অবহট্‌ঠ

মানুষের ভাষা

অবহট্‌ঠ (প্রাকৃত: abasatta, বাংলা: অবহট্‌ঠ ôbôhôtthô, চূড়ান্তভাবে সংস্কৃত: apaśabda থেকে;[১]"অর্থহীন শব্দ") মধ্যভারতীয় আর্যভাষা তথা প্রাকৃতপালি ভাষার পরবর্তী ঐতিহাসিক ধাপ অপভ্রংশ ভাষার পরবর্তী স্তর বা শেষ পরিণতি। মূলত এই ভাষা থেকেই নব্য ভারতীয় আর্যভাষাসমূহের উৎপত্তি। বাংলা ভাষা পূর্ব ভারতীয় মাগধী ভাষা অবহট্‌ঠ-এর পরিণত রূপ। খ্রিস্টিয় ষষ্ঠ থেকে পঞ্চদশ শতক পর্যন্ত অবহট্‌ঠ ভাষার প্রচলন ছিলো।[২]

অবহট্‌ঠ
Abahattha
অঞ্চলভারত
বিলুপ্ত১৪ শতক
দেবনাগরী, বাংলা
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩অজানা (নেই)
গ্লোটোলগNone

উৎপত্তিসম্পাদনা

 
অবহট্‌ঠ ভাষায় লেখা একটি লিপির অংশবিশেষ

বাংলা ভাষার উৎপত্তির সাধারণ ক্রম হলো:

মাগধী প্রাকৃত > মাগধী অপভ্রংশ > মাগধী অবহট্‌ঠ > বাংলা

তবে মুহম্মদ শহীদুল্লাহ এ-বিষয়ে ভিন্ন মত পোষণ করেন, তার মতানুসারে মূলত গৌড়ীয় প্রাকৃত থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি হয়েছে। অর্থাৎ,

গৌড়ীয় প্রাকৃত > গৌড়ীয় অপভ্রংশ > গৌড়ীয় অবহট্‌ঠ > বাংলা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. দেশপান্ডে, মাধব। সংস্কৃত এবং প্রাকৃত [Sanskrit and Prakrit]। পৃষ্ঠা ৩২। 
  2. দুলাল ভৌমিক (জানুয়ারি ২০০৩)। "অবহট্‌ঠ"। সিরাজুল ইসলাম[[বাংলাপিডিয়া]] (বাংলা ভাষায়)। ঢাকা: এশিয়াটিক সোসাইটি বাংলাদেশআইএসবিএন 984-32-0576-6। ২৩ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৪  ইউআরএল–উইকিসংযোগ দ্বন্দ্ব (সাহায্য)

বহিসংযোগসম্পাদনা