটেল-এর ৩১.৩% শেয়ার রয়েছে[১]। বাংলাদেশে রবি ও এয়ারটেল উভয়েই একই কোম্পানি অর্থাৎ রবি আজিয়াটা লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত এবং উভয়ে একই নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকে।

রবি আজিয়াটা লিমিটেড
লিমিটেড
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৯৭
সদরদপ্তররবি কর্পোরেট অফিস, ৫৩ গুলশান দক্ষিণ এভিনিউ, গুলশান-১, ঢাকা, বাংলাদেশ
বাণিজ্য অঞ্চল
বাংলাদেশ
প্রধান ব্যক্তি
বাংলাদেশ মাহতাব উদ্দিন আহমেদ সিইও
বাংলাদেশ শিহাব আহমেদ সিসিও
বাংলাদেশ রুহুল আমিন সিএসও
বাংলাদেশ সাহেদ আলম সিসিআরও
বাংলাদেশ মো. ফয়সাল ইমতিয়াজ খান সিএইচআরও
পণ্যসমূহমোবাইল টেলিফোনি, জিপিআরএস, এজ, আন্তর্জাতিক রোমিং
আয়বৃদ্ধি ৭৮.৮১ বিলিয়ন (ইউএস$৯৩০ মিলিয়ন) (২০১৯)
বৃদ্ধি ১৭০ মিলিয়ন (ইউএস$২.০ মিলিয়ন) (২০১৯)
সদস্যসমূহ৪৯.০০৪  মিলিয়ন
( ডিসেম্বর ২০১৯)
মূল প্রতিষ্ঠানআজিয়াটা গ্রুপ (৬৮.৭%)
ভারতী এয়ারটেল (৩১.৩%)
স্লোগানLife-এ নতুন এক্সপেরিয়েন্স (বাংলা অর্থ: জীবনে নতুন অভিজ্ঞতা)
ওয়েবসাইটwww.robi.com.bd/bnwww.bd.airtel.com

১৬ নভেম্বর, ২০১৬ তারিখে রবি আজিয়াটা লিমিটেডের একীভূত হওয়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের টেলিকম সেক্টরে একীভূত হবার প্রথম বিলটি কার্যকর হয়। রবি এবং এয়ারটেলের একীভূতকরণের পর, বর্তমানে একীভূত কোম্পানিটি রবি আজিয়াটা লিমিটেড নামে পরিচিত। সফলভাবে বিলটি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর, রবি বাংলাদেশে দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর হিসাবে আবির্ভূত হয়েছে। একত্রিত কোম্পানী দেশব্যাপী নেটওয়ার্ক কভারেজ আছে।

রবি প্রথম ১৯৯৭ সালে টেলিকম মালয়েশিয়া ইন্টারন্যাশনাল (বাংলাদেশ) নামে ব্র্যান্ড নাম একটেল নামে অপারেশন শুরু করেন। ২০১০ সালে কোম্পানিটি রবিতে পুনরায় ব্র্যান্ডেড হয় এবং কোম্পানিটি এর নাম পরিবর্তন করে রবি আজিয়াটা লিমিটেড। নভেম্বর ২০১৬ অনুযায়ী, রবি আজিয়াটা তার মোবাইল পরিষেবাগুলির জন্য দুটি ব্র্যান্ড 'রবি' এবং 'এয়ারটেল' ব্যবহার[২] করে। রবি আজিয়াটার একটি পণ্য ব্র্যান্ড হিসেবে এয়ারটেল বাংলাদেশের বাজারে ব্যবসা চালাচ্ছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

রবি আজিয়াটা লিমিটেড টেলিকম মালয়েশিয়া এবং এ কে খান এবং কোম্পানির মধ্যে একটি যৌথ উদ্যোগ কোম্পানি হিসাবে শুরু হয়। এটি পূর্বে টেলিকম মালয়েশিয়া ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ লিমিটেড নামে পরিচিত ছিল, ১৯৯৭ সালে ব্র্যান্ড [৩] নাম 'একটেল' নামে বাংলাদেশকে অপারেশন শুরু করে। ২০০৮ সালে, এ কে খান এবং কোম্পানি ৩৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের জাপানের এনটিটি ডকোমোতে ৩০% অংশীদারি বিক্রি করে ব্যবসাটি বন্ধ করে দেয়।

২৮ শে মার্চ, ২০১০ তারিখে, 'একটেল' কে 'রবি' হিসাবে পুনরায় প্রকাশ করা হয় যার মানে বাংলাতে সূর্য। এটি প্যারেন্ট কোম্পানী আজিয়াটা গ্রুপের লোগোও গ্রহণ করে যা নিজে ২০০৯ সালে একটি বড় রিব্রান্ডিংয়ের [৪] মধ্য দিয়েও চলে। ২০১৩ সালে পাঁচ বছর ধরে উপস্থিত থাকার পরে ডকোমো ৯% নেওয়ার জন্য আজিয়াটাতে তার মালিকানা ৮% ছাড়িয়েছিল।

২৮ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে, ঘোষণা করা হয়েছিল যে রবি আজিয়াটা এবং এয়ারটেল বাংলাদেশ ২০১১ সালের মধ্যে একত্রিত হবে। সংযুক্ত নেটওয়ার্কটি রবি নামে পরিচিত হবে, যা উভয় নেটওয়ার্কে মিলিত ৪০ মিলিয়ন গ্রাহককে সেবা দেবে। আজিয়াটা গ্রুপের ৬৮.৩ ভাগ শেয়ার হবে, ভারতী গ্রুপের ২৫% শেয়ার হবে। অবশিষ্ট শেয়ার এনটিটি ডকোমো মালিকানাধীন থাকবে। শেষ পর্যন্ত রবি এবং এয়ারটেলটি ১৬ নভেম্বর ২০১৬ এ একত্রিত হয়েছিল এবং রবি সেটিকে একত্রিত কোম্পানির রূপে বহন করেছিল।

নেটওয়ার্ক প্রযুক্তিসম্পাদনা

 
রবি আজিয়াটার কর্পোরেটের সদর দপ্তর

জি.এস.এম/জি.পি.আর.এস ব্যান্ড ৯০০ মেগাহার্টজ। রবি'র রয়েছে বিশ্বের ১৭০টি দেশের ৪০০ মোবাইল ফোন অপারেটরের সাথে রোমিং ব্যবস্থা। এটি বাংলাদেশে প্রথম জিপিআরএস ব্যবস্থা চালু করে। রবি ব্যবহার করে জিএসএম ৯০০/১৮০০ মেগাহার্টজ। বর্তমানে দেশের ৬৪ টি জেলার মধ্যে মোবাইল ফোন সেবা প্রদানের জন্য অনুমোদিত ৬৪ টি জেলাতেই রবির এর নেটওয়ার্ক রয়েছে।[৫] বর্তমানে এটি ৪.৫জি ইন্টারনেট সেবা দেয়া শুরু করেছে।

গ্রাহক নম্বরসম্পাদনা

রবি গ্রাহকদেরকে নিচের নিয়মে নম্বর প্রদান করে থাকেঃ

+৮৮০১৬
N N N N N N N N
+৮৮০১৮
N N N N N N N N

যেখানে +৮৮০ বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক কোড। (+৮৮০) ১৮ ও ১৬ রবি গ্রাহকদের জন্য সরকারের নির্ধারিত কোড। ৮ ডিজিটের N N N N N N N N হল গ্রাহকের নম্বর।

এয়ারটেলসম্পাদনা

 
এয়ারটেল হচ্ছে ভারতি এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড অফ ইন্ডিয়া (ভারতী এয়ারটেল) এর একটি টেলিযোগাযোগ ব্র্যান্ড যেটি বর্তমানে বাংলাদেশে রবি আজিয়াটা লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত । ২০১৬ সালে রবি ও এয়ারটেল একীভুতকরনের পর থেকে এয়ারটেল রবি আজিয়াটা লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।

গ্রাহক সেবাসম্পাদনা

ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রবি'র ৩২ টি ওয়াক ইন সেন্টার (ডাব্লুআইসি) এবং ১ এসএসডি (সেলস অ্যান্ড সমর্থন ডেস্ক) রয়েছে। গ্রাহক সেবা বাংলাদেশে স্থানীয় ও শহরগুলির মাধ্যমে পাওয়া যেতে পারে।[৬]

এছাড়াও তারা বাংলাদেশে সবার আগে সবচেয়ে বেশি এলাকাতে ৪জি ইন্টারনেট সেবা দিয়ে এক রেকর্ড করেছে।[৭]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "তথ্য"। ১১ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "একিভ্উত" 
  3. "মালিকানা পরিব্তন" 
  4. "রবি+এয়ারটেল"। ১ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  5. "রবি"। ১১ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  6. "কেয়ার"। ১১ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  7. "an AXIATA company"। রবি। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৪ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা