ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী

হার্জেস্টি সশস্ত্র বাহিনী হিসাবে পরিচিত ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী[nb ১] হল যুক্তরাজ্য এবং এর বৈদেশিক অঞ্চল ও ক্রাউন অধীনস্থ এলাকা রক্ষার জন্য নিয়োজিত সামরিক পরিষেবা। বাহিনীটি যুক্তরাজ্যের বিস্তৃত স্বার্থ প্রচার করে, আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষা প্রচেষ্টাকে সমর্থন করে এবং মানবিক সহায়তা প্রদান করে।[৬]

ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী
MinistryofDefence.svg
ব্যাজ
সার্ভিস শাখা  রাজকীয় নৌবাহিনী

 ব্রিটিশ সেনাবাহিনী
 রাজকীয় বিমানবাহিনী

প্রধান কার্যালয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, লন্ডন
নেতৃত্ব
Head রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথ[১]
Defence Secretary Ben Wallace
প্রতিরক্ষা বাহিনী প্রধান Gen Sir Nicholas Carter
Vice-Chief of the Defence Staff ADM Sir Timothy Fraser
Senior Enlisted Advisor to the Chiefs of Staff CommitteeWO1 Glenn Haughton
লোকবল
সেনাবাহিনীর বয়স পিতামাতার সম্মতিতে ১৭-১৮ বছর, যুদ্ধের জন্য ১৮ বছর
বাধ্যতামূলকভাবে সৈন্যদলে নিয়োগ না
সক্রিয় কর্মিবৃন্দ ১,৫৩,২৯০[২]
সংরক্ষিত কর্মিবৃন্দ ৪৫,৫৯০[৩]
নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মিবৃন্দ ১১,০০০ (৩১ ডিসেম্বর ২০১৮)[৪]
ব্যয়
বাজেট £৪২.২ বিলিয়ন (২০২১) (৫ম)[৫]
শতকরা জিডিপি ২.২% (২০২১)[৫]
উদ্যোগ
স্থানীয় সরবরাহকারী * বিএই ব্যবস্থা
বৈদেশিক সরবরাহকারী * বোয়িং
সম্পর্কিত নিবন্ধ
ইতিহাস যুক্তরাজ্যের সামরিক ইতিহাস
যুক্তরাজ্যের সাথে জড়িত সংঘাতের তালিকা
মর্যাদাক্রম

Joint Service Flag (UK).png
পতাকা

গ্রেট ব্রিটেনের কিংডম ১৭০৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে (পরবর্তীকালে যুক্তরাজ্য দ্বারা সফল হয়),[৭] সামরিক বাহিনী বিশ্বের সাত বছরের যুদ্ধ, আমেরিকান বিপ্লবী যুদ্ধ, নেপলীয় যুদ্ধ, ক্রিমিয়ার যুদ্ধ, প্রথম বিশ্বযুদ্ধ এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ সহ বিশ্বের অনেক বড় বড় শক্তি জড়িত যুদ্ধসমূহে গুরুত্ব পূর্ণ পদক্ষেপ নিতে দেখাগেছে। দ্বন্দ্ব থেকে বারবার উদ্ভূত বিজয়ী ব্রিটেন নিজেকে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় সামরিক ও অর্থনৈতিক শক্তি হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়।[৮] আজ, ব্রিটিশ সামরিক বাহিনী গঠিত: একটি নীল-জল নৌবাহিনী রয়েল নেভি ৭৯ টি কমিশনড জাহাজের একটি বহর ও একটি অত্যন্ত বিশেষায়িত উভচর হালকা পদাতিক বাহিনী রয়্যাল মেরিনস, যুক্তরাজ্যের প্রধান স্থল যুদ্ধবিগ্রহ শাখা ব্রিটিশ সেনাবাহিনী ও বিভিন্ন স্থির ডানা ও ঘূর্ণন বিমান উভয় সমন্বিত বিভিন্ন পরিচালনাগত বহর সহ একটি প্রযুক্তিগতভাবে পরিশীলিত বিমান বাহিনী রয়েল এয়ার ফোর্স নিয়ে গঠিত। ব্রিটিশ সামরিক বাহিনীর মধ্যে স্থায়ী বাহিনী, নিয়মিত সংরক্ষণ, স্বেচ্ছাসেবক সংরক্ষণ ও স্পনসরড সংরক্ষণ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সামরিক বাহিনীর প্রধান হলেন ব্রিটিশ রাজতন্ত্র, বর্তমানে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, যার কাছে বাহিনীর সদস্যরা আনুগত্যের শপথ করেন।[১]

যুক্তরাজ্য পাঁচটি স্বীকৃত পারমাণবিক শক্তির মধ্যে একটি, জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলের স্থায়ী সদস্য, ন্যাটো সামরিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা ও নেতৃত্বাধীন সদস্য এবং পাঁচ শক্তি প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার পক্ষে রয়েছে। বিদেশী গ্যারিসন ও প্রশিক্ষণের সুযোগ-সুবিধাসমূহ অ্যাসেনশন দ্বীপ, বাহরাইন, বেলিজ, বারমুডা, ব্রিটিশ ভারত মহাসাগর অঞ্চল, ব্রুনেই, কানাডা, সাইপ্রাস, ফকল্যান্ড দ্বীপপুঞ্জ, জার্মানি, জিব্রাল্টার, কেনিয়া, মন্টসারেট, নেপাল, কাতার, সিঙ্গাপুরমার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রক্ষণাবেক্ষণ করা হচ্ছে।[৯]

টীকাসম্পাদনা

  1. Also referred to as the Armed Forces of the United Kingdom.

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The Queen and the Armed Forces"www.royal.uk। ৯ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৩...The Queen is Head of the Armed Forces... 
  2. https://assets.publishing.service.gov.uk/government/uploads/system/uploads/attachment_data/file/964030/1_January_2021_SPS.pdf
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; quarterly personnel report নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "Where Are The Armed Forces Deployed This Festive Season?"। ২১ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  5. Tian, Nan; Fleurant, Aude; Kuimova, Alexandra; Wezeman, Pieter D.; Wezeman, Siemon T. (২৭ এপ্রিল ২০২০)। "Trends in World Military Expenditure, 2019" (PDF)Stockholm International Peace Research Institute। সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০২০ 
  6. The Mission of the Armed Forces ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২ ফেব্রুয়ারি ২০০৭ তারিখে, armedforces.co.uk
  7. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; Union1707 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  8. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; Johnston নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  9. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; europarl নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি