আসাদুজ্জামান খান

মন্ত্রী এবং রাজনীতিবিদ

আসাদুজ্জামান খান (১৯১৬–২১ জানুয়ারি ১৯৯২) একজন বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ এবং সাবেক মন্ত্রী ছিলেন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সাবেক সভাপতি। ১৯৭৯ সাল থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত তিনি আওয়ামীলীগ এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।[১]

আসাদুজ্জামান খান
আসাদুজ্জামান খান.jpg
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি
কাজের মেয়াদ
১৯৭৯ – ১৯৮১
পূর্বসূরীআবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামারুজ্জামান
উত্তরসূরীশেখ হাসিনা
ময়মনসিংহ-১৮ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৯ – ২৪ মার্চ ১৯৮২
পূর্বসূরীমোস্তফা এম এ মতিন
উত্তরসূরীআসন বিলুপ্ত
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯১৬
কিশোরগঞ্জ
মৃত্যু২১ জানুয়ারি ১৯৯২
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামীলীগ
শিক্ষাঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবিদ

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

আসাদুজ্জামান খান ১৯১৬ সালে কিশোরগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগ থেকে এমএ এবং ইতিহাসে ডিগ্রী সম্পন্ন করেন।[২]

কর্ম জীবনসম্পাদনা

১৯৪১ সালে, আসাদুজ্জামান খান বেঙ্গল সিভিল সার্ভিস, বিচার বিভাগীয় শাখাতে যোগদান করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগ থেকে এম.এ ডিগ্রি অর্জন করেন এবং হাইকোর্টের আইনজীবী ছিলেন। ১৯৬৫ সালে তিনি পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদে নির্বাচিত হন। ১৯৬৭ সালে তিনি বিরোধী দলের নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং ১৯৬৯ সালে আওয়ামী লীগ এ যোগ দেন। তিনি শেখ মুজিবুর রহমান এর মন্ত্রিসভায় পাটমন্ত্রী ছিলেন। ১৯৭৫ সালে খন্দকার মোস্তাক আহমদ এর মন্ত্রিসভায় বন্দর, নৌবাহিনী এবং অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন মন্ত্রী। ১৯৭৯ সালে তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন এবং বিরোধী দলের নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[৩]

মৃত্যুসম্পাদনা

আসাদুজ্জামান, ১৯৯২ সালের ২১ জানুয়ারি ঢাকায় মারা যান।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. দিগন্ত, Daily Nayadiganta-নয়া। "স্মরণ : আসাদুজ্জামান খান"Daily Nayadiganta (নয়া দিগন্ত) : Most Popular Bangla Newspaper। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৩ 
  2. "খান, আসাদুজ্জামান"বাংলাপিডিয়া। বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। সংগ্রহের তারিখ ২ অক্টোবর ২০১৭ 
  3. "স্বাধীনতার পর এই প্রথম 'মন্ত্রিশূন্য' কিশোরগঞ্জ"Jugantor (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৩-২৩