মাইটোসিস

উন্নত শ্রেণীর প্রাণী ও উদ্ভিদের দেহকোষ বিভাজন প্রক্রিয়া

মাইটোসিস বা সমীকরণিক হলো এক ধরনের কোষ বিভাজন। উন্নত শ্রেণীর প্রাণী ও উদ্ভিদের দেহকোষে মাইটোসিস প্রক্রিয়ায় বিভাজন ঘটে। প্রকৃতকোষী জীবদেহ গঠনের কোষ বিভাজন হলো মূলত মাইটোসিস কোষ বিভাজন।[১] মাইটোসিস (Mitosis) বলতে বুঝায় যে পরোক্ষ কোষ বিভাজন প্রক্রিয়ায় মাতৃকোষের সমসংখ্যক ও সমগুণসম্পন্ন ক্রোমোজোম ও সমপরিমাণ সাইটোপ্লাজম সহ দুইটি অপত্য নিউক্লিয়াসের সৃষ্টি হওয়াকে। মাইটোসিস কোষ বিভাজন দুই ভাগে ঘটে।

মাইটোসিস বিভাজনরত জীবন্ত কোষের অনুবীক্ষণ চিত্র

১. ক্যারিওকাইনেসিস(নিউক্লিয়াসের বিভাজন)[২]

২.সাইটোকাইনেসিস(সাইটোপ্লাজমের বিভাজন)

মাইটোসিস ও সাইটোকাইনেসিস কে একসাথে মাইটোটিক বলে।

কোথায় ঘটে?সম্পাদনা

প্রাণীর বর্ধনশীল সমস্ত দেহকোষে মাইটোসিস হয়। মেরুদণ্ডী প্রাণীর অস্থিমজ্জায় , লোমকূপে, অন্ত্রের ভিলাসগুলির অন্তর্বর্তী কূপে, অণ্ডকোষে, ক্ষতস্থানের আশে পাশে সবথেকে বেশি মাইটোসিস হয়। তবে, উদ্ভিদের বর্ধনশীল কান্ডে, ভূণমুকুলে, ভূণমূলে ও ভাজক কলায় মাইটোসিস হয়। এ ছাড়া আর কিছুই নয়।

ইন্টারফেজসম্পাদনা

কোষ বিভাজনের পূর্বে কোষকে বিভাজনের জন্য প্রস্তুত করার প্রক্রিয়াই হলো ইন্টারফেজ। একবার কোষ সৃষ্টির পর বৃদ্ধি পেয়ে বিভাজন পর্যন্ত প্রক্রিয়াকে বলা হয় কোষচক্র। মাইটোসিস কোষ বিভাজনের ক্ষেত্রে কোষচক্রের ৯০-৯৫% সময় ইন্টারফেজে ব্যবহৃত হয়। বাকি ৫-১০% সময়টুকু প্রকৃতপক্ষে কোষবিভাজনের জন্য ব্যবহৃত হয়।

ইন্টারফেজ দশা বেশ বড়ো তাই একে ৩াট উপ-পর্যায় বিভক্ত করা হয়েছে।

  1. গ্যাপ ১ (G1)
  2. সিনথেসিস ( S)
  3. গ্যাপ ২ (G2 )

গ্যাপ ১ :সম্পাদনা

এই দশাতে সাইক্লিন ডিপেন্ডেন্ট কাইনেজ (Cyclin Dependent Kinase / cdk) ভূমিকা রাখে।

মাইটোসিস বিভাজনের ধাপসমূহসম্পাদনা

মাইটোসিস বিভাজন একটি অবিচ্ছিন্ন প্রক্রিয়া, তবু্ও বর্ণনার সুবিধার্থে ৫টি পর্যায় বিভক্ত করা হয়েছে।

  • প্রোফেজ
  • প্রো-মেটাফেজ
  • মেটাফেজ
  • অ্যানাফেজ
  • টেলোফেজ

উদ্ভিদের বর্ধনশীল কান্ডে, ভূণমুকুলে, ভূণমূলে ও ভাজক কলায় মাইটোসিস বিভাজন ঘটে।

মাইটোসিসের গুরুত্বসম্পাদনা

মাইটোসিস কোষ বিভাজন জীবের জন্য খুবই গুরুত্ত্বপূর্ণ; কারণ মাইটোসিস কোষ বিভাজনের মাধ্যমে জীব দৈর্ঘ্যে ও প্রস্থে বৃদ্ধি প্রাপ্ত হয়৷ মাইটোসিস কোষ বিভাজনের মাধ্যমেই উন্নত ধরনের জীব সৃষ্টি হতে পারে৷ এর মাধ্যমে জননাঙ্গ সৃষ্টি হয় বলে বংশবৃদ্ধির ক্রমধারা রক্ষিত হয়। প্রাণী দেহে কিছু কিছু কোষ আছে যাদের আয়ুষ্কাল নির্দিষ্ট; এসব কোষ বিনষ্ট হলে মাইটোসিসের মাধ্যমে পূরণ হয়।

মাইটোসিসের বৈশিষ্ট্যসম্পাদনা

১| এ প্রক্রিয়ায় প্রতিটি ক্রোমোসোম লম্বালম্বিভাবে তথা অনুদৈর্ঘ্যে দুটি ক্রোমাটিডে বিভক্ত হয়।

২| প্রতিটি ক্রোমাটিড তথা অপত্য ক্রোমোসোম তার নিকটস্থ মেরুতে পৌছে দুটি অপত্য নিউক্লিয়াসের সৃষ্টি করে। কাজেই দুটি অপত্য কোষেই ক্রোমসোম সংখ্যা সমান থাকে।

৩| অপত্য কোষগুলো মাতৃকোষের সমগুনসম্পন্ন হয়,কারণ জীবের বৈশিষ্ট্য নিয়ন্ত্রক জিনসমূহ বহনকারী ক্রোমোসোমগুলোর প্রতিটি লম্বালম্বিভাবে বিভক্ত হয়ে দুটি অপত্য কোষের নিউক্লিয়াসে যায়।

৪| অপত্য কোষের ক্রোমসোম সংখ্যা মাতৃকোষের ক্রোমসোম সংখ্যার সমান হয়ে থাকে। ৫| অপত্য কোষ বৃদ্ধি পেয়ে মাতৃকোষের সমান আয়তনের হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Mitosis"web.archive.org। ২০১২-১০-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৯ 
  2. "Cell Division: Stages of Mitosis | Learn Science at Scitable"www.nature.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-১৯