অনিল কুম্বলে

ভারতীয় ক্রিকেটার

অনিল রাধাকৃষ্ণ কুম্বলে (কন্নড়: ಅನಿಲ್ ಕುಂಬ್ಳೆ; এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম ১৭ অক্টোবর ১৯৭০) একজন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট কোচ এবং ধারাভাষ্যকার যিনি ১৮ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে তার জাতীয় দলের হয়ে টেস্ট এবং একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা লেগ স্পিন বোলারদের একজন হিসাবে বিবেচিত, তিনি টেস্ট ক্রিকেটে ৬১৯ উইকেট নিয়েছিলেন এবং ২০২১ সাল পর্যন্ত সর্বকালের চতুর্থ সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী। ১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলার সময়, কুম্বলে দশজন ব্যাটসম্যানকে আউট করেছিলেন। টেস্ট ম্যাচের ইনিংসে ইংল্যান্ডের জিম লেকারের সঙ্গে যোগ দিয়ে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে তিনি এই কীর্তি গড়েছেন। [১][২][৩] তার সমসাময়িকদের থেকে ভিন্ন, কুম্বলে বলের বড় টার্নার ছিলেন না, তবে তিনি মূলত গতি, বাউন্স এবং নির্ভুলতার উপর নির্ভর করতেন। তার ডাকনাম ছিল "অ্যাপল" [৪] এবং "জাম্বো"। [৫] কুম্বলে ১৯৯৩ সালে ভারতীয় ক্রিকেটে বর্ষসেরা ক্রিকেটার এবং তিন বছর পর উইজডেন ক্রিকেটারদের একজন নির্বাচিত হন।

অনিল কুম্বলে
Anil Kumble.jpg
অনিল কুম্বলে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅনিল কুম্বলে
জন্ম (1970-10-17) ১৭ অক্টোবর ১৯৭০ (বয়স ৫১)
বেঙ্গালুরু, কর্ণাটক, ভারত
ডাকনামজাম্বু
উচ্চতা৬ ফুট ২ ইঞ্চি (১.৮৮ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডান হাতি
বোলিংয়ের ধরনডান হাতি লেগব্রেক
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৯২)
৯ আগস্ট ১৯৯০ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২৯ অক্টোবর ২০০৮ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৭৮)
২৫ এপ্রিল ১৯৯০ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই১৯ মার্চ ২০০৭ বনাম বারমুডা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৯/৯০ – ২০০৮/০৯কর্ণাটক
২০০৬সারে
২০০০লিসেস্টারসেয়ার
১৯৯৫নর্থামশায়ার
২০০৮–২০১০রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টৈস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৩২ ২৭১ ২৪৪ ৩৮০
রানের সংখ্যা ২,৫০৬ ৯৩৮ ৫,৫৭২ ১,৪৫৬
ব্যাটিং গড় ১৭.৭৭ ১০.৫৪ ২১.৬৮ ১১.২০
১০০/৫০ ১/৫ ০/০ ৭/১৭ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১১০* ২৬ ১৫৪* ৩০*
বল করেছে ৪০,৮৫০ ১৪,৪৯৬ ৬৬,৯৩১ ২০,২৪৭
উইকেট ৬১৯ ৩৩৭ ১,১৩৬ ৫১৪
বোলিং গড় ২৯.৬৫ ৩০.৮৯ ২৫.৮৩ ২৭.৫৮
ইনিংসে ৫ উইকেট ৩৫ ৭২
ম্যাচে ১০ উইকেট N/A ১৯ N/A
সেরা বোলিং ১০/৭৪ ৬/১২ ১০/৭৪ ৬/১২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬০/– ৮৫/– ১২০/– ১২২/–
উৎস: ইএসপিএন ক্রিকইনফো, ৮ নভেম্বর ২০০৮

কর্ণাটকের ব্যাঙ্গালোরে জন্মগ্রহণকারী কুম্বলে ক্রিকেটের প্রতি প্রাথমিক আগ্রহ তৈরি করেছিলেন কারণ তিনি একজন পূর্ণাঙ্গ ক্রিকেটার হওয়ার আগে বি এস চন্দ্রশেখরের মতো খেলোয়াড়দের দেখে বড় হয়েছিলেন। কর্ণাটকের প্রতিনিধিত্ব করার সময় ১৯ বছর বয়সে তার প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল। শীঘ্রই তাকে ১৯৯০ সালে অস্ট্রেলিয়া-এশিয়া কাপের জন্য নেওয়া হয় এবং সেই বছরের শেষের দিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক হয়। তারপর থেকে তিনি ১৩২ টিরও বেশি টেস্ট ম্যাচে ভারতীয় টেস্ট দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন এবং ভারতের অনেক জয়ের জন্য দায়ী ছিলেন। কুম্বলে ১৯৯০-এর দশকের গোড়ার দিকে নিয়মিত ওডিআই দলে যুক্ত হয়েছিলেন এবং এই সময়ে কিছু সেরা পারফরম্যান্স করেছিলেন; যার মধ্যে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১২ রানে ছয় উইকেট। ১৯৯৬ সালটি তার জন্য অত্যন্ত সফল প্রমাণিত হয়েছিল কারণ তিনি বিশ্বকাপের জন্য নির্বাচিত হন এবং টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সফল বোলার হিসাবে আবির্ভূত হন; তিনি সাতটি ম্যাচ খেলে ১৮.৭৩ গড়ে ১৫ উইকেট লাভ করেছিলেন।

কুম্বলেকে ২০০৫ সালে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান পদ্মশ্রী দেওয়া হয়। ১৮ বছর খেলার পর, তিনি নভেম্বর ২০০৮-এ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন। অক্টোবর ২০১২-এ, কুম্বলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)-এর চেয়ারম্যান নিযুক্ত হন। [৬]

২০১২ এবং ২০১৫ এর মধ্যে, কুম্বলে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দলের প্রধান পরামর্শদাতার পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। তিনি ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন প্রধান কোচও ছিলেন। ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে, তিনি চতুর্থ ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে আইসিসি হল অফ ফেমে অন্তর্ভুক্ত হন। কুম্বলে বর্তমানে পাঞ্জাব কিংসের প্রধান কোচ এবং ক্রিকেট অপারেশন পরিচালক। [৭]

রেকর্ডসম্পাদনা

বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ টেস্ট উইকেট শিকারী। এক ইনিংসে ১০ টি উইকেট নেয়ার রেকর্ড ও আছে তার নামে।

টেস্টসম্পাদনা

ম্যাচে ভারতীয়দের মধ্যে সর্বাধিকবার ১০ বা তার বেশি উইকেট নেবার রেকর্ড রয়েছে তার নামে। ৮ বার এই কীর্তি রয়েছে তার নামে। [৮]

১০ বা তার বেশি উইকেট
সাল বিপক্ষ মাঠ ম্যাচের ফল
১৯৯৪   শ্রীলঙ্কা কে ডি সিং বাবু স্টেডিয়াম, লখনউ ভারত ইনিংস এবং ১১৯ রানের ব্যবধানে জিতেছে
১৯৯৯   পাকিস্তান অরুন জেটলি স্টেডিয়াম ২১২ রানে জিতেছে ভারত
১৯৯৯   নিউজিল্যান্ড গ্রিন পার্ক স্টেডিয়াম ভারত ৮ উইকেটে জিতেছে
২০০১   ইংল্যান্ড সরদার প্যাটেল স্টেডিয়াম ম্যাচ ড্র
২০০৪   অস্ট্রেলিয়া সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ড ম্যাচ ড্র
২০০৪   অস্ট্রেলিয়া এম. এ. চিদাম্বরম স্টেডিয়াম ম্যাচ ড্র
২০০৫   পাকিস্তান ইডেন গার্ডেন্স ভারত ১৯৫ রানে জিতেছে
২০০৫   শ্রীলঙ্কা অরুন জেটলি স্টেডিয়াম ভারত ১৮৮ রানে জিতেছে

ফিরোজ শাহ কোটলা মাঠ এ অবসরসম্পাদনা

২০০৮ সালে এই মাঠে কুম্বলে ক্রিকেট জীবনে অবসর নেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Lal, Kuldip (৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৯)। "Kumble takes all 10 wickets as India rout Pakistan"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০১২ 
  2. Ayanjit Sen (২ ডিসেম্বর ২০০৪)। "Kumble reaps reward for commitment"BBC। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০০৭ 
  3. Garg, Chitra (২০১০)। Indian Champions Profiles of Famous Indian Sportspersons। Rajpal & Sons। পৃষ্ঠা 128। আইএসবিএন 978-81-7028-852-7 
  4. "Career Choices That Make Anil Kumble The Best Man to Coach India"Bloomberg Quint। ১৪ জুন ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-১২ 
  5. "Anil Kumble reveals how he got his nickname 'Jumbo'"deccanchronicle.com। ১২ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০১-০৩ 
  6. "Kumble to be chairman of ICC Cricket Committee"। Wisden India। ১০ অক্টোবর ২০১২। ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১২ 
  7. "Kings XI Punjab hand over coaching reins to Anil Kumble"The Times of India। ১১ অক্টোবর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৪ অক্টোবর ২০১৯ 
  8. "Records" 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

পূর্বসূরী
Rahul Dravid
Indian National Test Cricket Captain
2007
উত্তরসূরী
MS Dhoni
পূর্বসূরী
Mohammad Azharuddin
Indian Awardees of Wisden Cricketer of the Year
1991
উত্তরসূরী
Sachin Tendulkar