প্রধান মেনু খুলুন

ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বা পালাম বিমানবন্দর হল উত্তর ভারত-এর দিল্লির প্রধান বিমানবন্দর। বিমানবন্দরটি পালামে অবস্থিত যা নতুন দিল্লি রেলওয়ে স্টেশন থেকে ১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং নতুন দিল্লি শহর থেকে ১৬ কিমি দূরে। বিমানবন্দরটি মোট ২,০৬৬ হেক্টর (৫,১১০ একর) জমি নিয়ে গঠিত। এই বিমানবন্দরে মোট ৩টি রানওয়ে ও তিনটি টার্মিনাল বা প্রান্তিক রয়েছে। সর্বশেষ প্রান্তিকটি ‘টি৩’ হিসাবে পরিচিত। বিমানবন্দরটি ২০০৯ সাল থেকে ভারতের ব্যস্ততম বিমানবন্দর এবং ২০১৫ সালে মুম্বইকে অতিক্রম করে এখন দেশের ব্যস্ততম পণ্যবাহী বিমানবন্দর। এটি বিশ্বের ২১ ব্যস্ততম বিমানবন্দর। এই বিমানবন্দর দিয়ে প্রতিবছর ৭ কোটি যাত্রী চলাচল করে যা ভারতের সমগ্র বিমান যাত্রী পরিবহনের ২৫% ।

ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর
IGI Airport logo
Delhi T3 Int Terminal.jpg
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
বিমানবন্দরের ধরনজনসাধারন
মালিকভারতের বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ
পরিচালকদিল্লি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বেসরকারী লিমিটেড (DIAL)
সেবা দেয়দিল্লি / এনসিআর
অবস্থানদক্ষিণ পশ্চিম দিল্লি, দিল্লি, ভারত
যে হাবের জন্য
এএমএসএল উচ্চতা৭৭৭ ফুট / ২৩৭ মি
স্থানাঙ্ক২৮°৩৪′০৭″ উত্তর ০৭৭°০৬′৪৪″ পূর্ব / ২৮.৫৬৮৬১° উত্তর ৭৭.১১২২২° পূর্ব / 28.56861; 77.11222স্থানাঙ্ক: ২৮°৩৪′০৭″ উত্তর ০৭৭°০৬′৪৪″ পূর্ব / ২৮.৫৬৮৬১° উত্তর ৭৭.১১২২২° পূর্ব / 28.56861; 77.11222
ওয়েবসাইটwww.newdelhiairport.in
মানচিত্র
DEL দিল্লি-এ অবস্থিত
DEL
DEL
রানওয়েসমূহ
দিকনির্দেশনা দৈর্ঘ্য পৃষ্ঠতল
মি ফুট
১০/২৮ ৩,৮১০ ১২,৫০০ অ্যাসফাল্ট
০৯/২৭ ২,৮১৩ ৯,২২৯ অ্যাসফাল্ট
১১/২৯ ৪,৪৩০ ১৪,৫৩৪ অ্যাসফাল্ট
পরিসংখ্যান (২০১৬)
যাত্রী55631385
বিমান চালন386685
কার্গো টন832927
উৎস: AAI[১]

[২]

[৩]

পরিচালনাসম্পাদনা

ভারতের বিমান পরিবহন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরিত হওয়ার আগে ভারতীয় বিমানবাহিনী কর্তৃক বিমানবন্দরটি পরিচালিত হত।[৪] ২০০৬ সালের মে মাসে, জিএমআর গ্রুপের নেতৃত্বে বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপনা দিল্লি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর লিমিটেড (ডিআইএএল) কে হস্তান্তরিত করা হয়।[৫]

পরিকাঠামোসম্পাদনা

২০০৮ সালের সেপ্টেম্বরে বিমানবন্দরটিতে ৪,৪৩০ মিটার (১৪,৫৩০ ফুট) দীর্ঘ রানওয়ের উদ্বোধন হয়েছিল, যা ভারতের দীর্ঘতম রানওয়ে। ২০১০ সালে টার্মিনাল ৩-এর কার্যক্রম শুরু হওয়ার সাথে সাথে এটি ভারতদক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম উড়ান যোগাযোগ কেন্দ্র বা এভিয়েশন হাব হয়ে ওঠে। টার্মিনাল-৩ ভবনটি বছরে ৩৪ মিলিয়ন যাত্রীকে পরিচালনা করতে সক্ষম এবং এটি বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম যাত্রী টার্মিনাল।[৬] বিমানবন্দরটি বিমানবন্দর সহযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণ (এ-সিডিএম) নামে একটি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবস্থা ব্যবহার করে, যাতে সময়মতো উড়ানের উড্ডয়ন ও অবতরণের ব্যবস্থা বা বিমানের উড়ানের উড্ডয়ন ও অবতরণের পূর্বাভাস করা যায়।[৭]

২০১০ সালে, এটিকে আইজিআইএ ১৫-২৫ মিলিয়ন যাত্রীবাহী বিমানবন্দর শ্রেণীতে বিশ্বের সেরা চতুর্থ বিমানবন্দরের পুরস্কার এবং বিমানবন্দর কাউন্সিল ইন্টারন্যাশনাল দ্বারা এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের শ্রেষ্ঠ উন্নত বিমানবন্দরের পুরস্কার প্রদান করা হয়।[৮] বিমানবন্দরটি এয়ারপোর্ট কাউন্সিল ইন্টারন্যাশনাল কর্তৃক ২০১৫ সালের ২৫-৪০ মিলিয়ন যাত্রীবাহী বিমানবন্দর শ্রেণীতে বিশ্বের সেরা বিমানবন্দর হিসাবে গণ্য হয়।[৯][১০] স্কাইট্রেক্স ওয়ার্ল্ড এয়ারপোর্ট অ্যাওয়ার্ডস ২০১৫ দ্বারা দিল্লি বিমানবন্দরকে মধ্য এশিয়ার শ্রেষ্ঠ বিমানবন্দর এবং মধ্য এশিয়ার সেরা বিমানবন্দর কর্মী পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।[১১] এয়ারপোর্ট কাউন্সিল ইন্টারন্যাশনাল দ্বারা পরিচালিত ২০১৫ সালের এয়ারপোর্ট সার্ভিস কোয়ালিটি (এএসকিউ) পুরস্কারের নতুন ক্রমতালিকায় আইজিআই প্রথম হয়।[১২] এই বিমানবন্দর মুম্বই বিমানবন্দরের সঙ্গে যুগ্মভাবে এয়ারপোর্ট সার্ভিস কোয়ালিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৭-এ বিশ্বের সেরা বিমানবন্দর হিসাবে ঘোষিত হয়। সর্বোচ্চ বার্ষিক ৪০ মিলিয়ন যাত্রী পরিচালনা করা বিমানবন্দর বিভাগে।[১৩]

ইতিহাসসম্পাদনা

সফদারজং বিমানবন্দর ১৯৩০ সালে নির্মিত হয়েছিল এবং ১৯৬২ সাল পর্যন্ত এটি দিল্লির প্রধান বিমানবন্দর ছিল।[১৪] সফদারজং বিমানবন্দরে যাত্রীবাহী উড়ান বৃদ্ধির ফলে ১৯৬২ সালে বেসামরিক উড়ানগুলি পালাম বিমানবন্দরে স্থানান্তরিত হয় (পরবর্তীতে এটির নামকরণ করা হয় আইজিআইএ)।[১৪] পালাম বিমানবন্দরটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তৈরী হয়েছিল রয়েল এয়ার ফোর্স স্টেশন পালাম নামে এবং ব্রিটিশ শাসন অবসানের পর, এটি ভারতীয় বিমানবাহিনীর জন্য একটি বিমান বাহিনী স্টেশন হিসেবে কাজ করত। প্রতি ঘন্টায় পালাম বিমানবন্দরের প্রায় ১,৩০০ জন যাত্রী পরিবহনের ক্ষমতা ছিল।[১৪] ১৯৭০ এর দশকে বিমানের গমনাগমন বৃদ্ধির ফলে পুরনো পালাম টার্মিনালের প্রায় চার গুণ এলাকা নিয়ে একটি অতিরিক্ত টার্মিনাল নির্মাণ করা হয়। ২রা মে, ১৯৮৬ সালে একটি নতুন আন্তর্জাতিক টার্মিনাল (টার্মিনাল ২) এর উদ্বোধন করার পর বিমানবন্দরটিকে ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (আইজিআইএ) নামে নামকরণ করা হয়।[১৪]

৩১ শে জানুয়ারী ২০০৬ সালে, বিমানমন্ত্রী প্রফুল প্যাটেল ঘোষণা করেছিলেন যে ক্ষমতাপ্রাপ্ত গোষ্ঠীর মন্ত্রীরা দিল্লি বিমানবন্দরের পরিচালনার অধিকার ডিআইএল কনসোর্টিয়াম এবং মুম্বই বিমানবন্দরকে জিভিকে গোষ্ঠীর কাছে বিক্রি করতে সম্মত হয়েছেন।[১৫]

প্রান্তিকসম্পাদনা

আইজিআই বিমানবন্দরটি এয়ার ইন্ডিয়া, এয়ার ইন্ডিয়া আঞ্চলিক, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট, গোএয়ার এবং ভিস্তারা-সহ বেশ কয়েকটি ভারতীয় বিমান সংস্থার প্রধান কেন্দ্রস্থল, বা মননিবেশ গন্তব্য হিসাবে কাজ করে। প্রায় ৮০ টি বিমান সংস্থা এই বিমানবন্দরে উড়ান পরিবেশন করে। বর্তমানে বিমানবন্দরে তিনটি সক্রিয় যাত্রী টার্মিনাল, একটি উৎসর্গীকৃত হজ টার্মিনাল এবং একটি পণ্যসম্পর্কীয় টার্মিনাল রয়েছে।

অন্তঃদেশীয় এবং আন্তর্জাতিক উড়ান পরিচালনাসম্পাদনা

টার্মিনাল-৩ আন্তর্জাতিক ক্রিয়াকলাপের জন্য ব্যবহৃত হয়। সমস্ত ভারতীয় বিমান সংস্থার আন্তর্জাতিক উড়ান পরিচালনা করছে (২ অক্টোবর ২০১৯ সালের হিসাবে আন্তর্জাতিক বিমান পরিচালনাকারী ভারতীয় বিমান সংস্থাগুলি হল - এয়ার ইন্ডিয়া, ইন্ডিগো, স্পাইসজেট, গোএইয়ার এবং ভিস্তারা।) বিদেশী বিমান সংস্থাগুলি এই টার্মিনাল-৩ তাদের বিমানের উড়ানের জন্য এবং দিল্লির উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে।

অন্তঃদেশীয় উড়ান পরিচালনার উদ্দেশ্যে টার্মিনাল-৩ এয়ার ইন্ডিয়া, এয়ারএশিয়া এবং ভিস্তারা ব্যবহার করে।

গোএয়ার টার্মিনাল-২ ব্যবহার করে, অন্যদিকে ইন্ডিগো এবং স্পাইসজেট টার্মিনাল-১ এবং টার্মিনাল-৩ (অস্থায়ীভাবে) তাদের অভ্যন্তরীণ ক্রিয়াকলাপের জন্য ব্যবহার করে।

টার্মিনাল ১সম্পাদনা

টার্মিনাল-১ বর্তমানে স্বল্প ব্যয়ের উড়ান পরিচালনাকারী ইন্ডিগো এবং স্পাইসজেট ব্যবহার করে। ডায়াল টার্মিনাল ১ সম্প্রসারণ এবং ২০২২ সালের মধ্যে বার্ষিক যাত্রী পরিচালনার ক্ষমতা বর্তমান ১৮ মিলিয়ন থেকে ৩০ মিলিয়নে উন্নীত করার লক্ষ্যে কাজ করছে।[১৬]

টার্মিনাল ১এ

টার্মিনাল-১এ ১৯৮০-এর দশকের শেষদিকে ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের পরিবেশনার জন্য নির্মিত হয়েছিল। একটি অগ্নি অভ্যন্তরীণ প্রবেশের পরে এবং ডায়াল টার্মিনালটিকে উল্লেখযোগ্যভাবে আধুনিকীকরণ করার পরে এটি পুনর্নির্মাণ করতে হয়েছিল। এটি এয়ার ইন্ডিয়া তার এয়ারবাসের পরিচালনার জন্য ১১ নভেম্বর ২০১০-তে নতুন টার্মিনাল ৩-এ স্থানান্তর না করা পর্যন্ত ব্যবহার করে।[১৭] টার্মিনালটি এখন বন্ধ হয়ে গেছে এবং নতুন টার্মিনালগুলির সমাপ্তির সময় এটি ভেঙে ফেলা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

টার্মিনাল ১সি
 
অন্তঃদেশীয় টার্মিনালের অভ্যন্তরিণ দৃশ্য।

টার্মিনাল ১সি শুধুমাত্র অন্তঃদেশীয় আগমনকারীদের জন্য ব্যবহৃত হয়। টার্মিনালটি একটি নতুন প্রসারিত অভিবাদন অঞ্চল এবং আটটি বেল্ট সহ একটি বৃহত্তর লাগেজ এলাকার সাথে আধুনিকীকরণ করা হয়েছে।

টার্মিনাল ১ডি

টার্মিনাল ১ডি হ'ল নতুন নির্মিত গার্হস্থ্য প্রস্থান টার্মিনাল যার মোট মেঝের স্থান ৫৩,০০০ বর্গমিটার (৫,৭০,০০০ বর্গফুট) এবং প্রতি বছর ১৫ মিলিয়ন যাত্রী পরিচালনার ক্ষমতা রাখে।[১৮] টার্মিনাল ১ডি ১৯ এপ্রিল ২০০৯ সালে কার্যক্রম শুরু করে।[১৯] এটিতে ৭২ টি সাধারণ ব্যবহারের টার্মিনাল সরঞ্জাম (CUTE) সক্ষম চেক-ইন কাউন্টার, ১৬ টি স্ব-চেক-ইন কাউন্টার এবং ১৬ টি সুরক্ষা চ্যানেল রয়েছে।[১৯]

বিমান সংস্থা ও গন্তব্যসম্পাদনা

যাত্রীসম্পাদনা

যোগাযোগসম্পাদনা

রেলসম্পাদনা

নিকটতম রেলওয়ে স্টেশনটি পালম রেলওয়ে স্টেশন, যথাক্রমে ১ ও ৩ টার্মিনাল থেকে ৪.৮ কিলোমিটার (৩.০ মাইল) এবং ১২ কিলোমিটার (৫.৫ মাইল) দূর অবস্থিত। এই স্টেশনগুলির মধ্যে বেশ কয়েকটি যাত্রীবাহী ট্রেন নিয়মিত চলাচল করে। শাহাবাদ মোহাম্মদপুর (এসএমডিপি) স্টেশনও সমানভাবে নিকটবর্তী।[২০][২১]

বিমানবন্দর মেট্রো এক্সপ্রেস লাইনের দিল্লি বিমানবন্দর মেট্রো স্টেশন-এর দ্বারা বিমানবন্দরের টার্মিনাল ২ এবং ৩ - এ মেট্রো পরিষেবা প্রদান কররা হয়। ২২.৭ কিমি (১৪.১ মাইল) লাইন দ্বারকা সেক্টর ২১ থেকে নয়াদিল্লির মেট্রো স্টেশন পর্যন্ত চলেছে এবং প্রতি ১০ মিনিটে ট্রেন চলাচল করে। ১নং টার্মিনালটি ম্যাজেন্টা লাইনের টার্মিনাল ১-আইজীআই বিমানবন্দর মেট্রো স্টেশন দ্বারা মেট্রো পরিষেবা প্রদান করা হয়।[২২]

সড়কসম্পাদনা

বিমানবন্দরটি ৮-লেনের দিল্লি গুড়গাঁও এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে সংযুক্ত। দিল্লি পরিবহন কর্পোরেশন (ডিটিসি) দ্বারা পরিচালিত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নিম্ন-মেঝেবিশিষ্ট বাস নিয়মিত বিমানবন্দর এবং শহরের মধ্যে চলাচল করে। মিটার ট্যাক্সিগুলি টার্মিনাল টি৩ এবং টি১ সি থেকে দিল্লির সমস্ত অঞ্চলেও পাওয়া যায়।[২৩]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Traffic News for the month of January 2016: Annexure III (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৯ মার্চ ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬January 2016: 4,295,233 passengers; January 2015: 3,549,708 passengers 
    • Traffic News for the month of February 2016: Annexure III (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৮ এপ্রিল ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬February 2016: 4,244,280 passengers; February 2015: 3,457,648 passengers 
    • Traffic News for the month of March 2016: Annexure III (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ২২ মে ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬March 2016: 4,589,695 passengers; March 2015: 3,679,460 passengers 
    • Traffic News for the month of December 2016: Annexure III (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন) (ইংরেজি ভাষায়)। ৩০ জানুয়ারি ২০১৭। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭April–December 2016: 42,502,177 passengers; April–December 2015: 35,294,957passengers 
  2. Traffic News for the month of January 2016: Annexure II (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৯ মার্চ ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬January 2016: 29,310 aircraft movements; January 2015: 24,207 aircraft movements 
    • Traffic News for the month of February 2016: Annexure II (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৮ এপ্রিল ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬February 2016: 28,757 aircraft movements; February 2015: 22,877 aircraft movements 
    • Traffic News for the month of March 2016: Annexure II (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ২২ মে ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬March 2016: 31,460 aircraft movements; March 2015: 26,166 aircraft movements 
    • Traffic News for the month of December 2016: Annexure II (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন) (ইংরেজি ভাষায়)। ৩০ জানুয়ারি ২০১৭। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭April–December 2016: 297,158 aircraft movements; April–December 2015: 254,586 aircraft movements 
  3. Traffic News for the month of January 2016: Annexure IV (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৯ মার্চ ২০১৬। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬January 2016: 65,401 tonnes 
    • Traffic News for the month of February 2016: Annexure IV (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ৮ এপ্রিল ২০১৫। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬February 2016: 62,738 tonnes 
    • Traffic News for the month of March 2016: Annexure IV (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন)। ২২ মে ২০১৫। পৃষ্ঠা 3। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৬March 2016: 69,130 tonnes 
    • Traffic News for the month of December 2016: Annexure IV (PDF)Airports Authority of India (প্রতিবেদন) (ইংরেজি ভাষায়)। ৩০ জানুয়ারি ২০১৭। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭April–December 2016: 635,658 tonnes 
  4. "Why they should stay with the Air Force"The Hindu Business Line 
  5. "Mumbai, Delhi airport management to be handed over to pvt cos"। Outlookindia.com। ১৪ মে ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৪ 
  6. "Fact Sheet"। Newdelhiairport.in। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৪ 
  7. "Advance System at IGIA" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। Press Information Bureau, Government of India, Ministry of Civil Aviation। ১২ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  8. ACI Airport Service Quality Awards 2009, Asia Pacific airports sweep top places in worldwide awards from the Wayback Machine
  9. "Delhi's IGI is world's 2nd best airport for service quality again"Firstpost 
  10. Business Standard। "Business Standard"business-standard.com 
  11. "Delhi's Indira Gandhi International Airport bags two international awards in Paris"The Economic Times। ১৭ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৫ 
  12. "Indira Gandhi International Airport is world's best airport for second time in a row"indiatoday.intoday.in। সংগ্রহের তারিখ ২ মার্চ ২০১৬ 
  13. Devanjana Nag (৭ মার্চ ২০১৮)। "Delhi's IGI, Mumbai's Chhatrapati Shivaji airports beat Singapore Changi, Seoul Incheon to become world's best"The Financial Express। সংগ্রহের তারিখ ২ মে ২০১৮ 
  14. About IGI Airport from the Wayback Machine
  15. "Delhi, Mumbai airport modernisation – Efforts to ensure a smoother journey"Business Line। ৪ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১০ 
  16. "DIAL plans 4th runway at IGI by 2020, new terminal too"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৭ 
  17. "End of an era at Terminal 1 A"Hindustan Times। ১০ নভেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৩ মে ২০১৭ 
  18. "Terminal 1D expansion work to begin by year end"The Hindu। ১৬ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৩ মে ২০১৭ 
  19. "Delhi Airport's new Terminal 1D to open on April 19"NetIndian। ১৪ এপ্রিল ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ৩ মে ২০১৭ 
  20. "Shahabad Mohamadpur/SMDP Railway Station Satellite Map – India Rail Info – A Busy Junction for Travellers & Rail Enthusiasts"। India Rail Info। ২৬ এপ্রিল ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০১২ 
  21. "Palam/PM Railway Station Satellite Map – India Rail Info – A Busy Junction for Travellers & Rail Enthusiasts"। India Rail Info। ২৬ এপ্রিল ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০১২ 
  22. Sidharatha Roy (২৪ মে ২০১৮)। "Metro walks the talk on connect to terminal 1"The Times of India। New Delhi। TNN। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৮ 
  23. "To and From Delhi Airport by Taxi"Official Website। ৩০ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা