স্যাপিয়েন্স: অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব হিউমানকাইন্ড

কুটসুর টোলদত হা-ইনোশুট (হিব্রু ভাষায়: קיצור תולדות האנושות‎, মানবজাতির সংক্ষিপ্ত ইতিহাস) ইসরায়েলি লেখক ইউভাল নোয়াহ হারারি রচিত বই। ২০১১ সালে কিনেরেট জোমোরা-বিতান দভির প্রকাশনি থেকে হিব্রু ভাষায় এটি প্রথম ইসরায়েলে প্রকাশিত হয়।[১] জেরুজালেমের হিব্রু বিশ্ববিদ্যালয়ে হারারির প্রদত্ত ধারাবাহিক বক্তৃতার উপর ভিত্তি করে রচিত। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে বইটি হার্ভিল সেকার প্রকাশনি থেকে ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত হয়।[২][৩] বইটি প্রস্তর যুগের প্রাচীন মানব প্রজাতির বিবর্তন থেকে হোমো স্যাপিয়েন্সকে কেন্দ্র করে একবিংশ শতাব্দী পর্যন্ত মানবজাতির ইতিহাস জরিপ করেছে। এটি এমন একটি কাঠামোর মধ্যে অবস্থিত যা প্রাকৃতিক বিজ্ঞানকে সামাজিক বিজ্ঞানের সাথে ছেদ করে।

স্যাপিয়েন্স
অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব হিউমানকাইন্ড
বইয়ের প্রচ্ছদ
মূল হিব্রু সংস্করণের প্রচ্ছদ
লেখকইউভাল নোয়াহ হারারি
মূল শিরোনামקיצור תולדות האנושות
দেশইসরায়েল
ভাষাহিব্রু, ইংরেজি
বিষয়ইতিহাস, সাংস্কৃতিক বিবর্তন
ধরননন-ফিকশন
প্রকাশিত২০১১
প্রকাশককিনেরেট জোমোরা-বিতান দভির, হার্ভিল সেকার
ইংরেজিতে প্রকাশিত
২০১৪ (প্রথম)
মিডিয়া ধরনছাপা (শক্তমলাট)
পৃষ্ঠাসংখ্যা৪৫৯ (হিব্রু সংস্করণ)
আইএসবিএন৯৭৮৯৬৫৫৫২৫৫১৯ (মূল হিব্রু সংস্করণ)
ওসিএলসি৮৮১৩৯১৩২৩
পূর্ববর্তী বইদি আলটিমেট এক্সপেরিয়েন্স: ব্যাটেলফিল্ড র ভিেলশন্স অ্যান্ড দ্য মেকিং অব মর্ডান ওয়ার কালচার, ১৪৫০–২০০০ (২০০৮) 
পরবর্তী বইহোমো ডিউস: অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব টুমোরো (২০১৬) 
ওয়েবসাইটynharari.com/book/sapiens-2/

সারসংক্ষেপসম্পাদনা

হারারির এই কাজ মানব ইতিহাসের বিবরণকে একটি কাঠামোর মধ্যে উপস্থিত করেছে: প্রাকৃতিক বিজ্ঞানকে তিনি মানুষের ক্রিয়াকলাপের সম্ভাবনার সীমা বিবেচনা করেন এবং সামাজিক বিজ্ঞানকে সেই সীমার মধ্যে কী ঘটেছিল তার রূপদান হিসেবে বিবেচনা করেন। ইতিহাসের শিক্ষায়তনিক অনুশাসন হল সাংস্কৃতিক পরিবর্তনের ঘটনা।

  1. বুদ্ধিবৃত্তিক বিপ্লব (আনু. ৭০,০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ, যখন স্যাপিয়েন্সের কল্পনার বিবর্তিত হয়)।
  2. কৃষি বিপ্লব (আনু. ১০,০০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ, কৃষির উন্নয়ন)।
  3. মানবজাতির একীকরণ (একটি আন্তর্জাতিক সাম্রাজ্যের দিকে মানব রাজনৈতিক সংগঠনের ক্রমান্বয়ে একীকরণ)।
  4. বৈজ্ঞানিক বিপ্লব (আনু. ১৫০০ খ্রিস্টাব্দ, উদ্দেশ্য বিজ্ঞানের উত্থান)।

প্রকাশনাসম্পাদনা

২০১৪ সালে স্যাপিয়েন্স: অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব হিউমানকাইন্ড শিরোনামে হার্ভিল সেকার থেকে বইটির ইংরেজি সংস্করণ প্রকাশিত হয়। এটির অনুবাদক হারারি নিজেই ছিলেন, তাকে সহায়তা করেছেন জন পুরসেল এবং হাইম ওয়াটজমান।[৪] একই বছর কানাডার সিগন্যাল প্রকাশনি থেকে বইটি পুনরায় (আইএসবিএন ৯৭৮০৭৭১০৩৮৫০১ (বাউন্ড), আইএসবিএন ৯৭৮০৭৭১০৩৮৫২৫ (এইচটিএমএল)) প্রকাশিত হয়। ২০১৫ সালে একই শিরোনামে লন্ডনে অনুবাদক সূত্রবিহীন ভিনটেজ প্রকাশনি থেকে (আইএসবিএন ৯৭৮০০৯৯৫৯০০৮৮ (পেপারব্যাক)) প্রকাশিত হয়েছিল।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. হারারি ২০১১
  2. স্ট্রসন, গ্যালেন (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৪)। "Sapiens: A Brief History of Humankind by Yuval Noah Harari – review"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। লন্ডন: গার্ডিয়ান মিডিয়া গ্রুপ। ১০ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  3. পেইন, টম (২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৪)। "Sapiens: A Brief History of Humankind by Yuval Noah Harari, review: 'urgent questions'"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। লন্ডন: টেলিগ্রাফ মিডিয়া গ্রুপ। ৩০ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  4. "A brief history of human kind"idiscover.lib.cam.ac.uk (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

উৎসসম্পাদনা

হারারি, ইউভাল নোয়াহ (২০১১)। স্যাপিয়েন্স: অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব হিউমানকাইন্ড (ইংরেজি ভাষায়)। লেখক কর্তৃক অনূদিত (১ম সংস্করণ)। ইসরায়েল: কিনেরেট জোমোরা-বিতান দভিরআইএসবিএন 9789655525519ওসিএলসি 881391323 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা