রবি (কোম্পানি)

বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ কোম্পানি

রবি আজিয়াটা লিমিটেড হচ্ছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান। এতে আজিয়াটা গ্রুপের ৬১.৮২% অংশীদারীত্ব, ভারতী এন্টারপ্রাইজ অফ ইন্ডিয়া ভারতী এয়ারটেলের ২৮.১৮% অংশীদারীত্ব রয়েছে, আর বাকী ১০% অংশীদারত্বের মালিক পুঁজিবাজারের মাধ্যমে রবিতে বিনিয়োগকারীরা।[১] রবি আজিয়াটা লিমিটেড তার নেটওয়ার্কের আওতায় রবি ও এয়ারটেল এই দুইটি নামে টেলিযোগাযোগ পরিসেবা প্রদান করছে।

রবি আজিয়াটা লিমিটেড
ধরনলিমিটেড
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৯৭
সদরদপ্তররবি কর্পোরেট অফিস, দ্য ফোরাম, ১৮৭, ১৮৮/বি বীর উত্তম মীর শওকত সড়ক, তেজগাঁও, ঢাকা, বাংলাদেশ
বাণিজ্য অঞ্চল
বাংলাদেশ
প্রধান ব্যক্তি
ভারত রাজীব শেঠী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা
বাংলাদেশ শিহাব আহমেদ সিসিও
বাংলাদেশ রুহুল আমিন সিএসও
বাংলাদেশ সাহেদ আলম সিসিআরও
বাংলাদেশ মো. ফয়সাল ইমতিয়াজ খান সিএইচআরও
পণ্যসমূহমোবাইল টেলিফোনি, জিপিআরএস, এজ, আন্তর্জাতিক রোমিং
আয়বৃদ্ধি ৭৮.৮১ বিলিয়ন (ইউএস$৮৪০ মিলিয়ন) (২০১৯)
বৃদ্ধি ১৭০ মিলিয়ন (ইউএস$১.৮ মিলিয়ন) (২০১৯)
সদস্যসমূহ৫.১৫৮  কোটি
(মে ২০২১)
মাতৃ-প্রতিষ্ঠানআজিয়াটা গ্রুপ (৬৮.৭%)
ভারতী এয়ারটেল (৩১.৩%)
ওয়েবসাইটwww.robi.com.bd/bn

রবি ও এয়ারটেলের একীভূত হওয়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দুটি মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতার একীভূতকরণের ঘটনা ঘটে।[২] রবি এবং এয়ারটেলের একীভূতকরণের ফলে একীভূত কোম্পানিটি রবি আজিয়াটা লিমিটেড নামে বাংলাদেশে দ্বিতীয় বৃহত্তম মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতা হিসাবে আবির্ভূত হয়। একত্রিত সংস্থাটি দেশব্যাপী নেটওয়ার্ক পরিসেবা প্রদান করছে।

১৯৯৭ সালে টেলিকম মালয়েশিয়া ইন্টারন্যাশনাল (বাংলাদেশ) সংস্থাটি একটেল নামে কার্যক্রম শুরু করে। ২০১০ সালে সংস্থাটি নাম পরিবর্তন করে রবি আজিয়াটা লিমিটেড রাখে এবং রবি পরিবর্তিত নামে যাত্রা শুরু করে। নভেম্বর ২০১৬ সালের পর থেকে রবি আজিয়াটার মুঠোফোন নেটওয়ার্ক এর আওতায় 'রবি' এবং 'এয়ারটেল' নামে পরিসেবা প্রদান করে আসছে।

ইতিহাস সম্পাদনা

একটেল নামে যাত্রা সম্পাদনা

 
একটেলের লোগো

১৯৯৭ সালে টেলিকম মালয়েশিয়া এবং একে খান এবং কোম্পানির যৌথ উদ্যোগ টেলিকম মালয়েশিয়া ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ লিমিটেড 'একটেল' ব্র্যান্ড নাম নিয়ে বাংলাদেশকে কার্যক্রম শুরু করে।[৩] ২০০৮ সালে, এ কে খান এবং কোম্পানি ৩৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের জাপানের এনটিটি ডকোমোতে ৩০% অংশীদারি বিক্রি করে ব্যবসাটি বন্ধ করে দেয়।

রবি নামে পুনঃযাত্রা সম্পাদনা

২৮ শে মার্চ, ২০১০ তারিখে, 'একটেল' কে 'রবি' নামে পুনরায় প্রকাশ করা হয়। এটি মূল কোম্পানী আজিয়াটা গ্রুপের লোগোও গ্রহণ করে ও ২০০৯ সালে ব্যাপক পুনঃব্যান্ডিংয়ের মধ্য দিয়ে যায়।[৪] ২০১৩ সালে ডকোমো তাদের মালিকা ৮ শতাংশে নামিয়ে আনে, ফলে আজিয়াটার মালিকানা বেড়ে ৯২% হয়।

রবি ও এয়ারটেলের একীকরণ সম্পাদনা

২৮ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে, ঘোষণা করা হয়েছিল যে রবি আজিয়াটা এবং এয়ারটেল বাংলাদেশ একত্রিত হবে। সংযুক্ত নেটওয়ার্কটি রবি নামে পরিচিত হবে, যা উভয় নেটওয়ার্কে মিলিত ৪০ মিলিয়ন গ্রাহককে সেবা দেবে। আজিয়াটা গ্রুপের ৬৮.৩ ভাগ শেয়ার হবে, ভারতী গ্রুপের ২৫% শেয়ার হবে। অবশিষ্ট শেয়ার এনটিটি ডকোমো মালিকানাধীন থাকবে। ১৬ নভেম্বর ২০১৬ সালে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড ও রবি আজিয়াটা লিমিটেড একত্রিত হয়।[৫][২][৬][৭] এই একীভূতকরণের ফলে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড আইনগত বিলুপ্ত হয় এবং এয়ারটেল গ্রাহকরা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের অধীনে পরিচালিত হতে শুরু করে। বাংলাদেশে এয়ারটেল গ্রাহকরা রবি আজিয়াটা লিমিটেডের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে থাকে।

নেটওয়ার্ক বিস্তৃতি সম্পাদনা

সারাদেশে ১৬৬০০ টি মোবাইল টাওয়ার রয়েছে রবি এর । রবির মোট গ্রাহকের ৬০.৫% গ্রাহক ৪জি সেবা ব্যাবহার করে ।

আন্তর্জাতিক রোমিং বিস্তৃতি সম্পাদনা

রবি'র রয়েছে বিশ্বের ১৭০টি দেশের ৪০০ মোবাইল ফোন অপারেটরের সাথে রোমিং ব্যবস্থা। এটি বাংলাদেশে প্রথম জিপিআরএস ব্যবস্থা চালু করে। রবি প্রিপেইড ও পোস্টপেইড উভয় ধরনের রোমিং সেবা প্রদান করে ।

গ্রাহক নম্বর সম্পাদনা

রবি গ্রাহকদেরকে নিচের নিয়মে নম্বর প্রদান করে থাকেঃ

+৮৮০১৬
N N N N N N N N
+৮৮০১৮
N N N N N N N N

যেখানে +৮৮০ বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক কোড। (+৮৮০) ১৮ ও ১৬ রবি গ্রাহকদের জন্য সরকারের নির্ধারিত কোড। ৮ ডিজিটের N N N N N N N N হল গ্রাহকের নম্বর।

আওতাধীন ব্র্যান্ড ও প্রতিষ্ঠান সমূহ সম্পাদনা

(১) এক্সেনটেক পিএলসি (ইংরেজি নাম: axentec PLC) হচ্ছে রবির মালিকনাধিন অঙ্গ প্রতিষ্ঠান যারা কর্পোরেট আইটি সেবা ও এন্টারপ্রাইজ প্রোডাক্ট বিক্রি করে যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো:

  • ক্লাউড সেবা
  • ডাটা সেন্টার সেবা
  • কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সেবা
  • সাইবার নিরাপত্তা সেবা
  • ব্লকচেইন সেবা।


(২) এয়ারটেল হচ্ছে রবির আওতাধীন একটি প্রোডাক্ট ব্র্যান্ড। রবি এয়ারটেল কোম্পানি দুটোর একীভূতকরণ এর পর থেকে 'এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড' কোম্পানির গ্রাহকেরা 'রবি আজিয়াটা লিমিটেড' কোম্পানির "এয়ারটেল প্রোডাক্ট " এর গ্রাহক হিসেবে বিবেচিত হবেন। ২০১৬ সালে রবি ও এয়ারটেল একীভুতকরনের পর থেকে এয়ারটেল রবি আজিয়াটা লিমিটেড দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।


রবি এয়ারটেল একীভূতকরণের ফলে এয়ারটেল এর গ্রাহকেরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে রবি নেটওয়ার্কে যুক্ত হন।[৮] রবি ও এয়ারটেল একীভূতকরণের শর্ত ছিলো রবি এয়ারটেল মিলিতভাবে রবি নামে চলবে এবং একীভূত হবার ২ বছরের মধ্যে এয়ারটেল নামটি বিলুপ্ত হবে, রবি ও এয়ারটেল উভয় গ্রাহক রবি নামে পরিচিত হবে। উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগের ক্ষেত্রে </ref> ট্যাগ যোগ করা হয়নি[৯][১০] রবি পরিচালিত ভিডিও স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম এ অশ্লীল ভিডিও প্রচারের অভিযোগ উঠে রবির বিরুধ্যে। ওয়েব সিরিজির নামে সেন্সরবিহীন অশ্লীল ভিডিও সামগ্রী প্রচারের অভিযোগে গ্রামীণফোন ও রবির কাছে ব্যাখা চেয়েছিল তথ্য মন্ত্রণালয়।

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "তথ্য"। ১১ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "রবি-এয়ারটেল হচ্ছে 'রবি'"। প্রথম আলো'। 
  3. "মালিকানা পরিব্তন" 
  4. "রবি+এয়ারটেল"। ১ ডিসেম্বর ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  5. "রবি-এয়ারটেল এখন শুধুই 'রবি'"। ৫ আগস্ট ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ আগস্ট ২০২১ 
  6. "রবি আর এয়ারটেল মিলে রবি'" 
  7. "রবিতে হারাচ্ছে এয়ারটেলের নাম, আনুষ্ঠানিক চুক্তি'"। ৫ আগস্ট ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ আগস্ট ২০২১ 
  8. "ঢাকায় শুরু হচ্ছে রবি-এয়ারটেলের নেটওয়ার্ক সমন্বয়"। ২৬ এপ্রিল ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ এপ্রিল ২০২১ 
  9. "রবির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবেন নজরুলের নাতনি"ঢাকা পোস্ট। ৩০ মে ২০২১। 
  10. "রবির বিরুদ্ধে মামলা করবে নজরুলের পরিবার"দৈনিক ইনকিলাব। ৩০ মে ২০২১। 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা