আলফ্রেড রিচার্ডস

দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার ও রাগবি ইউনিয়ন খেলোয়াড়

আলফ্রেড রেনফ্রিউ রিচার্ডস (ইংরেজি: Alfred Richards; জন্ম: ১৪ ডিসেম্বর, ১৮৬৭ - মৃত্যু: ১ সেপ্টেম্বর, ১৯০৪) কেপ উপনিবেশের গ্রাহামসটাউনের জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক ছিলেন।[১] এছাড়াও, রাগবি ইউনিয়নের খেলোয়াড় হিসেবে অংশগ্রহণ করেছেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। দলে মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন আলফ্রেড রিচার্ডস

আলফ্রেড রিচার্ডস
AlfRichards.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআলফ্রেড রেনফ্রিউ রিচার্ডস
জন্ম(১৮৬৭-১২-১৪)১৪ ডিসেম্বর ১৮৬৭
গ্রাহামসটাউন, দক্ষিণ আফ্রিকা
মৃত্যু১ সেপ্টেম্বর ১৯০৪(1904-09-01) (বয়স ৩৬)
সলসবারি, রোডেশিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন-
ভূমিকাব্যাটসম্যান, অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৩৭)
২১ মার্চ ১৮৯৬ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ৩৪৬
ব্যাটিং গড় ৩.০০ ২৩.০৬
১০০/৫০ ০/০ ১/১
সর্বোচ্চ রান ১০৮
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ১৩/২
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৬ জুলাই ২০১৮
রাগবি খেলোয়াড়ী জীবন
রাগবি ইউনিয়নে খেলোয়াড়ী জীবন
অবস্থান ইনসাইড সেন্টার
ফ্লাই-হাফ
প্রাদেশিক/রাজ্য দল
সাল দল অংশগ্রহণ (পয়েন্ট)
জাতীয় দল
সাল দল অংশগ্রহণ (পয়েন্ট)
১৮৯১ দক্ষিণ আফ্রিকা ()
Correct as of ৬ জুলাই, ২০১৮

রাগবি ইউনিয়নে তিন খেলায় অংশ নিয়ে একবার দলকে নেতৃত্ব দেন। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ হয় তার। ২১ মার্চ, ১৮৯৬ তারিখে টেস্ট অভিষেক ঘটে আলফ্রেড রিচার্ডসের। ঐ একই টেস্টে তিনি দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণসম্পাদনা

দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুরদিককার প্রাদেশিক কিছু খেলায় ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের পক্ষে খেলেছেন তিনি। ১৮৯৩-৯৪ মৌসুমে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১০৮ রান তুলেছিলেন। ফলশ্রুতিতে নাটাল দলকে পরাজিত করে কারি কাপের শিরোপা জয়ে সবিশেষ ভূমিকা পালন করেন।

লর্ড হক একাদশের বিপক্ষে পরবর্তী প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশগ্রহণ করেন। ১৮৯৫-৯৬ মৌসুমে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় দলের সর্বমোট ১২২ রানের মধ্যে একাই ৫৮ রান তুলেছিলেন তিনি। এরফলে সিরিজের তৃতীয় প্রতিনিধিত্বমূলক খেলায় তার অংশগ্রহণের সুযোগ হয়। এ খেলাটি পরবর্তীকালে টেস্ট খেলার মর্যাদা পায়। ২১ মার্চ, ১৮৯৬ তারিখে কেপ টাউনে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো অংশ নেন। দলীয় সঙ্গী জিকে গ্লোভার, এডব্লিউ সেকাল ও প্রতিপক্ষীয় ইংল্যান্ডের ইজে টাইলারের সাথে একযোগে টেস্ট অভিষেক ঘটে তার।[২] রিচার্ডস দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু, তিনি মাত্র ৬ ও ০ রান তুলতে পেরেছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ইনিংস ও ৩৩ রানের ব্যবধানে পরাভূত হয়েছিল। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিতে দেখা যায়নি।

রাগবি ফুটবলসম্পাদনা

১৮৯১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে পোর্ট এলিজাবেথে আন্তর্জাতিক রাগবি খেলায় অভিষেক ঘটে আলফ্রেড রিচার্ডসের। ঐ বছর প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ আইলস রাগবি দল দক্ষিণ আফ্রিকায় পদার্পণ করে। গ্রেট ব্রিটেন খেলায় জয় পায়। ২৯শে আগস্ট উত্তর কেপের কিম্বার্লিতে দলের অধিনায়কত্ব করেন। ঐ খেলায়ও সফরকারীরা জয় তুলে নেয়।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

রিচার্ডসের জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা ডিকি রিচার্ডস ও যোসেফ ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন। তন্মধ্যে, ডিকি ১৮৮৮-৮৯ মৌসুমে একটি টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন।

১ সেপ্টেম্বর, ১৯০৪ তারিখে ৩৭ বছর বয়সে তৎকালীন রোডেশিয়ার সলসবারিতে (অধুনা: জিম্বাবুয়ের হারারে) আলফ্রেড রিচার্ডসের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "List of captains: South Africa – Tests"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  2. "England in South Africa (1895 – 1896): Scorecard of third Test"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২১, ২০১৯ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা