উত্তম গুহ

বাংলাদেশী শিল্প নির্দেশক এবং মঞ্চ অভিনেতা

উত্তম গুহ (জন্ম: ৩০ সেপ্টেম্বর) হলেন একজন বাংলাদেশী শিল্প নির্দেশক এবং মঞ্চ অভিনেতা। তিনি ৭ বার বাংলাদেশ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক হিসেবে পুরস্কার জিতে নেন।[১]

উত্তম গুহ
জন্ম৩০ সেপ্টেম্বর
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাশিল্প নির্দেশক
দাম্পত্য সঙ্গীচিত্রলেখা গুহ

কর্মজীবনসম্পাদনা

তিনি অভিনেতা হিসেবে শুরু করেন। কুমিল্লায় জনান্তিক নাট্যসম্প্রদায়ের মধ্য দিয়ে অভিনয়ে তার সম্পৃক্ততা হয়। এরপর চট্টগ্রামের অঙ্গন থিয়েটার ইউনিটে এবং ১৯৮৮ সালে মমতাজ উদ্দীন থিয়েটারের হয়ে একাধিক মঞ্চ নাটকে অভিনয় করেন। একই সাথে তিনি শিল্প নির্দেশকেরও কাজ করতেন। মোস্তফা ওয়ালিদ পরিচালিত প্রতিঘাত চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে উত্তম গুহ প্রথম চলচ্চিতে অভিনয় করেন।[২]

১৯৯৫ সালে শেখ নিয়ামত আলী পরিচালিত অন্য জীবন চলচ্চিত্রে শিল্পী নির্দেশক হিসেবে কাজ করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন ও শিল্প নির্দেশক হিসেবে খ্যাতি পান।

মঞ্চসম্পাদনা

  • শেষরক্ষা
  • ভুবনের ঘাটে
  • ফুলরানী আমি তিয়া
  • অন্য গাজীর অন্য কিচ্ছা

চলচ্চিত্রসম্পাদনা

পুরস্কারসম্পাদনা

তিনি ১৯৯৫ সালে শেখ নিয়ামত আলী পরিচালিত অন্য জীবন চলচ্চিত্রে শিল্পী নির্দেশক হিসেবে কাজ করে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এরপর ১৯৯৯ সালে তানভীর মোকাম্মেলের নির্দেশনায় চিত্রা নদীর পাড়ে, ২০০২ সালে চাষী নজরুল ইসলামের নির্দেশনায় হাছন রাজা, ২০০৪ সালের তানভীর মোকাম্মেলের লালন, ২০১৩ সালে গাজী রাকায়েতের নির্দেশনায় মৃত্তিকা মায়া ও ২০১৫ সালে শঙ্খচিল চলচ্চিত্রে শিল্প নির্দেশক হিসেবে কাজ করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। এছাড়া তিনি চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির পুরস্কার, চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতির পুরস্কার, জয়নুল আবেদীন পুরস্কারসহ অনেক পুরস্কার পেয়েছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্তদের নামের তালিকা (১৯৭৫-২০১২)"বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৯ 
  2. "উত্তম গুহ"প্রিয়.কম। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেজে উত্তম গুহ (ইংরেজি)