প্রবেশদ্বার:মেক্সিকো

মেক্সিকোতে চিচেন ইৎজা যোদ্ধাদের মন্দির
মেক্সিকোতে চিচেন ইৎজা যোদ্ধাদের মন্দির
মেক্সিকোর জাতীয় পতাকা
পতাকা
মেক্সিকোর জাতীয় মর্যাদাবাহী নকশা
জাতীয় মর্যাদাবাহী নকশা
মেক্সিকোর অবস্থান
অবস্থানউত্তর আমেরিকার দক্ষিণ অংশ

মেক্সিকান যুক্তরাষ্ট্র, (Estados Unidos Mexicanos (উচ্চারণ)), মেহিকো বা সাধারণ নামে মেক্সিকো (ইংরেজি: /ˈmɛksɪkoʊ/) (Es-mx-México.ogg [ˈmexiko]) উত্তর আমেরিকার একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় সাংবিধানিক প্রজাতন্ত্র। এই দেশের উত্তর সীমান্তে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র; দক্ষিণ ও পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর; দক্ষিণ-পূর্বে গুয়াতেমালা, বেলিজক্যারিবিয়ান সাগর এবং পূর্বে মেক্সিকো উপসাগর অবস্থিত। প্রায় দুই মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত মেক্সিকো আয়তনের বিচারে দুই আমেরিকার পঞ্চম বৃহত্তম রাষ্ট্র তথা বিশ্বের চতুর্দশ বৃহত্তম স্বাধীন রাষ্ট্র। দেশের জনসংখ্যা প্রায় ১০৯ মিলিয়ন; জনসংখ্যার বিচারে মেক্সিকো বিশ্বের একাদশ জনবহুল রাষ্ট্র। মেক্সিকো যুক্তরাষ্ট্র একত্রিশটি রাজ্যরাজধানী শহর একটি যুক্তরাষ্ট্রীয় জেলা নিয়ে গঠিত।

প্রাককলম্বিয়ান মধ্য আমেরিকায় ইউরোপীয়দের আগমনের পূর্বেই ওলমেক, তোলতেক, তিওতিহুয়াকান, মায়াআজটেক সভ্যতার মতো একাধিক উন্নত সভ্যতা বিকাশলাভ করেছিল। ১৫২১ সালে স্পেন নিউ স্পেন প্রতিষ্ঠা করে। এই দেশটিই পরে মেক্সিকো উপনিবেশে পরিণত হয়। ১৮২১ সালে এক স্বাধীনতা যুদ্ধের মাধ্যমে মেক্সিকো স্বাধীনতা অর্জন করে। মেক্সিকোর স্বাধীনতা-উত্তর পর্যায় ছিল অর্থনৈতিক অস্থিরতা, অঞ্চল হস্তচ্যুত হওয়া, গৃহযুদ্ধ এবং বৈদেশিক হস্তক্ষেপ, দুটি সাম্রাজ্যদুটি দীর্ঘ অভ্যন্তরীণ একনায়কতন্ত্রের ইতিহাস। সর্বশেষ একনায়কতান্ত্রিক শাসনের শেষে ১৯১০ সালে সংঘটিত হয় মেক্সিকান বিপ্লব। এই বিপ্লবের ফলস্রুতি ১৯১৭ সালের সংবিধান এবং দেশের বর্তমান রাজনৈতিক ব্যবস্থার উত্থান। ২০০০ সালের জুলাই মাসের সাধারণ নির্বাচনে প্রথম বার প্রাতিষ্ঠানিক বিপ্লবী দলের (স্পেনীয়: Partido Revolucionario Institucional পার্তিদ়ো রেভ়োলুসিওনারিও ইন্‌স্তিতুসিওনাল্‌ বা PRI পে, এরে, ই,) হাত থেকে রাষ্ট্রপতির পদ ছিনিয়ে নেয় কোনো বিরোধী দল। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

{{{১}}}

This is a Featured article, which represents some of the best content on English Wikipedia.

রাডার টপোগ্রাফিতে খাদের ১৮০ কিমি বলয় ধরা পড়েছে। খাদের চূড়াগুরো ঘিরে রয়েছে প্রচুর সিংকহোল যা এখানে একটি প্রাগৈতিহাসিক মহাসাগরীয় অববাহিকার অস্তিত্বের প্রস্তাব করে। (চিত্র: নাসা/জেপিএল-ক্যালটেক)
চিকশুলুব খাদ (আ-ধ্ব-ব: [tʃikʃuˈlub]) ইউকাটান উপদ্বীপে মাটির নিচে চাপা পড়ে থাকা একটি প্রাচীন অভিঘাত খাদ। এর কেন্দ্র মেক্সিকোর ইউকাটান অঞ্চলের চিকশুলুবে অবস্থিত। প্রায় ১৮০ কিমি (১১০ মাইল) ব্যাসবিশিষ্ট এই জ্বালামুখটি পৃথিবীতে এ পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে আবিষ্কৃত বৃহত্তম সংঘর্ষ কাঠামোগুলোর একটি। যে গ্রহাণু বা ধূমকেতুর আঘাতে এটি তৈরি হয়েছিল তার ব্যাস ছিল অন্তত ১০ কিমি (৬ মাইল)। জ্বালামুখটির নাম রাখা হয়েছে পার্শ্ববর্তী শহরের নামানুসারে। অবশ্য মায়ান ভাষায় এই শব্দের অর্থ "শয়তানের লেজ"। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)
{{{১}}}

{{{১}}}

মেক্সিকো সিটি (স্পেনীয়: Ciudad de México, স্থানীয়ভাবে: [sjuˈða(ð) ðe ˈmexiko] (শুনুন); সংক্ষিপ্তরুপে CDMX; Nahuatl: Āltepētl Mēxihco নাওয়াতল উচ্চারণ: [aːl'tepeːt͡ɬ meːˈʃiʔko]) মেক্সিকোর রাজধানী ও সবচেয়ে বৃহত্তম শহর। এটি উত্তর আমেরিকার জনবহুল শহরগুলোর মধ্যে একটি। এটি আমেরিকা মহাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক ও অর্থনৈতিক কেন্দ্রগুলোর মধ্যে একটি। এটি মেক্সিকো উপত্যকায় (ভ্যালে দে মেক্সিকো) অবস্থিত, যা মধ্য মেক্সিকোর সবচেয়ে উচ্চ মালভূমির একটি বৃহত উপত্যকা। এর উচ্চতা ২২৪০ মিটার বা ৭৩৫০ ফুট। মেক্সিকো সিটি ১৬টি বোরোতে বিভক্ত।

২০০৯ সালের তথ্য অনুযায়ী শহরে ৮.৮৪ মিলিয়ন জনসংখ্যা ছিল এবং আয়তন ছিল ১৪৮৫ বর্গকিলোমিটার বা ৫৭৩ বর্গমাইল। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)
{{{১}}}
Mexico_regions_map
Mexico_regions_map
মেক্সিকোর রাজনৈতিক মানচিত্র
ছবির কৃতিত্ব: পিটার ফিটজেরাল্ড

{{{১}}}

This is a Good article, an article that meets a core set of high editorial standards.

{{{১}}}

{{{১}}}

কাহলো ১৯৩২ সালে। তার বাবা গুইলারমো কাহলোর তোলা আলোকচিত্র

ফ্রিদা কাহলো ডি রিভেরা (স্পেনীয়: Frida Kahlo de Rivera, স্পেনীয় উচ্চারণ: [ˈfɾiða ˈkalo]; জুলাই ৬, ১৯০৭ – জুলাই ১৩, ১৯৫৪), জন্ম নাম: মাগদালেনা কারমেন ফ্রিদা কাহলো ই ক্যালদেরোন, ছিলেন একজন মেক্সিকীয় চিত্রশিল্পী, যিনি তার আত্ম-প্রতিকৃতি ঘরণার চিত্রের জন্য আলোচিত। কাহলোর জীবন অতিবাহিত হয় মেক্সিকো শহরে, তার বাড়িতে, যেটি "লা কাসা আজুল" বা নীল ঘর নামে পরিচিত। তার কাজ আন্তর্জাতিকভাবে বিখ্যাত মেক্সিকোর জাতীয় ও দেশীয় ঐতিহ্যের প্রতীকস্বরূপ, এবং নারীবাদীদের কাছে তার চিত্রকর্ম খ্যাতি পেয়েছে নারীর অভিজ্ঞতা ও রুপের আপোষহীন প্রকাশের জন্য। ফ্রিদা কাহলোর কাজে মেক্সিকোর সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য বেশ গুরুত্ব পেয়েছে, যার কারণে তার চিত্রকর্ম কখনো কখনো অর্বাচীন শিল্প বা লোকশিল্প হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তার কাজকে পরাবাস্তবাদ এর অন্তর্গতও করা হয়েছে, এবং ১৯৩৮ সালে পরাবাস্তববাদী আন্দোলনের প্রধান আঁদ্রে ব্রেটন, ফ্রিদার কাজকে "রিবন অ্যারাউন্ড এ বোম্ব" আখ্যা দিয়েছিলেন। ফ্রিদা, ব্রেটন এর দেওয়া পরাবাস্তববাদী আখ্যা অস্বীকার করেন, কেননা তার মতে, তার চিত্রকর্মে পরাবাস্তব এর চেয়ে তার বাস্তব অবস্থার প্রতিফলনই প্রবল।

ফ্রিদা কাহলো তার স্বদেশী বিখ্যাত চিত্রকর দিয়েগো রিভেরা’র সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন, তাদের সম্পর্ক অস্থিতিশীল ছিল। ফ্রিদা আজীবন বিভিন্ন স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা ভুগেছেন, যার বেশিভাগই তার শৈশবের এক সড়ক দুর্ঘটনায় হয়েছিলো। তার অসুস্থতার কারণে সে প্রায়ই অন্যান্যদের থেকে দূরে একাকী থাকতেন এবং এটি তার কাজে বেশ প্রভাব ফেলে। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)
{{{১}}}

{{{১}}}

{{{১}}}

The following are images from various Mexico-related articles on Wikipedia.

লুয়া ত্রুটি: No content found on page "Culture of Mexico"।

Category puzzle
Category puzzle
উপপাতা দেখতে [►] চাপুন
{{{১}}}

টেমপ্লেট:Mexican diaspora

টেমপ্লেট:Languages of Mexico টেমপ্লেট:Years in Mexico

{{{১}}}

{{{১}}}