প্রধান মেনু খুলুন

মাসুদুর রহমান বৈদ্য

ভারতীয় সাঁতারু

মাসুদুর রহমান বৈদ্য (১৯৬৮ - ২৬শে এপ্রিল, ২০১৫) একজন ভারতীয় সাঁতারু ছিলেন, যিনি বিশ্বের প্রথম প্রতিবন্ধী সাঁতারু হিসেবে জিব্রাল্টার প্রণালী সাঁতার কেটে পার হন।[১]

মাসুদুর রহমান বৈদ্য
জন্ম১৯৬৮
মৃত্যু২৬ এপ্রিল, ২০১৫
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাসাঁতারু

সংক্ষিপ্ত জীবনীসম্পাদনা

মাসুদুর রহমান বৈদ্য ১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার বল্লভপুর গ্রামে এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[২] তার পিতা স্থানীয় মসজিদের ইমাম ছিলেন। দশ বছর বয়সে রেল দুর্ঘটনায় হাটুর নীচ থেকে মাসুদুরের দুটি পা কাটা পড়ে।[২][৩] ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে মহারাষ্ট্রের পুণে শহরে আর্টিফিসিয়াল লিম্ব সেণ্টার দ্বারা আয়োজিত সতেরোটি সাঁতার প্রতিযোগিতার মধ্যে ষোলটিতে মাসুদুর প্রথম হন। এরপর তিনি গঙ্গার বুকে পাণিহাটি থেকে আহিরিটোলা পর্য্যন্ত সাঁতার কেটে পঞ্চম ও মুর্শিদাবাদ জেলায় একাশি কিলোমিটার দীর্ঘ সাঁতার প্রতিযোগিতায় পঞ্চম স্থান অধিকার করেন।[৩] ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে তিনি এশিয়ার প্রথম প্রতিবন্ধী সাঁতারু হিসেবে ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করেন।[৪] ২০০১ খ্রিস্টাব্দে তিনি বিশ্বের প্রথম প্রতিবন্ধী সাঁতারু হিসেবে জিব্রাল্টার প্রণালী অতিক্রম করেন। এই প্রণালী পার করতে গিয়ে তিনি স্পেনের তারিফা দ্বীপ থেকে মরক্কোর উপকূল পর্য্যন্ত বাইশ কিলোমিটার চার ঘন্টা কুড়ি মিনিট সময় নেন।[১] শেষ জীবনে তিনি রক্তাল্পতায় ভুগছিলেন। তার বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বিকল হয়ে যাওয়ায় ২০১৫ খ্রিস্টাব্দের ২৬ শে এপ্রিল কলকাতা শহরের একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।[২][৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Baidya conquers Strait of Gibraltar"thehindu.com। The Hindu। সেপ্টেম্বর ২৭, ২০০১। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০১৫ 
  2. "আকস্মিক প্রয়াত হলেন ইংলিশ চ্যানেল জয়ী সাঁতারু মাসুদুর রহমান"bengali.oneindia.com। Oneindia Bengali। এপ্রিল ২৬, ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০১৫ 
  3. মাসুদুর রহমান বৈদ্য (ডিসেম্বর ৮, ২০১৩)। "আয় আরও বেঁধে বেঁধে থাকি"sangbadpratidin.in। Sangbad Pratidin। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০১৫ 
  4. "The man who saw a mermaid"telegraphindia.com। The telegraph। আগস্ট ২, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০১৫ 
  5. "প্রয়াত মাসুদুর রহমান বৈদ্য"bengali.kolkata24x7.com। Kolkata 24x7। এপ্রিল ২৬, ২০১৫। ২৯ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০১৫ 

Uouuuuy