মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি

বাংলাদেশী ব্যবসায়ী

মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি ছিলেন একজন বাংলাদেশী ব্যবসায়ী। তিনি ইস্পাহানি পরিবারের সদস্য এবং এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেডের (যা ইস্পাহানি গ্রুপ নামে পরিচিত) চেয়ারম্যান ছিলেন। [১][২]

মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি
মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি
মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি
জন্ম৩০ অক্টোবর ১৯৫০
মৃত্যু২০ জানুয়ারি ২০০৪
সমাধিহোসেনি দালান কবরস্থান
জাতীয়তা পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
পেশাব্যবসা, এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেড বা ইস্পাহানি গ্রুপের প্রাক্তন চেয়ারম্যান।
কার্যকাল২০০৪-২০১৭
প্রতিষ্ঠানএম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেড
পূর্বসূরীমির্জা আহমেদ ইস্পাহানি
উত্তরসূরীমির্জা সালমান ইস্পাহানি
দাম্পত্য সঙ্গীজাহিদা ইস্পাহানি
পিতা-মাতা
আত্মীয়মির্জা আহমেদ ইস্পাহানি (দাদা)
পরিবারইস্পাহানি পরিবার

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

তিনি ১৯৫০ সালের ৩০ অক্টোবরে ইস্পাহানি পরিবার নামক একটি বনেদী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। [৩] এই পরিবারটি ১৮২০ সালে ইস্পাহানি গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা হাজী মোহাম্মদ হাশেম (১৭৮৯-১৮৫০) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তিনি পারস্যের ইস্পাহান (ইসফাহান) থেকে বোম্বাইতে এসে ব্যবসা শুরু করেন। পরে বংশানুক্রমে তা বাংলাদেশে স্থানান্তরিত হয়। [৪]

বেহরুজ ইস্পাহানি ঢাকার সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। তার পিতা মির্জা মেহদী ইস্পাহানির মৃত্যুর পরে এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। [৫]

ক্যারিয়ারসম্পাদনা

মির্জা আলী বেহরুজ ইস্পাহানি ২০০৪ সাল থেকে ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত এম. এম. ইস্পাহানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ছিলেন। [৫] তিনি ইন্ডিপেন্ডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের (আইইউবি) ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ছিলেন। [৬] এছাড়াও তিনি ইন্টারন্যাশনাল পাবলিকেশনস লিমিটেডের (আইপিএল) স্পনসর ডিরেক্টর এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং দ্য ফাইন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস (এফই) এর মালিক ছিলেন। [৭] বাংলাদেশ সরকার তাকে সিআইপি (কমার্শিয়াল ইম্পরট্যান্ট পারসন বা বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) উপাধি দিয়েছিল। [৮]

সামাজিক কর্মসম্পাদনা

তিনি ইস্পাহানী ইসলামিয়া চক্ষু ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল[৯] এবং চট্টগ্রামের ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান ছিলেন। [১০][১১] এছাড়াও তিনি কুমিল্লা সেনানিবাসে অবস্থিত ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল ও কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ছিলেন।

মৃত্যুসম্পাদনা

বেহরুজ ইস্পাহানি ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারিতে ৬৭ বছর বয়সে মারা যান। [৪][১২] ঢাকার হোসেনি দালান মসজিদের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। [১৩][১৪] বেহরুজ ইস্পাহানি তার স্বনামধন্য শিল্প গ্রুপের মাধ্যমে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্পের উন্নতিতে যে অবদান রেখেছিলেন এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেছিলেন। [১৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "A heartfelt goodbye to beloved Behrouze bhai"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  2. "Behrouze Ispahani: A gentleman to the core"The Financial Express Online Version। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  3. "Ispahani Group chairperson passes away"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  4. "Ispahani chairman passes away"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  5. "Tributes to a business icon"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০১-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  6. IUB, Webmaster। "We Mourn"www.iub.edu.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  7. "Ispahani Group boss Mirza Ali Behrouze Ispahani passes away"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  8. "54 businessmen to get CIP status | LAST PAGE | The financial express"। ২০১৭-০৭-৩১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  9. "Project to provide eye care to visually impaired people"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৮-১০-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  10. "Mirza Salman new chairman of Ispahani eye hospital"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০২-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  11. "Govt to ensure congenial atmosphere in edn instts"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৯-০২-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  12. 4-traders। "Apollo Hospitals Enterprise Limited : Apollo Hospitals Enterprise Limited share news and information | NATIONAL STOCK EXCHANGE OF INDIA: APOLLOHOSP | 4-Traders"www.4-traders.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  13. "Behrouze Ispahani passes away"Prothom Alo (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৭-৩০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯ 
  14. "Chehlum"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৩-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-৩০ 
  15. "Behrouze Ispahani dead | FIRST PAGE | The financial express"। ২০১৭-০২-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২৯