আবদুল মুবীন

বাংলাদেশের সাবেক সেনাপ্রধান

মোহাম্মদ আবদুল মুবীন একজন বাংলাদেশী জেনারেল যিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চিফ অফ স্টাফ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। [১][২] সেনাবাহিনী প্রধানের দায়িত্ব নেওয়ার আগে মুবীন সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এর আগে, তিনি চব্বিশ পদাতিক বিভাগ এবং ৫৫ তম পদাতিক বিভাগের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

মোহাম্মদ আবদুল মুবীন
General Abdul Mubeen in New Delhi on 15 March 2010.jpg
১৩তম বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সেনাপ্রধান
কাজের মেয়াদ
১৬ জুন ২০০৯ – ২৫ জুন ২০১২
পূর্বসূরীমঈন ইউ আহমেদ
উত্তরসূরীইকবাল করিম ভূঁইয়া
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৫৫
চট্টগ্রাম, পূর্ব পাকিস্তান (বর্তমানে বাংলাদেশ)
সামরিক পরিষেবা
আনুগত্যবাংলাদেশ
শাখাবাংলাদেশ সেনাবাহিনী
কাজের মেয়াদ৩০ নভেম্বর ১৯৭৬ - ২৫ জুন ২০১২
পদজেনারেল
কমান্ড৫৫ তম পদাতিক বিভাগের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং
Commander, 24th Division
Principal Staff Officer of the Armed Forces Division
15th Chief of Army Staff

তিনি বর্তমানে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও মনোনিত পরিচালক। [৩]

শিক্ষা ও যোগদানসম্পাদনা

তিনি টাঙ্গাইলের মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের ছাত্র ছিলেন। ১৯৭৬ সালের ৩০ নভেম্বর তাকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পদাতিক ( ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট ) রেজিমেন্টে কমিশন দেওয়া হয়। [১][৪] মুবীন ঢাকার মিরপুরে ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এবং স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি) এবং জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজ (এনডিসি) উভয়ের স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। [৪] সেনা অফিসার হিসাবে মুবিন ন্যাটো ওয়েইন কনভার্সন কোর্স, ইনফ্যান্ট্রি ওয়েপন কোর্স, সিনিয়র কমান্ড কোর্স ইত্যাদি সহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কর্মসূচি সম্পন্ন করেন এবং ভারতচীনসহ অন্তত ১৫ টি দেশে ওয়ার্কশপ ও সেমিনারে অংশ নেন। [৩][৪]

কর্মজীবনসম্পাদনা

মুবীন সেনাবাহিনীর ব্যাটালিয়ন স্তরে বিভিন্ন পদে কাজ করেছিল, যার মধ্যে দুটি পদাতিক ব্যাটালিয়ন এবং একটি পদাতিক ব্রিগেডের কমান্ডিং ছিল। কর্মী পর্যায়ে তিনি একটি স্বাধীন পদাতিক ব্রিগেড সদর দফতরে ব্রিগেড মেজর (অপারেশন স্টাফ), পদাতিক ডিভিশন সদর দফতরে এবং বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে জেনারেল স্টাফ অফিসার প্রথম গ্রেড (অপারেশন স্টাফ), সেনাবাহিনী প্রধানের একান্ত সচিব ও পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। সেনা সদর দফতরে সামরিক প্রশিক্ষণ অধিদপ্তর। [৪] তিনি বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অফ ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের (বিআইআইএসএস) মহাপরিচালক এবং প্রধান কর্মচারী কর্মকর্তা (পিএসও), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ (এএফডি) এর গুরুত্বপূর্ণ নিয়োগও পেয়েছিলেন। তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজের কমান্ড্যান্ট ছিলেন। [৪] তিনি যশোর এবং চট্টগ্রাম নামে দুটি পদাতিক বিভাগের কমান্ডিং করেছেন [২] জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) হিসাবে। আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফর্মে, জেনারেল মোজাম্বিকের জাতিসংঘের অপারেশন (ওএনইউএমইউজেইড) -র চিফ অফ স্টাফের (উত্তর অঞ্চল) সক্ষমতা হিসাবে শান্তিরক্ষী হিসাবে তার দায়িত্ব উপস্থাপন করেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তিনি সৈয়দা শরীফা খানমের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন এবং তার দুটি পুত্র ও একটি কন্যা রয়েছে। তার বড় ছেলে তৃতীয় প্রজন্মের সেনা অফিসার; মুবিনের বাবাও একজন সেনা কর্মকর্তা ছিলেন। [৪] সেনাবাহিনীতে চাকরির শুরুর দিনগুলিতে তিনি আর্মি হকি দলে সজ্জিত খেলোয়াড় ছিলেন। [৪]

প্রদর্শিত সৌলন্যাদিসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Bangladesh Olympic Association - Biodata, President"। Bangladesh Olympic Association। ১৯ জুন ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১১ 
  2. "Gen Mubeen takes over army"। The Daily Star। ২০০৯-০৬-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৬-১৭ 
  3. "CHAIRMAN & NOMINATED DIRECTOR, UNITED POWER GENERATION & DISTRIBUTION COMPANY LIMITED"। ২০১৬-০৪-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  4. "Chairman's Biography"। Trust Bank Limited। ২৮ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১১