শন মার্শ

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার

শন এডওয়ার্ড মার্শ (ইংরেজি: Shaun Edward Marsh; (জন্ম: ৯ জুলাই ১৯৮৩) একজন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার যিনি অস্ট্রেলিয়ান ঘরোয়া ক্রিকেট ওয়েষ্টার্ণ ওয়ারিয়র্সের হয়ে খেলে থাকেন। এছাড়াও তিনি অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের হয়ে টেস্ট, একদিনের আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলে থাকেন। তার ডাকনাম হল সস।[১] তিনি হলেন একজন বাহাতি উদ্বোধণী ব্যাটসম্যান এবং দলের অতিরিক্ত বোলার হিসেবে একজন স্পিন বোলার।

শন মার্শ
Shaun Marsh.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামশন এডওয়ার্ড মার্শ
জন্ম (1983-07-09) ৯ জুলাই ১৯৮৩ (বয়স ৩৭)
নারোজিন, পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ডাকনামসস
উচ্চতা১.৮৪ মিটার (৬ ফুট ০ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরনবাহাতি উদ্বোধণী ব্যাটসম্যান
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট আর্ম অর্থডক্স
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কজিওফ মার্শ (পিতা)
মিচেল মার্শ (ভাই)
মেলিসা মার্শ (বোন)
সিন আরভিন (ভগিনীপতি)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪২২)
৮ সেপ্টেম্বর ২০১১ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট২৪ জানুয়ারী ২০১২ বনাম ভারত
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৬৫)
২৪ জুন ২০০৮ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই শার্ট নং
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০০–বর্তমানপশ্চিম অস্ট্রেলিয়া (দল নং ২০)
২০০৮–বর্তমানকিংস ওলেভেন পাঞ্জাব (দল নং ১৪)
২০১১–বর্তমানপার্থ স্করচার্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০আই এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৭ ১২ ৭৯
রানের সংখ্যা ৩০১ ১,৩১৪ ২১০ ৪,৪৮৯
ব্যাটিং গড় ২৭.৩৬ ৩৬.৫০ ১৯.০৯ ৩৫.০৭
১০০/৫০ ১/১ ২/৮ –/– ৭/২৫
সর্বোচ্চ রান ১৪১ ১১২ ৪৭* ১৬৬*
বল করেছে ১৭৪
উইকেট
বোলিং গড় ৬৫.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ২/২০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/– ৮/– ৩/– ৭০/–
উৎস: ইএসপিএন ক্রিকইনফো, ২৯ আগস্ট ২০১৩

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

মার্শ এবং তার ছোট ভাই মিচেল মার্শ পার্থের ওয়েসলি কলেজে পড়াশোনা করেন এবং সেখানে চমৎকার ক্রিকেট খেলার সাথে সম্পৃক্ত হন। ১৯৯৮ সালে শন পাবলিক স্কুল এসোসিয়েশন কর্তৃক আয়োজিত ডারলট কাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ গড় (২১০) করে রেকর্ড গড়েন এবং এটি বিগত ১০ বছর পরে রেকর্ড ভেঙে নতুন রের্কড সৃষ্টি করেন।[২]

সেন্ট্রাল ল্যাঙ্কাশায়ার লীগসম্পাদনা

২০০৪ সালে মার্শ ওয়ালসডেন ক্রিকেট ক্লাবের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন। যদিও তারা স্টিভ ওয়াহ এর অবসরের পরে অস্ট্রেলিয়ার উদীয়মান ক্রিকেটারদের সন্ধানে করছিলেন। তাদের ধারণা ছিল যে; মার্শ আাগমী প্রজন্মের একজন তরুণ উদীয়মান খেলোয়াড় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে। কারণ মার্শ ১১৩৯ রান করেন ৫৬.৯৫ ব্যাটিং গড় এবং বোলার হিসেবে তিনি ১৭.৭৬ গড়ে ৪৬ উইকেট লাভ করেন।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ কর্মজীবনসম্পাদনা

২০০৮ সালের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে কিংস এলেভেন পাঞ্জাব দলের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেন।[৩] উদ্বোধনী টুর্নামেন্টের চার ম্যাচে অনুপস্থিত থাকা সত্ত্বেও মার্শ রাজস্থান রয়ালস এর বিরুদ্ধে একটি শতক সহ টুর্নামেন্টের লিগ পর্যায়ে সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী ছিলেন। তিনি ২০০৮ সালের আইপিএল টুর্নামেন্ট এর সর্বাধিক রান সংগ্রহ করার জন্য কমলা টুপি লাভ করেন।[৪][৫] শন মার্শ ক্রিকেট মহাতারকাদের সঙ্গে যেমন সনাথ জয়সুরিয়া, কুমার সাঙ্গাকারা, গ্লেন ম্যাকগ্রা এবং শেন ওয়ার্ন সাথে যুক্ত হন এবং ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফো তাদের নির্বাচিত উদ্বোধনী আইপিএলে স্বপ্নের দল বলে ঘোষণা করেন। এছাড়াও অন্যান্য তরুণ প্রতিভাদের মধ্যে গৌতম গম্ভীর এবং ইউসুফ পাঠান, রোহিত শর্মা ছিলেন।[৬]

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারসম্পাদনা

 
শন মার্শ এর ওয়ানডে পারফরম্যান্সের একটা গ্রাফ। বার প্রতিটি ইনিংসে রান (নীল বার দ্বারা আউট, কমলা বার দ্বারা অপরাজিত) এবং লাল বার দ্বারা প্রতিটি ইনিংস ব্যাটিং গড় দেখান হয়েছে।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

২০০৭ সালের নভেম্বরে তার সতীর্থ সাথে লূক পমেরবার্চ এর সাথে পানীয় মদ সেবন করার জন্য দুটি ম্যাচে স্থগিত করা হয়েছিল।[৭]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Nicknames not dopey, even for cricketers"The Courier-Mail। ২৮ ডিসেম্বর ২০১০। 
  2. "The Wesleyan" (PDF)wesley.wa.edu.au। জুন ২০০৮। পৃষ্ঠা 21। ২১ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৪ 
  3. "Shaun Marsh joins Mohali"CricinfoESPN। ৯ এপ্রিল ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  4. "Most Runs in IPL, 2008 season"CricinfoESPN। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  5. Varghese, Mathew (২৮ মে ২০০৮)। "Marsh century conquers Rajasthan"CricinfoESPN। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  6. Veera, Sriram (৫ জুন ২০০৮)। "Short-form allstars"CricinfoESPN। সংগ্রহের তারিখ ১২ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  7. Clarke, Tim (২১ নভেম্বর ২০০৭)। "Warriors opener Chris Rogers says side must cope without dropped players" 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা