খান বাহাদুর আবিদুর রেজা চৌধুরী

খান বাহাদুর আবিদুর রেজা চৌধুরী (১৮৭২ - ১৬ জানুয়ারি ১৯৬১) ছিলেন পূর্ব পাকিস্তানের একজন রাজনীতিবিদ ও সমাজকর্মী। নিজ এলাকার উন্নয়নে তার ব্যাপক অবদান রয়েছে। তার উদ্যোগে অনেক স্কুল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপিত হয়েছিল।[১]


আবিদুর রেজা চৌধুরী
ChowdhuryAbidurReza.jpg
জন্ম১৮৭২
মৃত্যু১৬ জানুয়ারি ১৯৬১
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত
পরিচিতির কারণজেলা বোর্ডের চেয়ারম্যান,
বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য
রাজনৈতিক দলমুসলিম লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীচিরকুমার
পুরস্কারখান বাহাদুর (১৯৩০),
তমগায়ে খিদমত (১৯৫৪)

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

আবিদুর রেজা চৌধুরী ১৮৭২ সালে বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির বর্তমান চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। দুর্বল স্বাস্থ্যজনিত কারণে তিনি শৈশবে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা লাভ করতে পারেননি। তিনি পরিবারে শিক্ষালাভ করেন এবং গভীর জ্ঞানের অধিকারী ছিলেন।[১]

রাজনীতিসম্পাদনা

১৯২০ সালে চাঁদপুর স্থানীয় বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার মাধ্যমে তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। ১৯৩০ সালে তিনি তৎকালীন ত্রিপুরা (বর্তমান কুমিল্লা) জেলা বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত তিনি পরপর কয়েকবার চেয়ারম্যান হয়েছিলেন। ১৯৫৮ সালের ১৬ মে কুমিল্লায় তার চেয়ারম্যান পদে দায়িত্বপালনের রজতজয়ন্তী উৎসব পালিত হয়েছিল। দীর্ঘদিন তিনি নিখিল বঙ্গ জেলা বোর্ড চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ছিলেন।[১]

১৯০৬ সালে নিখিল ভারত মুসলিম লীগ প্রতিষ্ঠার সময় তিনি ঢাকার নবাব বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন প্রাদেশিক মুসলিম লীগ ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন। ১৯৩৫ থেকে ১৯৫৮ সাল পর্যন্ত তিনি কুমিল্লা জেলা মুসলিম লীগের সভাপতি ছিলেন। তিনি ১৯৩৭ ও ১৯৪৬ সালে দলের প্রার্থী হিসেবে বঙ্গীয় আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৩৭ সালে মুহাম্মদ আলি জিন্নাহর বাংলা সফরের সময় আবিদুর রেজা চৌধুরীর নেতৃত্বে চল্লিশ হাজার লোক তাকে কুমিল্লায় অভ্যর্থনা জানায়। জিন্নাহ বলেছিলেন যে তার বাংলা সফরে এটি সবচেয়ে বড় সংবর্ধনা সভা।[১]

সম্মাননাসম্পাদনা

১৯৩০ সালে ব্রিটিশ সরকার তাকে খান বাহাদুর খেতাব প্রদান করেন। মুসলিমদের প্রতি সরকারের আচরণের প্রতিবাদ হিসেবে ১৯৪৬ সালে তিনি এই খেতাব ত্যাগ করেন। ১৯৫৪ সালে পাকিস্তান সরকার তাকে তমগায়ে খিদমত খেতাব দেয়।[১]

মৃত্যুসম্পাদনা

খান বাহাদুর আবিদুর রেজা চৌধুরী ১৯৬১ সালের ১৬ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন।[১][২]

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা