আমার প্রাণের প্রিয়া

২০০৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র

আমার প্রাণের প্রিয়া হল একটি ঢালিউড বাংলা ছবি যেটি ২০০৯ সালের ২০ সেপ্টেম্বর পবিত্র ঈদুল ফিত্‌র-এ মুক্তি পায়। ছবিটি ব্যাপক সাফল্য অর্জন করে এবং এর প্রায় সবগুলো গান খুবই জনপ্রিয়তা লাভ করে। পাশাপাশি নৃত্যপরিকল্পনা ছিল অসাধারণ। এটি একটি রোমাঞ্চকর হাসির ছবি, পরিচালনা করেছেন "জাকির হোসেন রাজু"। ছবিটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন, সুপারষ্টার শাকিব খান, এবং লাক্স চ্যানেল আই তারকা মিম। সহকারী চরিত্রে রয়েছেন, মিশা সওদাগার, কাবিলা, নাসরিন সহ আরও অনেকে।[১]

আমার প্রাণের প্রিয়া
আমার প্রাণের প্রিয়া.jpg
অফিসিয়াল পোস্টার
পরিচালকজাকির হোসেন রাজু
প্রযোজকতাপসী ঠাকুর
রচয়িতাজাকির হোসেন রাজু
শ্রেষ্ঠাংশেশাকিব খান
মিম
খালেদা আক্তার কল্পনা
প্রবীর মিত্র
মিশা সওদাগর
কাবিলা
নাসরিন
সুরকারহৃদয় খান
আলী আকরাম শুভ
প্রযোজনা
কোম্পানি
বিএফডিসি
মুক্তি
  • ২০ সেপ্টেম্বর ২০০৯ (2009-09-20)
দৈর্ঘ্য১৬০ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা
নির্মাণব্যয় ৮০,০০,০০০

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

প্রেম চৌধুরী (শাকিব খান) সবসময় মানুষের সাহায্য করে থাকেন, বিশেষ করে ভালবাসার ক্ষেত্রে। এজন্য তাকে সবাই 'লাভ গুরু' বলে ডাকেন। কিন্তু তিনি কোনো মেয়েকে ভালবাসেননি। হঠাৎ একদিন প্রিয়াঙ্কা (মিম) এর সাথে তার দেখা হয় এবং তার প্রেমে পড়ে যায়। প্রথমদিকে প্রিয়াঙ্কা তার প্রেমের প্রস্তাবে রাজী হননি। কারণ প্রেম ছিলেন বড় ব্যবসায়ীর একমাত্র পুত্র। যখন শাকিব তার ভালবাসার জন্য যথেষ্ট প্রমাণ দেন, তখন মীম তাকে গ্রহণ করেন। যখন তাদের ভালবাসা এগিয়ে যাচ্ছিল তখন প্রিয়াঙ্কার ভাই প্যাকেট বাবলু (মিশা সওদাগর) তাদের মধ্যে বাধা হয়ে দাড়ায়। একদিন প্রিয়াঙ্কার মাকে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রেম মেরে ফেলেন। এটা ছিল নিছক একটি দুর্ঘটনা কিন্তু বাবলু প্রমাণ করতে চাইলেন যে প্রেম এটি ইচ্ছাকৃতভাবে করেছেন।

এরপর প্রিয়াঙ্কা প্রেম চৌধুরীকে ভুল বুঝে এবং প্রতিশোধ নেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু একদিন মিম জানতে পারে যে প্রেমের কোন দোষ নেই এবং তার ভাই তাদের ভালবাসার জন্য বিরোধী হয়ে কাজ করেছেন। তারপর প্রেমকে মোবাইলে যোগাযোগ করে তাদের বাড়িতে আসতে বলে। সর্বশেষে প্রেম প্রিয়াঙ্কা রক্ষা করে এবং তার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবন্ধ হন।

শ্রেষ্ঠাংশেসম্পাদনা

সাউন্ডট্র্যাকসম্পাদনা

আমার প্রাণের প্রিয়া
 
হৃদয় খান
আলী আকরাম শুভ
কর্তৃক সাউন্ডট্র্যাক অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ২০০৯
ঘরানাফিল্ম সাউন্ডট্রাক
প্রযোজকতাপসী ঠাকুর

অমার প্রাণের প্রিয়া সিনেমার এর সঙ্গীতায়ন করেছেন, হৃদয় খান, তিশমা এবং আলী আকরাম শুভ

গানের তালিকাসম্পাদনা

নং.শিরোনামশিল্পীদৈর্ঘ্য
১."আমার প্রাণের প্রিয়া"অ্যান্ড্রু কিশোর এবং বেবী নাজনীন 
২."কি যাদু করেছ"অ্যান্ড্রু কিশোর এবং রুমানা ইসলাম কনক চাপা 
৩."চাদের মেয়ে জোসনা আমি"তিশমা 
৪."আমার একলা জীবন"হৃদয় খান 
৫."চাইনা মেয়ে তুমি"হৃদয় খান 
৬."আই লাভ ইউ"এস আই টুটুল 

পুরস্কারসম্পাদনা

মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার (২০০৯)সম্পাদনা

  • মনোনীত: সেরা অভিনেতা শাকিব খান
  • মনোনীত: সেরা অভিনেত্রী মিম
  • মনোনীত: সেরা শিল্পী হৃদয় খান চাইনা মেয়ে তুমি

ইউরো-সিজেএফবি পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০০৯সম্পাদনা

  • বিজয়ী: সেরা ছবি - আমার প্রাণের প্রিয়া[২]
  • বিজয়ী: সেরা অভিনেতা - শাকিব খান[৩]

ফিল্ম এ্যাওয়ার্ড বাঙ্গলা (এফএবি ২০১০)সম্পাদনা

আরও পরিচিত "এপার বাংলা এবং ওপার বাংলা" ছবির পুরস্কার

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (২০০৯)সম্পাদনা

  • বিজয়ী সেরা নৃত্য পরিকল্পনাকার - তানজিল

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৮ 
  2. "Uro-CJFB Performance Award 2009 announced" The film “Amar Praner Priya” was awarded as the best film for the year. Retrieved Monday, August 2, 2010
  3. "Uro-CJFB Performance Award 2009 announced" Shakib Khan and Opu Biswas received top awards for acting in film category. Retrieved Monday, August 2, 2010
  4. "Bengali filmstars to dazzle Bangkok" The two Bengals will unite at the Film Awards Bangla (FAB 2010) in Bangkok. Retrieved Jun 08th, 2010

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা