মধ্যমাঠের খেলোয়াড়

(Midfielder(association football) থেকে পুনর্নির্দেশিত)

মধ্যমাঠের খেলোয়াড় বা মিডফিল্ডার (ইংরেজি: Midfielder) হচ্ছে ফুটবল খেলার মাঠে একটি অবস্থান[১] মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ সাধারণত তাদের দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় এবং আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের মাঝে মাঠে অবস্থান করে উভয় অংশের খেলোয়াড়দের সাহায্য করে থাকে। মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের প্রধান কাজ হচ্ছে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের ট্যাকল (ইংরেজি: Tackle) বা খেলোয়াড়দের কাছ থেকে বল ছিনিয়ে নেওয়ার মাধ্যমে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের কাছে নিয়মিত বলের যোগান দেয়া এবং সম্ভব হলে দলের হয়ে গোল করা। কিছু কিছু মধ্যমাঠের খেলোয়াড় নিজেদের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দলের আক্রমণ (তারা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে পরিচিত) এবং রক্ষণেও (তারা রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে পরিচিত) ভূমিকা পালন করে থাকে। অন্যান্য খেলোয়াড়গণ মাঠের মধ্যভাগ রক্ষার করার মাধ্যমে মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের আরও বেশি চলনশীল এবং পাস প্রদান করার ক্ষেত্রে আরও বেশি কার্যকর হতে সাহায্য করে থাকে; যার ফলে তারা গভীরতম মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, প্লে-মেকার, বাক্স-হতে-বাক্স অথবা অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের পরিচিতি লাভ করে থাকে।[২]

অসাধারণ মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের কয়েকটি গুণাবলি থাকে, যেমন: তারা ট্যাকলিং, ড্রিবল, শট, পাস দেয়া প্রভৃতিতে দক্ষ হয়ে থাকেন। একজন ভাল মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের লড়াই করার ক্ষমতা থাকার পাশাপাশি সৃষ্টিশীলও হতে হয়। মধ্যমাঠের সাহায্য ছাড়া যেমন একজন ভাল স্ট্রাইকার বা লক্ষ্যভেদী খেলোয়াড় আক্রমণ শানাতে পারে না, তেমনি রক্ষণভাগের খেলোয়াড় রক্ষণে ততটা সুবিধাজনক অবস্থানে থাকতে পারে না।

অধিকাংশ ম্যানেজার প্রতিপক্ষ দলের আক্রমণকে ব্যাহত করার জন্য কমপক্ষে একজন মধ্যমাঠের খেলোয়াড়কে এই দায়িত্বে নিয়োগ দিয়ে থাকেন, একই সময় অন্যান্য খেলোয়াড়গণ আক্রমণে সাহায্য করা (সাধারণত যেকোন প্রান্তে উইঙ্গার বা পার্শ্বীয় খেলোয়াড় বা বিশেষজ্ঞ পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ আক্রমণের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন), রক্ষণে সাহায্য করা, গোল তৈরি করা অথবা গোল করার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন। মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এমন এক ধরনের খেলোয়াড়, যারা সাধারণত কোনও ম্যাচে সবচেয়ে বেশি দূরত্ব অতিক্রম করে থাকে; কারণ মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ তর্কসাপেক্ষে যেকোন খেলার সময় সবচেয়ে বেশি সময় ধরে বলের দখল নিয়ে থাকে। মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ অন্যান্য খেলোয়াড়দের চেয়ে সর্বাধিক কর্মক্ষম খেলোয়াড়,[৩] যার ফলে খুব কম সময়েই তারা যেকোনো ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। দলে প্রয়োজন অনুযায়ী মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের সংখ্যার তারতম্য হতে পারে।

কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

 
বল দখলের প্রচেষ্টায় স্টিভেন জেরার্ড এবং দানিয়েলে দে রসি

কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Central midfielder, ইংরেজি: Centre midfielder; এছাড়াও কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় অথবা সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার নামেও পরিচিত) হলেন এমন এক ধরনের খেলোয়াড়, যারা আক্রমণ এবং রক্ষণ করার জন্য মাঠের কেন্দ্রের চারপাশে খেলাতে আধিপত্য বিস্তার করার জন্য প্রায় সমানভাবে বিভক্ত থাকে। এই খেলোয়াড়গণ দলের আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এবং আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের কাছে বল পাঠানোর চেষ্টা করার পাশাপাশি প্রতিপক্ষ দলের পেনাল্টি অঞ্চলে দিকে বল নিয়ে গিয়ে নিজেই লক্ষ্যভেদে শট (অধিকাংশ সময় দূরবর্তী শট) নেওয়ার চেষ্টা করে থাকে, এর দলে তার দল আক্রমণে এক বাড়তি সহায়তা লাভ করে থাকে।

যখন প্রতিপক্ষ দলের নিয়ন্ত্রণে বল থাকে, তখন একজন কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় নিজের গোলপোস্ট রক্ষা করার জন্য রক্ষণভাগে ফিরে যেতে পারে এবং বলের নিয়ন্ত্রণে থাকা প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়কে চাপের মুখে ফেলে বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে। যখন কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় নিজের দলের গোলপোস্ট রক্ষার জন্য পেনাল্টি অঞ্চলে চলে আসে, তখন কেন্দ্রীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড় সামনে এগিয়ে গিয়ে প্রতিপক্ষ দলের দূরবর্তী শট প্রতিহত করে থাকে অথবা করার চেষ্টা করে।

৪–৩–৩ এবং ৪–৫–১ উভয়ে বিন্যাসে তিনজন করে কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় ব্যবহৃত হয়ে থাকে।[৪] ৪−৪−২ বিন্যাসে দুইজন এবং ৪−২−৩−১ বিন্যাসে দুইজন গভীর মধ্যমাঠের খেলোয়াড় ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Box-to-box midfielder; এছাড়াও বক্স-টু-বক্স মিডফিল্ডার, বিবিএম এবং বি২এম নামে পরিচিত) শব্দটি দ্বারা এমন এক ধরনের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের বোঝানো হয়ে থাকে, যারা সাধারণত কঠোর পরিশ্রমী হন। বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের প্রায় সকল বিভাগে দক্ষতা রয়েছে, যা তাদেরকে রক্ষণ এবং আক্রমণ উভয় ক্ষেত্রেই দক্ষ করে তোলে।[৫] এই খেলোয়াড়গণ তাই বল ট্যাকল এবং শট প্রতিহত করতে নিজের বাক্সে ফিরে গিয়ে বলটি সংগ্রহ করে প্রতিপক্ষের বাক্সে এগিয়ে নিয়ে গিয়ে গোল করার চেষ্টা করে থাকে।[৬] ২০০০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে, ফুটবল খেলায় ব্যবহৃত বিন্যাসের পরিবর্তন এবং প্রমিত ৪–৪–২ বিন্যাসে পতন (অনেক ক্ষেত্রে যা ৪–২–৩–১ এবং ৪–৩–৩ বিন্যাস উদ্ভাবনের পথ সুগম করে দিয়েছে) নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল ১৯৮০ এবং ১৯৯০-এর দশকের ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের ভূমিকা সীমাবদ্ধ করে দিয়েছিল। এর ফলে প্রতিটি দলে বর্তমানে "অধিষ্ঠিত" এবং "সৃজনশীল" মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের লক্ষ্য করার পাশাপাশি "বাহক" অথবা "সার্জার" নামে তৃতীয় এক ধরনের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকা পরিলক্ষিত হয়।[৭]

বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মধ্যে স্টিভেন জেরার্ড, ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড, আন্তোনিও কোন্তে, দানিয়েলে দে রসি, বাস্তিয়ান শোয়েনস্টেইগার, সামি খেদিরা, ইয়াইয়া তুরে, আরতুরো ভিদাল, পাত্রিক ভিয়েইরা, রাজা নাইনগোলান এবং অ্যারন রামসি উল্লেখযোগ্য।

মেজ্জালাসম্পাদনা

ইতালীয় ফুটবলে মেজ্জালা (ইংরেজি: Mezzala; আক্ষরিক অর্থ: "অর্ধ পার্শ্বীয় খেলোয়াড়") শব্দটি হচ্ছে এক অথবা দুইজন মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের অবস্থান নির্দেশ করে যারা অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এবং / অথবা প্লে মেকারের সাথে খেলে থাকে। এই শব্দটি প্রথমে ইতালীয় ভাষায় ডাব্লিউএম এবং মেতোদো বিন্যাসে অভ্যন্তরীণ আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের ভূমিকা বোঝাতে প্রয়োগ করা হয়েছিল, পরবর্তীতে এটি একটি বিশেষ ধরনের কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের বর্ণনা দিতে ব্যবহৃত হয়েছিল। মেজ্জালা প্রায়ই দ্রুত এবং অধিক পরিশ্রমী আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের নির্দেশ করা হয়, যারা উল্লেখযোগ্য আক্রমণাত্মক ক্ষমতা এবং অধিক্রমণ আক্রমণাত্মক দৌড় দেওয়ার প্রবণতার পাশাপাশি খেলার রক্ষণভাগে অংশ গিয়ে রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের সহায়তা প্রদান করে থাকে; এছাড়াও আরও একাধিক ভূমিকার জন্য এই শব্দটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। ইংরেজ ফুটবলে, এই শব্দটি একজন "বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড়"-এর বৈকল্পিক ভূমিকার নির্দেশ করা ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতে থাকে।[৮][৯][১০][১১]

পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

 
কর্নার নেওয়ার জন্য যাচ্ছেন ডেভিড বেকহ্যাম

পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Wide midfielder; এছাড়াও ওয়াইড মিডফিল্ডার নামে পরিচিত) হচ্ছে এমন খেলোয়াড়, যারা ফুটবল মাঠের মধ্যাংশের পার্শ্বদেশের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকে। পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় সাধারণত দুইভাগে বিভক্ত; বাম পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এবং ডান পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়। বাম এবং ডান পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের আক্রমণ এবং রক্ষণের মধ্যে ভারসাম্যপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে, যা কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মতো, তবে তারা মাঠের পার্শ্বদেশের কাছাকাছি অবস্থান করেন। তারা তাদের দলের অন্যান্য খেলোয়াড়দের গোল করার সম্ভাবনা তৈরি করার জন্য তাদের প্রতিপক্ষ দলের পেনাল্টি অঞ্চলে চলে আসেন এবং রক্ষণের সময় ক্রস করার প্রচেষ্টায় থাকা প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের ওপর চাপ সৃষ্টি করে থাকেন।[১২]

বাম এবং ডান পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় অন্তর্ভুক্ত সাধারণ আধুনিক বিন্যাসগুলো হচ্ছে ৪−৪−২, ৪−৪−১−১, ৪−২−৩−১ এবং ৪−৫−১[১৩] ব্রিটিশ সাংবাদিক জনাথন উইলসন ৪−৪−২-এর ক্রমবিকাশ সম্পর্কে বলেছেন, "পার্শ্বীয় খেলোয়াড় পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ে পরিণত হয়েছেন, এমন এক খেলোয়াড় যাদের কাছ থেকে ক্রস আশা করা হতো কিন্তু একই সাথে তারা রক্ষণের কাজেও নিয়োজিত থাকতো"।[১৪] পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মধ্যে ডেভিড বেকহ্যাম এবং রায়ান গিগস উল্লেখযোগ্য।[১৫]

ইতালীয় ফুটবলে পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকা তোরনান্তে দি সেন্ত্রোচাম্পো বা শুধুমাত্র তোরনান্তে ("প্রত্যাবর্তন") নামে পরিচিত; এটি বহিঃস্থ আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের ভূমিকা থেকে উদ্ভূত হয়েছিল এবং প্রায়ই এই অবস্থানে থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের সহায়তা এবং আক্রমণ করার পাশাপাশি রক্ষণভাগেরও সহায়তা প্রদান করার জন্য এটি পরিচিতি লাভ করে।[১৬][১৭]

পার্শ্বীয়-অর্ধসম্পাদনা

পার্শ্বীয়-অর্ধের (ইংরেজি: Wing-half; এছাড়াও উইং-হাফ নামে পরিচিত) ঐতিহাসিক অবস্থানটি (মেজ্জালা সাথে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য) হচ্ছে ফুটবল মাঠের পার্শ্বদেশের কাছে, যেখানে পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ অবস্থান করে থাকে। এটি রক্ষণাত্মক দায়িত্বপ্রাপ্ত পার্শ্বীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে রক্ষণের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠার মাধ্যমে অপ্রচলিত হয়ে পড়েছে।[১৮][১৯]

রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

 
মারিও বালোতেল্লি থেকে বল দখলের প্রচেষ্টায় সার্হিও বুস্কেৎস্

রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Defensive midfielder; এছাড়াও ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার নামে পরিচিত) হচ্ছে এমন মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, যারা তাদের দলের গোলপোস্ট রক্ষায় মনোনিবেশ করেন। এই খেলোয়াড়গণ তাদের দলের রক্ষণ অংশের সামনে একটি বলয় রক্ষা করে অথবা প্রতিপক্ষ দলের নির্দিষ্ট খেলোয়াড়কে নজরে রাখে[২০][২১][২২] যখন খেলোয়াড়গণ আক্রমণে যোগ দিতে এগিয়ে যায়, তখন রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় একজন পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড় অথবা একজন কেন্দ্রীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড়ে পরিণত হয়।[২৩][২৪]

সার্হিও বুস্কেৎস্ তার মনোভাব বর্ণনা করেছেন, "কোচ জানেন যে আমি একজন কর্তব্যপরায়ণ খেলোয়াড়, যিনি সাহায্য করতে পছন্দ করেন এবং যদি কারও অবস্থান রক্ষায় আমাকে পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড়ে স্থানেও যেতে প্রস্তুত থাকে"।[২৪] একজন ভাল রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের যে সকল বৈশিষ্ট্য থাকা আবশ্যক, তার মধ্যে ভাল অবস্থানগত সচেতনতা, প্রতিপক্ষ দলের খেলার পূর্বজ্ঞান, খেলোয়াড়দের চিহ্নিতকরণ, মোকাবেলা, আটক, পাস প্রদান এবং দুর্দান্ত সহনশক্তি অন্যতম। দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলে এই ভূমিকাটি বোলান্তে দে মার্কা ("চালক") নামে পরিচিত, অন্যদিকে মেক্সিকোতে এটি ভোলান্তে দে কোন্তেন্সিওন নামে পরিচিত। পর্তুগালে, এটি ত্রিঙ্কো নামে পরিচিত।[২৫]

অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Holding midfielder; এছাড়াও প্রভাব বিস্তারকারী মধ্যমাঠের খেলোয়াড় অথবা হোল্ডিং মিডফিল্ডার নামে পরিচিত) তাদের দলের রক্ষণভাগের কাছাকাছি অবস্থান করে থাকে, যেন মধ্যমাঠের অন্যান্য খেলোয়াড়গণ আক্রমণে এগিয়ে যেতে পারে।[২৬] দলের অধীনে বল থাকলে অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় অন্যান্য দায়িত্বে নিয়োজিত থাকে। অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের দায়িত্বে নিয়োজিত খেলোয়াড়গণ তাদের দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের জন্য অধিকাংশ ক্ষেত্রে সংক্ষিপ্ত এবং সাধারণ পাসের মাধ্যমে দলের হয়ে গোল করার সম্ভাবনা তৈরি করে, কিন্তু দলের কৌশল অনুসারে বেশ কিছু কঠিন পাস প্রদান করার চেষ্টাও করে থাকে। রক্ষণভাগে অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকার পালন করার মাধ্যমে মার্সেলো বিয়েলসা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।[৭] এই অবস্থানটি ৪–২–৩–১ এবং ৪–৪–২ ডায়মন্ড বিন্যাসে দেখা যেতে পারে।[২৭]

... আমরা জানতাম যে জিদান, রাউল এবং ফিগো আক্রমণে গেলে পেছনে ফিরে আসে না, তাই আমাদের রক্ষণভাগে চারজনের সামনে একজন খেলোয়াড়কে রাখতে হয়েছে, যে গোলপোস্ট রক্ষা করেছে।

আররিগো সাক্কি রিয়াল মাদ্রিদের অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে ক্লদ্‌ মাকেলেলের বর্ণনা দিয়ে বলেছেন।[২৮]

প্রাথমিকভাবে, একজন রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় অথবা "বিনাশকারী" এবং একজন প্লেমেকার বা "সৃজনশীল খেলোয়াড়" প্রায়ই একে অপরের পাশাপাশি অবস্থান করে দলের দুইজন অধিষ্ঠিত কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামতো। বিনাশকারী সাধারণত ট্যাকল করে বলের দখল ফিরে পেতে সাহায্য করে এবং বলটিকে সৃজনশীল খেলোয়াড়ের কাছে বিতরণ করে থাকে, যদিও সৃজনশীল খেলোয়াড় দখল ধরে রেখে সামনের দিকে এগিয়ে দিয়ে থাকে। অন্যদিকে এই কাজে নিয়োজিত খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে প্রায়ই দীর্ঘ পাস আসে, যা তাদেরকে গভীরতম মধ্যমাঠের খেলোয়াড় বা "রেগিস্তা"-এর মতো করে সামলে নিতে হয়। প্রাথমিক দিকে বিনাশকারীর ভূমিকায় নিযুক্ত খেলোয়াড়দের মধ্যে নবি স্টিলেস, হারবার্ট উইমার, মার্কো তারদেল্লি উল্লেখযোগ্য এবং পরবর্তীকালে ক্লদ্‌ মাকেলেলে এবং হাভিয়ের মাশ্চেরানো বিনাশকারীর ভূমিকায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন। এই খেলোয়াড়দের অধিকাংশই অন্যান্য মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের গুনাগুণ সমৃদ্ধ হন, যার ফলে তারা কোন একক ভূমিকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেন না। অন্যদিকে, প্রাথমিক দিকে সৃজনশীল খেলোয়াড়ের ভূমিকায় নিযুক্ত খেলোয়াড়দের মধ্যে গারসন, গ্লেন হডল এবং সানডে ওলিসেহ উল্লেখযোগ্য; এবং সাম্প্রতিককালে জাবি আলোনসো এবং মাইকেল ক্যারিক সৃজনশীল খেলোয়াড়ের ভূমিকায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন। বাক্স-হতে-বাক্স মধ্যমাঠের খেলোয়াড় বা "বহনকারী" বা "সার্জার" হিসেবে সর্বশেষ এবং তৃতীয় ধরনের অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড় পুরোপুরি বিনাশকারী বা সৃজনশীল খেলোয়াড় নয়, যিনি রক্ষণভাগে বলের দখল নিয়ে দলের সতীর্থদের বল বিতরণ করে অথবা নিজে বহন করে গভীর অবস্থান থেকে সামনের দিকে অগ্রসর হয়ে থাকেন; সাম্প্রতিককালে এই ভূমিকায় খেলা খেলোয়াড়দের মধ্যে ইয়াইয়া তুরে, ফার্নান্দিনিয়ো, বাস্তিয়ান শোয়েনস্টেইগার, সামি খেদিরা বিনাশকারীর এবং লুকা মদরিচ বহনকারীর গুনাগুণ ধারণ করে।[৭]

গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড়সম্পাদনা

 
সতীর্থের উদ্দেশ্যে পাস বাড়িয়ে দিচ্ছেন জাবি আলোনসো

গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড় (ইংরেজি: Deep-lying playmaker; এছাড়াও ডিপ লায়িং মিডফিল্ডার নামে পরিচিত) হলেন এমন একজন অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, যিনি পাসের মতো বলের দক্ষতার চেয়ে ট্যাকলের মতো রক্ষণাত্মক ক্ষেত্রে অধিক দক্ষ।[২৯] যখন এখন গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড়ের অধীনে থাকে তখন তারা অন্য অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের চেয়ে দীর্ঘ বা আরও জটিল পাস প্রদানের চেষ্টা করতে পারে। তারা তাদের দলের খেলার লয় স্থির করার চেষ্টা করতে পারে, দখল ধরে রাখতে পারে বা শট আদান-প্রদান করার মাধ্যমে খেলা গঠন তৈরি করতে পারে, বলটি দীর্ঘ পাস প্রদানের মাধ্যমে কোন কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় অথবা পার্শ্বীয় খেলোয়াড়ের কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা করতে পারে অথবা প্রতিপক্ষ দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় এবং মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের মাঝে ফাঁকা স্থানে কোন সতীর্থের কাছে ছোট পাস প্রদান করতে পারে।[২৯][৩০][৩১] ইতালিতে, গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড় একজন "রেগিস্তা" হিসেবে পরিচিত,[৩২] অন্যদিকে ব্রাজিলে এরা "মেইয়া-আরমাদোর" নামে পরিচিত।[৩৩] ইতালিতে, রেগিস্তা ভূমিকাটি ভিত্তোরিও পোজ্জোর মেতোদো পদ্ধতির কেন্দ্রীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড় অথবা সেন্ত্রোমেদিয়ানো মেতোদিস্তা অবস্থান (যা ২–৩–২–৩ বিন্যাসে কেন্দ্রীয় অথবা অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের একটি পূর্ববর্তী রূপ) থেকে বিকশিত হয়েছিল। এর দায়িত্ব সম্পূর্ণরূপে রক্ষণাত্মক ছিল না বরং সৃজনশীল ছিল; যেমনটি মেতোদিস্তার ক্ষেত্রে লক্ষ্য করা যায়, তারা বলের দখল ফিরে পাওয়ার পরে আক্রমণ শুরু করে থাকে।[৩৪]

ব্রিটিশ লেখক জনাথন উইলসন জাবি আলোনসোর অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকাকে একজন "সৃজনশীল খেলোয়াড়" (এমন একজন খেলোয়াড় যিনি অধিকতর পুরানো ধরনের গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড় বা "রেগিস্তা" পদ্ধতিতে বলের দখল বজায় রাখার দায়িত্ব পালন করেন) হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন। তিনি আরও বলেন: "যদিও [আলনসো] ট্যাকল করতে সক্ষম, তিনি বলটি সামনের দিকে এগিয়ে দেওয়ার দিকে মনোনিবেশ করেন, মাঝেমধ্যে আক্রমণ শুরু করার জন্য মাঠের পার্শ্বীয় দিকে দীর্ঘ পাস প্রদান করে থাকেন"।[৭]

কেন্দ্রীয়-অর্ধসম্পাদনা

কেন্দ্রীয় অর্ধের (ইংরেজি: Centre-half; এছাড়াও সেন্টার-হাফ নামে পরিচিত) ঐতিহাসিক অবস্থানটি রক্ষণভাগে প্রতিপক্ষ দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের থেকে অতিরিক্ত সুরক্ষা প্রদান করা জন্য মাঠের মধ্যরেখার পশ্চাৎপদে অবস্থিত; মাঠের মধ্যাংশের রক্ষণাত্মক এই ভূমিকাটি এর উদ্ভবের উত্তরাধিকার হিসেবে এখনো "কেন্দ্রীয়-অর্ধ" হিসেবে পরিচিত।[৩৫] ইতালীয় ফুটবল জারগোনে, এই অবস্থানটি সেন্ত্রোমেদিয়ানো মেতোদিস্তা অথবা শুধুমাত্র মেতোদিস্তা নামে পরিচিত, যদিও এই শব্দটি পরবর্তীতে এমন খেলোয়াড়দের বর্ণনা করতে প্রয়োগ করা হয়েছিল যারা কেন্দ্রীয় অধিষ্ঠিত মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকা পালন করেছে, এদের রক্ষণাত্মক দায়িত্ব থাকার পাশাপাশি সৃজনশীল ভূমিকাও ছিল।[৩৪]

আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

 
গোল করার উদ্দেশ্যে শট নিচ্ছেন লুকা মদরিচ

আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় (ইংরেজি: Attacking midfielder; এছাড়াও অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার নামে পরিচিত) হলেন এমন একজন মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, যিনি সাধারণত মধ্যমাঠ এবং আক্রমণভাগের মধ্যে উন্নত মধ্যমাঠের অবস্থানে থাকেন এবং যার মূল দায়িত্ব হচ্ছে আক্রমণে ভূমিকা রাখা।[৩৬]

কিছু আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়কে ত্রেকুয়ারতিস্তা বা ফান্তাসিস্তি বলা হয় (তিন-চতুর্থাংশ বিশেষজ্ঞ, অর্থাৎ আক্রমণভাগের খেলোয়াড় এবং মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মধ্যে একজন সৃজনশীল খেলোয়াড়), যারা সাধারণত দ্রুত পরিবর্তনশীল, সৃজনশীল এবং অত্যন্ত দক্ষ খেলোয়াড়, তারা বেশ দূরত্ব হতে গোলের জন্য শট করা এবং পাস প্রদানের ক্ষেত্রে চতুর, কুশলী এবং দক্ষতার জন্য পরিচিত। তবে, আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াডগণ সকলেই ত্রেকুয়ারতিস্তাস নন – কিছু আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় খুব লম্বা এবং সহায়ক আক্রমণকারী যারা সংযুক্ত খেলায়, বলটি দখলে রাখে বা গোলের জন্য পাস সরবরাহ করে থাকে, অর্থাৎ একজন মাধ্যমিক আক্রমণভাগের খেলোয়াড়।[৩৭]

মাঠের পাশের অবস্থান অনুসারে, একজন আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় বাম, ডান এবং কেন্দ্রীয় আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকায় বিভক্ত হতে পারে, তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে তারা আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের পেছনে খেলে থাকেন। একজন আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় সৃজনশীল খেলোয়াড় বা দশ নম্বর খেলোয়াড় (এই অবস্থানের সাথে ১০ নম্বর শার্টের সংযোগের কারণে) হিসেবে চিহ্নিত করা যেতে পারে।[৩৮][৩৯] একজন ভাল আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় পাস প্রদানের দক্ষতা, দৃষ্টি, দীর্ঘ শট করার ক্ষমতা এবং ভালো ড্রিবলিং দক্ষতা সম্পন্ন হতে হয়।

আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মধ্যে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, সেস ফ্যাব্রিগাস, মেসুত ওজিল, ডেভিড সিলভা, ওয়েসলি স্নেইডার, সামির নাসরি, লুকা মদরিচ এবং মারিও গোটজে অন্যতম।

অগ্রবর্তী সৃজনশীল খেলোয়াড়সম্পাদনা

এই খেলোয়াড়গণ সাধারণত দলের আক্রমণাত্মক ব্যক্তি হিসেবে কাজ করে এবং এদেরকে কখনও কখনও "গর্তে খেলছে" বলেও ডাকা হয়, যদিও এই শব্দটি গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড়ের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতে পারে। আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ অবস্থান, যেখানে খেলোয়াড়কে পাস প্রদান এবং ড্রিবলিংয়ের ক্ষেত্রে উচ্চতর প্রযুক্তিগত দক্ষতার অধিকারী হওয়ার পাশাপাশি সম্ভবত আরও গুরুত্বপূর্ণভাবে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় জন্য রক্ষণভাগ ছেঁড়া পাস করার ক্ষেত্রে দক্ষ হতে হয়।

এই বিশেষজ্ঞ মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মূল ভূমিকাটি হচ্ছে উচ্চতর দৃষ্টি, নিয়ন্ত্রণ এবং প্রযুক্তিগত দক্ষতা ব্যবহার করে ক্রস তৈরির মাধ্যমে, খেলোয়াড়দের ভেতর দিয়ে পাস প্রদানের মাধ্যমে এবং সতীর্থদের জন্য ভালো হেড অথবা ভাল শটের ব্যবস্থা করার মাধ্যমে গোল করার সুযোগ তৈরি করা। তারা ড্রিবলিংয়ের মাধ্যমে বা সতীর্থের সাথে গিভ-অ্যান্ড-গো-এর মাধ্যমে শটের সুযোগ তৈরি করার চেষ্টইরিকরে থাকে। দলের সতীর্থদের কাছ থেকে পাস গ্রহণের পর আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ প্রতিপক্ষ দলের পেনাল্টি অঞ্চলে প্রবেশ করে গোলপোস্টে গোল করার উদ্দেশ্যে শট করে থাকে।[২]

যে সকল দলে একজন সৃজনশীল আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, অর্থাৎ উন্নত সৃজনশীল খেলোয়াড় নিয়মিতভাবে ব্যবহার করা হয়, সাধারণত তিনি উক্ত দলের দলের তারকা খেলোয়াড় হিসেবে পরিগণিত হয়ে থাকেন এবং প্রায়ই দশ নম্বর শার্টটি পরিধান করে থাকেন। এই হিসেবে, যেকোনো দলের বিন্যাস প্রায়ই এমনভাবে তৈরি করা হয়, যেন তাদের আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় মুক্তভাবে ঘোরাঘুরি করতে এবং পরিস্থিতি বুঝে গোল করার সুযোগ তৈরি করতে পারে। এরকম একটি জনপ্রিয় বিন্যাস হচ্ছে ৪–৪–২ "ডায়মন্ড" (অথবা ৪–১–২–১–২), যেখানে আক্রমণাত্মক এবং রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়গণ কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়কে প্রতিস্থাপন করে থাকে। এটি ইতালিতে "ফান্তাসিস্তা" অথবা "ত্রেকুয়ারতিস্তা" নামে,[৩৭] ব্রাজিলে আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় "মেইয়া আতাকান্তে" নামে[৩৩] এবং আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়েতে "এঙ্গুয়াঞ্চে" নামে পরিচিত।[৪০]

মিথ্যা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়সম্পাদনা

মিথ্যা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের বিবরণ ইতালীয় ফুটবলে এমন একজন খেলোয়াড়ের বর্ণনা করতে ব্যবহার করা হয়েছে, যিনি আপাতদৃষ্টিতে আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে ৪–৩–১–২ বিন্যাসে খেলছেন, তবে শেষ পর্যন্ত মাঠের মধ্যাংশের আরও গভীর গিয়ে প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়দের অবস্থান থেকে দূরে সরিয়ে আক্রমণাত্মকভাবে এগিয়ে গিয়ে সতীর্থদের জন্য গোল তৈরি করার উদ্দেশ্যে শূন্যস্থান তৈরি করেন; মিথ্যা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় শেষ পর্যন্ত একজন কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড়ের ভূমিকায় নিয়োজিত থাকেন এবং গভীরতম সৃজনশীল খেলোয়াড় হিসেবে কাজ করেন। মিথ্যা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় সাধারণত সৃজনশীল এবং কৌশলগতভাবে বুদ্ধিমান খেলোয়াড় হিসেবে ভাল দৃষ্টি, কৌশল, চলাচল, ক্ষণস্থায়ী ক্ষমতা এবং দূরত্ব থেকে গোল করার ক্ষমতা রাখেন। এই কাজে নিয়োজিত খেলোয়াড়কে একজন কঠোর পরিশ্রমী খেলোয়াড় হতে হয়, যিনি খেলাটি ভালো বুঝতে পারে এবং দলকে রক্ষণভাগে সহায়তা প্রদান করতে পারেন।[৪১]

ফলস টেনসম্পাদনা

 
বল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি

"ফলস টেন" অথবা "কেন্দ্রীয় পার্শ্বীয় খেলোয়াড়"[৪২] (ইংরেজি: False 10 অথবা ইংরেজি: Central winger; এছাড়াও মিথ্যা ১০ অথবা কেন্দ্রীয় পার্শ্বীয় খেলোয়াড় হিসেবে পরিচিত) হচ্ছে এমন এক ধরনের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, যারা মিথ্যা আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় থেকে পৃথক। অনেকটা "ফলস নাইন"-এর মতোই তাদের স্পষ্টতাটি এই সত্যে নিহিত যে, যদিও তারা আপাতদৃষ্টিতে কাগজে-কলমে আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে খেলছেন, যদিও তারা ঐতিহ্যবাহী সৃজনশীল খেলোয়াড়ের বিপরীতে আক্রমণভাগের খেলোয়াড়ের পেছনে খেলছেন, ফলস টেনের লক্ষ্য হচ্ছে নিজের অবস্থান থেকে সরে গিয়ে মাঠের পার্শ্ববর্তী অঞ্চল দিয়ে পার্শ্বীয় খেলোয়াড় এবং পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের সহায়তা করা। এর ফলে প্রতিপক্ষ দলের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের জন্য দুটি সমস্যার সৃষ্টি হয়: হয় তারা ফলস টেনকে পার্শ্বদেশে নিয়ে যায়, যেখানে পার্শ্বীয় খেলোয়াড় এবং পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়া উভয়ের উপস্থিতি ৩ জন বনাম ২ জনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়; অথবা তারা ফলস টেনকে অনুসরণ করে, যার ফলে পার্শ্বীয় খেলোয়াড় জন্য বা মধ্যমাঠের খেলোয়াড়দের মাঠের মধ্যাংশ উন্মুক্ত হয়ে যায়। ফলস টেন হচ্ছে সাধারণত ঐতিহ্যবাহী পার্শ্বীয় খেলোয়াড়, যাদের মাঠকে কেন্দ্র করে খেলতে বলা হয় এবং তাদের প্রাকৃতিক খেলার পদ্ধতিটি তাদেরকে আরও প্রশস্ত করে তোলে এবং সতীর্থদের জন্য পেনাল্টি অঞ্চলে বল বিতরণ করা সহজ হয়ে উঠে।

মাঝেমধ্যে, ফলস টেন ৪–৩–৩ অথবা ৪–২–৩–১ বিন্যাসে ছদ্মবেশ হিসেবে সাধারণত একটি ৪–৬–৬ বিন্যাস গথনের মাধমে ফলস নাইন-এর পাশাপাশি আলাদাভাবে কাজ করতে পারে। অন্যান্য আক্রমণভাগের খেলোয়াড় বা ফলস নাইন যখন নিচে নেমে আসে এবং ফলস টেন থেকে প্রতিপক্ষ দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের দূরে সরিয়ে দেওয়ার মাধ্যমে মাঠের মাঝখানে জায়গা তৈরি করে দেয়, তখন ফলস টেন এই স্থানটি কাজে লাগিয়ে নিজের অবস্থানের বাইরে চলে যাওয়ার পরে প্রতিপক্ষ দলের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের অবাক করে দিয়ে প্রায়ই আক্রমণাত্মক ড্রিবলিং করে গোলপোস্টের দিকে এগিয়ে যায়, বা ফলস নাইন থেকে এগিয়ে যায়, যার ফলস্বরূপ তারা গোল করার সুযোগ তৈরি করতে পারে বা নিজেরাই গোল করতে পারে।[৪৩]

ফলস টেন অথবা কেন্দ্রীয় পার্শ্বীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে মাতিউ ভালবুয়েনা,[৪৪] আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা এবং মেসুত ওজিল অন্যতম।[৪৫] এছাড়াও লিওনেল মেসি বার্সেলোনা অথবা আর্জেন্টিনার হয়ে খেলার সময় কখনও অধিকাংশ সময়ে এই অবস্থানে খেলে থাকেন।[৪৬]

পার্শ্বীয় খেলোয়াড়সম্পাদনা

আধুনিক ফুটবলে পার্শ্বীয় খেলোয়াড় অবস্থানটি রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ছাড়া অন্যান্য খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়, যারা মাঠের বাম বা ডান পাশে খেলেন। এই শব্দটি বাম অথবা ডান পাশের মধ্যমাঠের খেলোয়াড়, বাম বা ডান পাশের আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় এবং বাম বা ডান পাশের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে প্রয়োগ ব্যবহৃত হয়ে থাকে।[১২] বাম বা ডান পাশের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় যেমন আক্রমণাত্মক রক্ষণভাগের খেলোয়াড় অথবা পার্শ্বীয় রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের সাধারণত পার্শ্বীয় খেলোয়াড় বলা হয় না।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Positions guide: Central midfield"। London: BBC Sport। ১ সেপ্টেম্বর ২০০৫। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০১৩ 
  2. "Football / Soccer Positions"। Expert Football। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুন ২০০৮ 
  3. Di Salvo, V. (৬ অক্টোবর ২০০৫)। "Performance characteristics according to playing position in elite soccer."। International Journal of Sports Medicine28 (3): 222–7। ডিওআই:10.1055/s-2006-924294পিএমআইডি 17024626 
  4. "Formations guide"BBC। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  5. "Box to box Bowyer"। London: BBC Sport। ২৯ এপ্রিল ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুন ২০০৮ 
  6. Cox, Michael (৪ জুন ২০১৪)। "In praise of the box-to-box midfielder"ESPN FC। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  7. Wilson, Jonathan (১৮ ডিসেম্বর ২০১৩)। "The Question: what does the changing role of holding midfielders tell us?"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  8. Tallarita, Andrea (৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮)। "Just what is a mezzala?"। Football Italia। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০২০ 
  9. "Understanding roles in Football Manager (and real life) (part 2)"। Medium। ২৪ মে ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৫ এপ্রিল ২০২০ 
  10. "English translation of 'mezzala'"। Collins Dictrionary। সংগ্রহের তারিখ ১৫ এপ্রিল ২০২০ 
  11. Walker-Roberts, James (২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮)। "How Antonio Conte got the best from Paul Pogba at Juventus"। Sky Sports। সংগ্রহের তারিখ ১৫ এপ্রিল ২০২০ 
  12. "Wide midfielder"BBC। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৪ 
  13. "Formations guide"। London: BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুলাই ২০১৩ 
  14. Wilson, Jonathan (২৪ মার্চ ২০১০)। "The Question: Why are so many wingers playing on the 'wrong' wings?"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৪ 
  15. Taylor, Daniel (১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১০)। "Milan wrong to play David Beckham in central midfield says Sir Alex Ferguson"The Guardian। England। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুলাই ২০১৩ 
  16. "Genoa: Top 11 All Time" (Italian ভাষায়)। Storie di Calcio। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০২০ 
  17. "tornante"La Repubblica (Italian ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০২০ 
  18. "Old football formations explained - Classic soccer tactics & strategies"Football Bible। n.d.। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৬ 
  19. "Football Glossary, Letter W"। Football Bible। সংগ্রহের তারিখ ১২ আগস্ট ২০১৭ 
  20. Cox, Michael (২০ জানুয়ারি ২০১৩)। "Manchester United nullified Gareth Bale but forgot about Aaron Lennon"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  21. Cox, Michael (১৬ জুলাই ২০১০)। "The final analysis, part three: brilliant Busquets"। zonalmarking.net। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৩ 
  22. Cox, Michael (১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)। "How Manchester United nullified threat of Everton's Marouane Fellaini"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  23. Cox, Michael (৩ মার্চ ২০১০)। "Analysing Brazil's fluid system at close quarters"। zonalmarking.net। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৩ 
  24. Lowe, Sid। "Sergio Busquets: Barcelona's best supporting actor sets the stage"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৩০ অক্টোবর ২০১৪ 
  25. "50 Best Defensive Midfielders in World Football History"। Bleacher Report। ২১ নভেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০২০ 
  26. F., Edward (২৮ জানুয়ারি ২০১৪)। "On Going Beyond Holding Midfielders"Cartilage Free Captain। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৪ 
  27. Cox, Michael (২৯ জানুয়ারি ২০১০)। "Teams of the Decade #11: Valencia 2001-04"। zonalmarking.net। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৩ 
  28. Wilson, Jonathan (২০১৩)। Inverting the Pyramid। Nation Books। আইএসবিএন 9781568589633 
  29. Cox, Michael (১৯ মার্চ ২০১২)। "Paul Scholes, Xavi and Andrea Pirlo revive the deep-lying playmaker"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১ নভেম্বর ২০১৪ 
  30. Goldblatt, David (২০০৯)। The Football Book। Dorling Kindersley। পৃষ্ঠা 48আইএসবিএন 978-1405337380 
  31. Dunmore, Thomas (২০১৩)। Soccer for Dummies। John Wiley & Sons। আইএসবিএন 978-1-118-51066-7 
  32. "The Regista And the Evolution Of The Playmaker"। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০১৫ 
  33. "Playmaker"। MTV। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০১৫ 
  34. Radogna, Fiorenzo (২০ ডিসেম্বর ২০১৮)। "Mezzo secolo senza Vittorio Pozzo, il mitico (e discusso) c.t. che cambiò il calcio italiano: Ritiri e regista"Il Corriere della Sera (Italian ভাষায়)। পৃষ্ঠা 8। সংগ্রহের তারিখ ১৫ এপ্রিল ২০২০ 
  35. Wilson, Jonathan (২০ সেপ্টেম্বর ২০১১)। "The Question: Did Herbert Chapman really invent the W-M formation?"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১২ 
  36. "Positions in football"। talkfootball.co.uk। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুন ২০০৮ 
  37. "The Number 10"। RobertoMancini.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০১৬ 
  38. Wilson, Jonathan (১৮ আগস্ট ২০১০)। "The Question: What is a playmaker's role in the modern game?"TheGuardian.com। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  39. Cox, Michael (২৬ মার্চ ২০১০)। "How the 2000s changed tactics #2: Classic Number 10s struggle"ZonalMarking.net। সংগ্রহের তারিখ ১ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  40. "Tactics: the changing role of the playmaker"। সংগ্রহের তারিখ ৫ জানুয়ারি ২০১৫ 
  41. James Horncastle। "Horncastle: Riccardo Montolivo straddles both sides of the Germany/Italy divide"। The Score। ২১ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ আগস্ট ২০১৪ 
  42. "Introducing…the central winger?"। zonalmarking.net। ৩ ডিসেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৭ আগস্ট ২০১৩ 
  43. "The False-10"। ১১ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১২ 
  44. "Spain 1-1 France: Deschamps' formations witch results in late France dominance"। Zonal Marketing। ১৭ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  45. "Germany 2-1 Holland: German flexibility outwits the static Dutch midfield"। Zonal Marketing। ১৪ জুন ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩ 
  46. "Tactics: The 'false 10' – a clarification"। ২৬ জানুয়ারি ২০১২। ১০ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৩