বারবারা স্ট্যানউইক

মার্কিন অভিনেত্রী

বারবারা স্ট্যানউইক (ইংরেজি: Barbara Stanwyck; জন্ম: রুবি ক্যাথরিন স্টিভেন্স; ১৬ জুলাই ১৯০৭ - ২০ জানুয়ারি ১৯৯০)[১] ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী, মডেল ও নৃত্যশিল্পী। ১৯২০-এর দশকে স্বল্পকালব্যাপী কিন্তু সমাদৃত মঞ্চ কর্মজীবনের পর তিনি ৩৮ বছরে হলিউডের ৮৫টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন এবং পরে টেলিভিশনে অভিনয় করেন। ষাট বছরের কর্মজীবনে তিনি তার শক্তিশালী অভিনয় ও পর্দা উপস্থিতি দিয়ে জনপ্রিয় চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন তারকা হয়ে ওঠেন। তিনি সেসিল বি. ডামিল, ফ্রিৎস লাং, ও ফ্রাঙ্ক ক্যাপ্রাদের মত পরিচালকদের প্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন।

বারবারা স্ট্যানউইক
Barbara Stanwyck
Barbara Stanwyck-publicity.jpg
স্টুডিওর প্রচারণামূলক চিত্রে স্ট্যানউইক
জন্ম
রুবি ক্যাথরিন স্টিভেন্স

(১৯০৭-০৭-১৬)১৬ জুলাই ১৯০৭
মৃত্যুজানুয়ারি ২০, ১৯৯০(1990-01-20) (বয়স ৮২)
সান্তা মনিকা, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পেশা
  • অভিনেত্রী
  • মডেল
  • নৃত্যশিল্পী
কর্মজীবন১৯২২-১৯৮৬
দাম্পত্য সঙ্গী
সন্তান

মাত্র চার বছর বয়সে পিতামাতার মৃত্যুর পর তিনি ও তার ভাই তাদের বড় বোনের আশ্রয়ে লালিত পালিত হন। ১৯৪৪ সালের মধ্যে স্ট্যানউইক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক গ্রহীতা নারী হয়ে ওঠেন। তিনি স্টেলা ডালাস (১৯৩৭), বল অব ফায়ার (১৯৪১), ডাবল ইনডেমনিটি (১৯৪৪), ও সরি, রং নাম্বার (১৯৪৮) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে চারবার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। টেলিভিশনে কাজের জন্য তিনি তিনটি এমি পুরস্কার অর্জন করেন। তার এমি বিজয়ী কাজগুলো হল দ্য বারবারা স্ট্যানউইক শো (১৯৬১), দ্য বিগ ভ্যালি (১৯৬৬) ও দ্য থর্ন বার্ডস (১৯৮৩)। শেষোক্ত কাজের জন্য তিনি একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারও লাভ করেন।

স্ট্যানউইক ১৯৮২ সালের একাডেমি পুরস্কার আয়োজনে সম্মানসূচক অস্কার এবং ১৯৮৬ সালের গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার আয়োজনে সেসিল বি. ডামিল পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া তিনি কয়েকটি সংগঠন থেকে আজীবন সম্মাননা পুরস্কার লাভ করেন, যার মধ্যে রয়েছে স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড, লস অ্যাঞ্জেলেস ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন (১৯৮১), ফিল্ম সোসাইটি অব লিংকন সেন্টার (১৯৮৬) এবং আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট (১৯৮৭)। ১৯৬০ সালে হলিউড ওয়াক অব ফেমে তার নামাঙ্কিত তারকা খচিত হয়। ১৯৯৯ সালে আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউটের করা ধ্রুপদী মার্কিন চলচ্চিত্রের সেরা নারী তারকা তালিকায় তিনি ১১তম স্থান অধিকার করেন।[২]

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

বারবারা স্ট্যানউইক ১৯০৭ সালের ১৬ই জুলাই নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের ব্রুকলিনে জন্মগ্রহণ করেন। তার প্রকৃত নাম রুবি ক্যাথরিন স্টিভেন্স। তার মাতা ক্যাথরিন অ্যান (বিবাহপূর্ব ম্যাকফি) (১৮৭০-১৯১১) এবং পিতা বায়রন ই. স্টিভেন্স (১৮৭২-১৯১৯)। রুবি তার পিতামাতার পঞ্চম ও সর্বকনিষ্ঠ সন্তান। তার পিতা ইংরেজ বংশোদ্ভূত এবং তিনি ম্যাসাচুসেট্‌সের লেনসভিলের অধিবাসী ছিলেন। তার মাতা স্কটিশ বংশোদ্ভূত এবং তিনি নোভা স্কটিয়ার সিডনি থেকে আগত অভিবাসী ছিলেন।[৩][৪][৫] রুবির যখন চার বছর বয়স তখন এক মদ্যপ ব্যক্তির গাড়ির আঘাতে তার মায়ের গর্ভপাতজনিত জটিলতায় মৃত্যু হয়।[৬] তার মায়ের শেষকৃত্যের দুই সপ্তাহ পরে তার পিতা পানামা খাল খননদলের সাথে যোগ দেন এবং এরপর আর তাকে দেখা যায়নি।[৭] রুবি ও তার বড় ভাই ম্যালকম বায়রন স্টিভেন্সকে তার বড় বোন লরা মিলড্রেড (পরবর্তীকালে মিলড্রেড স্মিথ) লালনপালন করেন, মিলড্রেড ৪৫ বছর বয়সে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।[৭][৮] মিলড্রেড যখন শোগার্লের কাজ করতে যেতেন, তখন রুবি ও বায়রনকে তাদের আত্মীয়দের বাড়িতে রেখে যেতেন, রুবি সেখান থেকে প্রায়ই পালিয়ে যেতেন।[৯]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Barbara Stanwyck"বায়োগ্রাফি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৮ 
  2. "AFI's 100 Years...100 Stars"আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৮ 
  3. ক্যালাহান ২০১২, পৃষ্ঠা ৫-৬।
  4. "Ruby Catherine Stevens "Barbara Stanwyck"রুটসওয়েব। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০২০ 
  5. ম্যাডসেন ১৯৯৪, পৃষ্ঠা ৮।
  6. ক্যালাহান ২০১২, পৃষ্ঠা ৬।
  7. ম্যাডসেন ১৯৯৪, পৃষ্ঠা ৯।
  8. Mildred G. Smith: New York, New York City Municipal Deaths, May 7, 1931
  9. নাসুর ও স্নোবার্জার ২০০০

বহিঃসংযোগসম্পাদনা