১৯৯৮–৯৯ বুন্দেসলিগা

১৯৯৮–৯৯ বুন্দেসলিগা জার্মানির পেশাদার ফুটবল লীগের শীর্ষ স্তর বুন্দেসলিগার ৩৬তম মৌসুম ছিল। এই মৌসুমটি ১৯৯৮ সালের ১৪ই আগস্ট তারিখে শুরু হয়ে ১৯৯৯ সালের ২৯শে মে তারিখে সম্পন্ন হয়েছিল।[১][২] ডুসবুর্গের জার্মান আক্রমণভাগের খেলোয়াড় উভে স্পিস এই মৌসুমের প্রথম গোল করেছিলেন।[৩]

বুন্দেসলিগা
মৌসুম১৯৯৮–৯৯
তারিখ১৪ আগস্ট ১৯৯৮ – ২৯ মে ১৯৯৯
চ্যাম্পিয়নবায়ার্ন মিউনিখ
১৪তম বুন্দেসলিগা শিরোপা
১৫তম জার্মান শিরোপা
অবনমননুর্নবার্গ
বোখুম
বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ
চ্যাম্পিয়নস লীগবায়ার্ন মিউনিখ
বায়ার লেভারকুজেন
হের্টা
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড
উয়েফা কাপকাইজারস্লাউটার্ন
ভলফসবুর্গ
ভেয়ার্ডার ব্রেমেন
ইন্টারটোটো কাপহামবুর্গার
ডুসবুর্গ
মোট খেলা৩০৬
মোট গোলসংখ্যা৮৬৬ (ম্যাচ প্রতি ২.৮৩টি)
শীর্ষ গোলদাতাজার্মানি মাইকেল প্রিৎস (২৩টি গোল)
সবচেয়ে বড় হোম জয়ভলফসবুর্গ ৭–১ বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ (৭ নভেম্বর ১৯৯৮)
সবচেয়ে বড় অ্যাওয়ে জয়বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ২–৮ লেভারকুজেন (৩০ অক্টোবর ১৯৯৮)
সর্বোচ্চ স্কোরিংবরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ২–৮ লেভারকুজেন (৩০ অক্টোবর ১৯৯৮)

কাইজারস্লাউটার্ন বুন্দেসলিগার পূর্ববর্তী আসরের চ্যাম্পিয়ন, যারা ১৯৯৭–৯৮ মৌসুমে ৬৮ পয়েন্ট অর্জন করে এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসে ২য় বারের মতো শিরোপা জয়লাভ করেছিল।

এই মৌসুমে ৭৮ পয়েন্ট অর্জন করে বায়ার্ন মিউনিখ ১৪তম বারের মতো বুন্দেসলিগা এবং ১৫তম বারের মতো জার্মান শিরোপা জয়লাভ করেছিল। হের্টার জার্মান আক্রমণভাগের খেলোয়াড় মাইকেল প্রিৎস ২৩ গোল করে এই মৌসুমের শীর্ষ গোলদাতার পুরস্কার জয়লাভ করেছিলেন।

প্রতিযোগিতার ধরনসম্পাদনা

প্রতিটি ক্লাব একে অপরের বিরুদ্ধে দুইটি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল; একটি নিজেদের মাঠে এবং অপরটি প্রতিপক্ষ দলের মাঠে। ক্লাবগুলো প্রতিটি জয়ের জন্য তিন পয়েন্ট এবং ড্রয়ের জন্য এক পয়েন্ট করে অর্জন করেছিল। যদি দুই বা ততোধিক ক্লাব সমান পয়েন্ট অর্জন করে থাকে, তবে গোল পার্থক্যের মাধ্যমে পয়েন্ট তালিকায় তাদের অবস্থান নির্ধারণ করা হয়েছিল। সর্বাধিক পয়েন্ট অর্জনকারী ক্লাবটি চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শিরোপা জয়লাভ করেছিল এবং সর্বনিম্ন পয়েন্ট অর্জনকারী তিনটি ক্লাব ২. বুন্দেসলিগায় অবনমিত হয়েছিল।

দলসম্পাদনা

১৯৯৭–৯৮ মৌসুম শেষে কার্লস্রুহার, কলন এবং আরমিনিয়া বিলেফেল্ড মৌসুমে সর্বনিম্ন পয়েন্ট অর্জন করে পয়েন্ট তালিকার সর্বনিম্ন অবস্থানে থাকা দুই ক্লাব হিসেবে বুন্দেসলিগা হতে সরাসরি অবনমিত হয়েছিল। অন্যদিকে, তাদের বদলে আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট, ফ্রাইবুর্গ এবং নুর্নবার্গ বুন্দেসলিগায় উন্নীত হয়েছিল। পূর্ববর্তী মৌসুমের মতো এই মৌসুমেও ১৮টি ক্লাব প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল।

ক্লাব অবস্থান মাঠ[৪] ধারণক্ষমতা[৪]
হের্টা বার্লিন বার্লিন অলিম্পিক স্টেডিয়াম ৭৬,০০০
বোখুম বোখুম রুর স্টেডিয়াম ৩৬,৩৪৪
ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ব্রেমেন ভেজার স্টেডিয়াম ৩৬,০০০
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ডর্টমুন্ড ভেস্টফালেন স্টেডিয়াম ৬৮,৬০০
ডুসবুর্গ ডুসবুর্গ ভেডাউস্টাডিওন ৩০,১২৮
আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ফ্রাঙ্কফুর্ট ভাল্ডস্টাডিওন ৬২,০০০
ফ্রাইবুর্গ ফ্রাইবুর্গ ইম ব্রাইসগাউ ড্রাইসাম স্টেডিয়াম ২২,৫০০
হামবুর্গার হামবুর্গ ফক্সপার্কস্টাডিওন ৬২,০০০
কাইজারস্লাউটার্ন কাইজারস্লাউটার্ন ফ্রিৎস ভাল্টার স্টেডিয়াম ৩৮,৫০০
বায়ার লেভারকুজেন লেভারকুজেন বেএরিনা ২২,৫০০
বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ মনশেনগ্লাডবাখ বোকেলবার্গস্টাডিওন ৩৪,৫০০
১৮৬০ মিউনিখ মিউনিখ মিউনিখ অলিম্পিক স্টেডিয়াম ৬৩,০০০
বায়ার্ন মিউনিখ মিউনিখ বার্লিন অলিম্পিক স্টেডিয়াম ৬৩,০০০
নুর্নবার্গ নুরেমবার্গ ফ্রাঙ্কেন স্টেডিয়াম ৪৪,৭০০
হান্সা রস্টক রস্টক অস্টসি স্টেডিয়াম ২৫,৮৫০
শালকে গেলজেনকির্খেন পার্ক স্টেডিয়াম ৭০,০০০
স্টুটগার্ট স্টুটগার্ট গটলিয়েব ডাইমলার স্টেডিয়াম ৫৩,৭০০
ভলফসবুর্গ ভলফসবুর্গ ভিএফএল স্টেডিয়াম আম এলস্টারভেগ ২১,৬০০

পয়েন্ট তালিকাসম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন বা অবনমন
বায়ার্ন মিউনিখ (C) ৩৪ ২৪ ৭৬ ২৮ +৪৮ ৭৮ চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম পর্বে উত্তীর্ণ
বায়ার লেভারকুজেন ৩৪ ১৭ ১২ ৬১ ৩০ +৩১ ৬৩
হের্টা ৩৪ ১৮ ৫৯ ৩২ +২৭ ৬২ চ্যাম্পিয়নস লীগের তৃতীয় বাছাইপর্বে উত্তীর্ণ
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ৩৪ ১৬ ৪৮ ৩৪ +১৪ ৫৭
কাইজারস্লাউটার্ন ৩৪ ১৭ ১১ ৫১ ৪৭ +৪ ৫৭ উয়েফা কাপের প্রথম পর্বে উত্তীর্ণ
ভলফসবুর্গ ৩৪ ১৫ ১০ ৫৪ ৪৯ +৫ ৫৫
হামবুর্গার ৩৪ ১৩ ১১ ১০ ৪৭ ৪৬ +১ ৫০ ইন্টারটোটো কাপের তৃতীয় পর্বে উত্তীর্ণ
ডুসবুর্গ ৩৪ ১৩ ১০ ১১ ৪৮ ৪৫ +৩ ৪৯ ইন্টারটোটো কাপের দ্বিতীয় পর্বে উত্তীর্ণ
১৮৬০ মিউনিখ ৩৪ ১১ ১৫ ৪৯ ৫৬ −৭ ৪১
১০ শালকে ৩৪ ১০ ১১ ১৩ ৪১ ৫৪ −১৩ ৪১
১১ স্টুটগার্ট ৩৪ ১২ ১৩ ৪১ ৪৮ −৭ ৩৯
১২ ফ্রাইবুর্গ ৩৪ ১০ ১৫ ৩৬ ৪৪ −৮ ৩৯
১৩ ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ৩৪ ১০ ১৬ ৪১ ৪৭ −৬ ৩৮ উয়েফা কাপের প্রথম পর্বে উত্তীর্ণ[ক]
১৪ হান্সা রস্টক ৩৪ ১১ ১৪ ৪৯ ৫৮ −৯ ৩৮
১৫ আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ৩৪ ১০ ১৫ ৪৪ ৫৪ −১০ ৩৭
১৬ নুর্নবার্গ (R) ৩৪ ১৬ ১১ ৪০ ৫০ −১০ ৩৭ ২. বুন্দেসলিগায় অবনমিত
১৭ বোখুম (R) ৩৪ ১৯ ৪০ ৬৫ −২৫ ২৯
১৮ বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ (R) ৩৪ ২১ ৪১ ৭৯ −৩৮ ২১
উৎস: জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: ১) পয়েন্ট; ২) গোল পার্থক্য; ৩) স্বপক্ষে গোল।
(C) চ্যাম্পিয়ন; (R) অবনমিত।
টীকা:
  1. ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ১৯৯৮–৯৯ ডিএফবি-পোকালের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে উয়েফা কাপে স্বয়ংক্রিয়ভাবে উত্তীর্ণ হয়েছিল।

ফলাফলসম্পাদনা

স্বাগতিক \ সফরকারী BSC BOC SVW BVB DUI SGE SCF HSV FCK B04 BMG M60 FCB FCN ROS S04 VFB WOB
হের্টা ৪–১ ১–০ ৩–০ ১–৩ ৩–১ ১–০ ৬–১ ১–১ ০–১ ৪–১ ২–১ ১–০ ৩–০ ২–০ ২–০ ২–০ ২–০
বোখুম ২–০ ২–০ ০–১ ০–২ ০–০ ১–২ ২–০ ১–২ ১–৫ ২–১ ২–০ ২–২ ০–৩ ২–৩ ১–২ ৩–৩ ০–২
ভেয়ার্ডার ব্রেমেন ২–১ ১–১ ১–১ ১–১ ১–২ ২–৩ ০–০ ০–১ ২–২ ৪–১ ৪–১ ০–১ ২–৩ ০–৩ ১–০ ২–২ ০–১
বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ৩–০ ০–১ ২–১ ২–০ ৩–১ ২–১ ২–১ ১–০ ১–০ ১–১ ৩–১ ২–২ ৩–০ ২–০ ৩–০ ৩–০ ২–১
ডুসবুর্গ ০–০ ২–০ ২–০ ৩–২ ২–১ ১–০ ২–৩ ৩–১ ০–০ ২–২ ১–১ ০–৩ ১–১ ৪–১ ১–২ ২–০ ৬–১
আইন্ট্রাখট ফ্রাঙ্কফুর্ট ১–১ ১–০ ০–২ ২–০ ০–০ ৩–১ ২–২ ৫–১ ২–৩ ০–০ ২–৩ ১–০ ৩–২ ২–২ ১–২ ১–১ ০–১
ফ্রাইবুর্গ ০–২ ১–১ ০–২ ২–২ ২–২ ২–০ ০–০ ০–১ ১–১ ২–১ ১–২ ০–২ ১–০ ৩–০ ০–২ ২–০ ০–০
হামবুর্গার ০–৪ ১–০ ১–১ ০–০ ৪–১ ০–১ ২–১ ২–০ ০–০ ৩–০ ৩–০ ০–২ ২–০ ১–০ ২–২ ৩–১ ১–১
কাইজারস্লাউটার্ন ৪–৩ ২–৩ ৪–০ ১–০ ৩–০ ২–১ ০–২ ১–০ ০–১ ২–১ ১–১ ২–১ ২–০ ৩–২ ৪–১ ১–১ ১–১
বায়ার লেভারকুজেন ২–২ ২–০ ২–০ ৩–১ ২–০ ২–১ ১–১ ১–২ ২–২ ৪–১ ১–১ ১–২ ৩–০ ৩–১ ১–১ ০–০ ৩–০
বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ২–৪ ২–২ ০–১ ০–২ ০–২ ১–১ ৩–১ ২–২ ০–২ ২–৮ ২–০ ০–২ ০–২ ১–১ ৩–০ ২–৩ ৫–২
১৮৬০ মিউনিখ ২–০ ২–১ ১–৩ ২–০ ০–০ ৪–১ ২–০ ০–০ ১–২ ০–২ ৩–১ ১–১ ১–২ ২–১ ৪–৫ ১–১ ২–৩
বায়ার্ন মিউনিখ ১–১ ৪–২ ১–০ ২–২ ৩–১ ৩–১ ২–০ ৫–৩ ৪–০ ২–০ ৪–২ ৩–১ ২–০ ৬–১ ১–১ ২–০ ৩–০
নুর্নবার্গ ০–০ ২–২ ১–১ ০–০ ০–২ ২–২ ১–২ ১–১ ১–১ ২–২ ২–০ ১–৫ ২–০ ২–২ ৩–০ ২–২ ১–১
হান্সা রস্টক ১–২ ৩–০ ২–১ ২–০ ৩–০ ২–২ ০–২ ০–১ ২–১ ১–১ ১–১ ৪–১ ০–৪ ১–১ ২–২ ৩–০ ৩–৩
শালকে ০–০ ২–২ ১–২ ১–১ ২–০ ২–৩ ১–১ ১–৪ ০–২ ০–১ ১–০ ২–২ ১–৩ ২–২ ১–০ ১–০ ২–০
স্টুটগার্ট ০–০ ৪–২ ১–০ ২–১ ০–০ ২–০ ৩–১ ৩–১ ৪–০ ০–১ ২–২ ০–১ ০–২ ০–০ ১–১ ২–১ ১–২
ভলফসবুর্গ ২–১ ৪–১ ২–৪ ০–০ ৪–২ ২–০ ১–১ ৪–১ ২–১ ১–০ ৭–১ ১–০ ০–১ ১–১ ১–১ ০–০ ৩–২
উৎস: জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
রং: নীল = স্বাগতিক দল বিজয়ী; হলুদ = ড্র; লাল = সফরকারী দল বিজয়ী।

শীর্ষ গোলদাতাসম্পাদনা

অবস্থান খেলোয়াড় ক্লাব গোল
  মাইকেল প্রিৎস হের্টা ২৩
  উলফ কির্স্টেন বায়ার লেভারকুজেন ১৯
  অলিভার নয়ভিল হান্সা রস্টক ১৪
  অঁতোনি ইয়েবোয়া হামবুর্গার
  মার্কুস বাইয়ার্লে ডুসবুর্গ ১৩
  সাশা চিরিচ নুর্নবার্গ
  জিওভানে এলবের বায়ার্ন মিউনিখ
  কার্স্টেন ইয়ানকার বায়ার্ন মিউনিখ
  আন্দজেই ইয়ুস্কোভিয়াক ভলফসবুর্গ
১০   বার্ন্ড হোবশ ১৮৬০ মিউনিখ ১২

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Schedule Round 1"। DFB। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "Archive 1998/1999 Round 34"। DFB। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "MSV Duisburg - Eintracht Frankfurt 2:1 (Bundesliga 1998/1999, 1. Round)"worldfootball.net। ৮ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৮ মার্চ ২০২২ 
  4. Grüne, Hardy (২০০১)। Enzyklopädie des deutschen Ligafußballs, Band 7: Vereinslexikon (জার্মান ভাষায়)। Kassel: AGON Sportverlag। আইএসবিএন 3-89784-147-9 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা