প্রধান মেনু খুলুন

চাগাতাই ভাষা(جغتای জাগাতাই[২]) একটি বিলুপ্ত তুর্কীয় ভাষা যা একসময় মধ্য এশিয়াতে ব্যাপকভাবে প্রচলিত ছিল। ভাষাটি বিংশ শতাব্দীর শুরু পর্যন্তও অঞ্চলটির একটি অন্যতম সাহিত্যিক ভাষা ছিল। চাগাতাই উজবেকউইগুর ভাষার পূর্বসূরী।[৩] মির আলী-শির নওয়াই চাগাতাই সাহিত্যের সর্বশ্রেষ্ঠ প্রতিনিধি ছিলেন।[৪] এছাড়া ভারতবর্ষের মুঘল সম্রাটেরাও এই ভাষাতে কথা বলতেন।

চাগাতাই
جغتای জাগাতাই
অঞ্চলমধ্য এশিয়া, খোরাসান
বিলুপ্ত১৯৯০-এর দশক
সরকারি অবস্থা
সরকারি ভাষা
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-২chg
আইএসও ৬৩৯-৩chg
ভাষাবিদ তালিকা
chg
গ্লোটোলগchag1247[১]
পারসিক-আরবি লিপিতে চাগাতাই ভাষাতে লেখা মোঘল সম্রাট বাবরের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ বাবরনামা-র পাণ্ডুলিপির একটি পৃষ্ঠা

১৯২৪ সালে উজবেক সোভিয়েত প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠার প্রস্তুতির অংশ হিসাবে, চাগাতাই আনুষ্ঠানিকভাবে "আদি উজবেক" নামে অভিহিত হয়।[৩][৫][৬][৭][৮] মার্কিন ঐতিহাসিক এডওয়ার্ড অ্যালওয়ার্থ যুক্তি দেন যে এই ঘটনাটি এই অঞ্চলের সাহিত্যের ইতিহাসকে অত্যন্ত বিকৃত করেছে, এবং আলী-শির নওয়াইয়ের মত লেখকদের উজবেক পরিচয় দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল।[৯][১০] এটি "তুর্কি" বা "সার্ত" নামেও পরিচিত ছিল।[৮] চীনে এই ভাষাটিক কখনও কখনও "প্রাচীন উইগুর" বলা হয়।[১১]

নামকরণসম্পাদনা

চাগাতাই শব্দটি চাগাতাই খানাতের সাথে সম্পর্কিত। চেঙ্গিজ খানের দ্বিতীয় পুত্র চাগাতাই খান মঙ্গোল সাম্রাজ্যের যে অংশটি উত্তরাধিকার সূত্রে লাভ করেন, তার নাম ছিল চাগাতাই খানাত।[১২] অনেক চাগাতাই তুর্কিতাতার জাতের লোক দাবী করে তারা চাগাতাই খানের বংশধর; তারা চাগাতাই ভাষায় কথা বলত।

ইতিহাসসম্পাদনা

চাগাতাই ভাষা তুর্কীয় ভাষাসমূহের উইগুর শাখার অন্তর্গত। এটি মধ্য এশিয়ার সর্বত্র সার্বজনীন ভাষা হিসেবে প্রচলিত প্রাচীন উইগুর ভাষার একটি বিবর্তিত রূপ। ভাষাটিতে আরবিফার্সি শব্দ ও বাক্যবিন্যাসের ব্যাপক প্রভাব লক্ষ্য করা যায়। মূলত একটি পরিশীলিত লিখিত, সাহিত্যিক ভাষা হিসেবে চাগাতাই ভাষাটি উদ্ভাবন করা হয়েছিল। ভাষাটি পারসিক-আরবি লিপিতে লেখা হত।

চাগাতাই ভাষার ইতিহাসকে তিনটি পর্বে ভাগ করা যায়:

  1. প্রাক-ধ্রুপদী চাগাতাই (১৪০০-১৪৬৫)
  2. ধ্রুপদী চাগাতাই (১৪৬৫-১৬০০)
  3. ধ্রুপদী-উত্তর চাগাতাই (১৬০০-১৯২১)

প্রথম পর্বটি মূলত একটি রূপান্তরশীল পর্ব, যাতে ভাষার প্রাচীন রূপগুলি সংরক্ষিত আছে। মির আলিশের নাভই-র প্রথম দিভান প্রকাশিত হবার মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্বের সূচনা ঘটে; গ্রন্থটি চাগাতাই সাহিত্যের একটি অন্যতম নিদর্শন। চাগাতাই ভাষার বিবর্তনের ৩য় পর্বটি দ্বিমুখী। এসময় চাগাতাই সাহিত্যের একটি ধারায় কবি নাভই-র ধ্রুপদী চাগাতাই ভাষা যেমন রক্ষা করা হয়, অন্য একটি ধারায় স্থানীয় কথ্যভাষার প্রভাব ক্রমেই অধিকতর দৃশ্যমান হতে শুরু করে।

তিমুরীয় সাম্রাজ্য, তথা তৈমুর লং ও তার বংশধরদের শাসনামল, ছিল চাগাতাই ভাষার স্বর্ণযুগ। বিংশ শতাব্দীর শুরুতে সোভিয়েত সংস্কারের আগ পর্যন্ত চাগাতাই গোটা মধ্য এশিয়ার সার্বজনীন সাহিত্যিক ভাষা ছিল।

পরবর্তী তুর্কীয় ভাষাসমূহের উপর প্রভাবসম্পাদনা

আধুনিক ভাষাগুলির মধ্যে উজবেকউইগুর ভাষা চাগাতাই ভাষার সাথে সবচেয়ে বেশি সম্পর্কিত। উজবেক ভাষাভাষীরা চাগাতাই তাদের ভাষার উৎস হিসেবে গণ্য করে এবং চাগাতাই সাহিত্যকে উজবেক সাহিত্যের অংশ হিসেবে দাবী করে। উজবেকিস্তানে ১৯২১ সালে চাগাতাই ভাষার বদলে একটি স্থানীয় উজবেক উপভাষাতে সাহিত্য রচনা শুরু হয়। এছাড়া ১২শ শতকের বেরেনদেক নামের এক যাযাবর তুর্কি জাতি যে ভাষায় কথা বলত, তা শেষ পর্যন্ত চাগাতাই ভাষা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।

এথনোলগ আফগানিস্তানের ভাষাসমূহের বর্ণনায় তুর্কমেন ভাষার তেক্কে উপভাষাটিকে “চাগাতাই” হিসেবে বর্ণনা করেছে। ১৮শ শতক পর্যন্ত চাগাতাই কেবল তুর্কমেনিস্তান নয়, সমগ্র মধ্য এশিয়াতেই সাহিত্যিক ভাষা হিসেবে প্রচলিত ছিল। তুর্কমেন ভাষার উপর চাগাতাই ভাষার কিছু প্রভাব পড়লেও আদতে এই দুইটি তুর্কি ভাষাপরিবারের দুইটি ভিন্ন শাখার অন্তর্গত।

সাহিত্যসম্পাদনা

চাগাতাই ভাষার সবচেয়ে বিখ্যাত কবি হলেন মির আলি-শির নাভই। তাঁঁর মুহাকামাত আল-লোগাতাইন-এ তিনি চাগাতাই এবং পারসিক ভাষাগুলির মধ্যে বিস্তৃত তুলনামূলক আলোচনা করেছেন এবং সাহিত্যের ভাষা হিসাবে চাগাতাই ভাষার শ্রেষ্ঠত্বের পক্ষে যুক্তি দিয়েছেন। তিনি এত বিখ্যাত যে চাগাতাই ভাষাকে অনেক সময় “নাভইয়ের ভাষা”-ও বলা হয়। চাগাতাই ভাষাতে লেখা গদ্যসাহিত্যের মধ্যে তৈমুর লঙের জীবনী এবং মুঘল সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা সম্রাট বাবরের আত্মজীবনী বাবরনামা উল্লেখযোগ্য।

বিংশ শতাব্দীর গোড়ার দিক অবধি চাগাতাই ভাষাতে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলি চলতে থাকে। এর মধ্য অন্যতম হলো শিনচিয়াঙের দুংগান বা হুই সংখ্যালঘু বিদ্রোহ সম্বন্ধে লিখিত শ্রেষ্ঠ নমুনা, মুসা সায়রামির তারিখ-ই আমিয়া (১৯০৩) এবং এর সংশোধিত সংস্করণ তারিখ-ই হামিদি (১৯০৮)।[১৩][১৪]

স্থানীয় এবং পশ্চিমা লেখকদের দ্বারা চাগাতাই ভাষা সম্বন্ধে লেখা পুস্তকগুলি নিম্নরূপ:[১৫]

  • মুহম্মদ মাহদি খান, সংলখ
  • আবেল পাভে দ্য কুরতেই, দিকসিওনেয়া তুর্ক-অরিয়েঁঁতাল (১৮৭০)
  • আর্মিন ভাম্বেরি (১৮৩২-১৯১৩), চাগাতাইশ শপ্রাখস্টুডিয়েন, এনহাল্টেন্ড গ্রামাটিকালিশেন উম্রিস, ক্রেস্টোমাথি, উন্ড ওয়র্টরবুখ ডের চাগাতাইশেন শপ্রাখে (১৮৬৭)
  • শেইখ সুলেইমান এফেন্দি, চাগাতাই-ওস্মানিশেস ওয়র্টরবুখ: ভেরকুর্টজে উন্ড মিট ডয়েশের উবেসেটজুং ভেরসেহেনে আউসগাবে (১৯০২)
  • শেইখ সুলেইমান এফেন্দি, লুঘাত-ই চাগাতাই ভে তুর্কিয়ি ওথমানি [১৬]
  • আবেল পাভে দ্য কুরতেই, Mirâdj-nâmeh : récit de l'ascension de Mahomet au ciel, composé a.h. 840 (1436/1437), texte turk-oriental, publié pour la première fois d'après le manuscript ouïgour de la Bibliothèque nationale et traduit en français, avec une préf. analytique et historique, des notes, et des extraits du Makhzeni Mir Haïder.[১৭]

ছিং রাজবংশ পঞ্চভাষী অভিধানের মত চীনের প্রধান ভাষাগুলির বিভিন্ন অভিধান লেখার কাজে নিয়োজিত হয়। এই ভাষাগুলির একটি হলো চাগাতাই তুর্কি।

বর্তমানে চাগাতাই সাহিত্য তুর্কি ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে পরিগণিত হয় এবং আধুনিক তুরস্ক রাষ্ট্রে চাগাতাই সাহিত্য নিয়ে আজও গবেষণা করা হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. হ্যামারস্ট্রোম, হারাল্ড; ফোরকেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যাথ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৭)। "Chagatai"গ্লোটোলগ ৩.০ (ইংরেজি ভাষায়)। জেনা, জার্মানি: মানব ইতিহাস বিজ্ঞানের জন্য ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 
  2. উজবেক: Chigʻatoy چەغەتاي‎; মঙ্গোলীয়: ᠲᠰᠠᠭᠠᠳᠠᠢ Chagadai; উইগুর ভাষায়: چاغاتايChaghatay; তুর্কী: Çağatayca
  3. L.A. Grenoble (১১ এপ্রিল ২০০৬)। Language Policy in the Soviet Union। Springer Science & Business Media। পৃষ্ঠা 149–। আইএসবিএন 978-0-306-48083-6 
  4. Robert McHenry, সম্পাদক (১৯৯৩)। "Navā'ī, (Mir) 'Alī Shīr"। এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা (ইংরেজি ভাষায়)। (১৫শ সংস্করণ)। শিকাগো: Encyclopædia Britannica, Inc। পৃষ্ঠা ৫৬৩। 
  5. Schiffman, Harold (২০১১)। Language Policy and Language Conflict in Afghanistan and Its Neighbors: The Changing Politics of Language Choice। Brill Academic। পৃষ্ঠা 178–179। আইএসবিএন 978-9004201453 
  6. Scott Newton (২০ নভেম্বর ২০১৪)। Law and the Making of the Soviet World: The Red Demiurge। Routledge। পৃষ্ঠা 232–। আইএসবিএন 978-1-317-92978-9 
  7. Andrew Dalby (১৯৯৮)। Dictionary of Languages: The Definitive Reference to More Than 400 Languages। Columbia University Press। পৃষ্ঠা 665–। আইএসবিএন 978-0-231-11568-1 
  8. Paul Bergne (২৯ জুন ২০০৭)। Birth of Tajikistan: National Identity and the Origins of the Republic। I.B.Tauris। পৃষ্ঠা 24, 137। আইএসবিএন 978-0-85771-091-8 
  9. Allworth, Edward A. (১৯৯০)। The Modern Uzbeks: From the Fourteenth Century to the Present: A Cultural History। Hoover Institution Press। পৃষ্ঠা 229–230। আইএসবিএন 978-0817987329 
  10. Aramco World Magazine। Arabian American Oil Company। ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 27। 
  11. Pengyuan Liu; Qi Su (১২ ডিসেম্বর ২০১৩)। Chinese Lexical Semantics: 14th Workshop, CLSW 2013, Zhengzhou, China, May 10-12, 2013. Revised Selected Papers। Springer। পৃষ্ঠা 448–। আইএসবিএন 978-3-642-45185-0 
  12. Vladimir Babak; Demian Vaisman; Aryeh Wasserman (২৩ নভেম্বর ২০০৪)। Political Organization in Central Asia and Azerbijan: Sources and Documents। Routledge। পৃষ্ঠা 343–। আইএসবিএন 978-1-135-77681-7 
  13. МОЛЛА МУСА САЙРАМИ: ТА'РИХ-И АМНИЙА (Mulla Musa Sayrami's Tarikh-i amniyya: Preface)], in: "Материалы по истории казахских ханств XV–XVIII веков (Извлечения из персидских и тюркских сочинений)" (Materials for the history of the Kazakh Khanates of the 15–18th cc. (Extracts from Persian and Turkic literary works)), আলমাটি, Nauka Publishers, 1969. (রুশ)
  14. কিম, হো ডুং (২০০৪)। Holy war in China: the Muslim rebellion and state in Chinese Central Asia, 1864–1877। Stanford University Press। পৃষ্ঠা xvi। আইএসবিএন 0-8047-4884-5 
  15. Bosworth 2001, pp. 299-300.
  16. "Mabaniul Lughat: Yani Sarf o Nahv e Lughat e Chughatai - Mirza Muhammad Mehdi Khan Astarabadi (Farsi)" – Internet Archive-এর মাধ্যমে। 
  17. Haïder, Mir; Pavet de Courteille, Abel (১ জানুয়ারি ১৯৭৫)। "Mirâdj-nâmeh : récit de l'ascension de Mahomet au ciel, composé a.h. 840 (1436/1437), texte turk-oriental, publié pour la première fois d'après le manuscript ouïgour de la Bibliothèque nationale et traduit en français, avec une préf. analytique et historique, des notes, et des extraits du Makhzeni Mir Haïder"। Amsterdam : Philo Press – Internet Archive-এর মাধ্যমে। 

গ্রন্থপঞ্জিসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা