ভ্যাটিকান সিটি

বিশ্বের ক্ষুদ্রতম ও স্বাধীন রাষ্ট্র

ভ্যাটিকান সিটি ইতালির রোম শহরের ভিতরে অবস্থিত স্বাধীন রাষ্ট্র। পোপ এখানকার রাষ্ট্রনেতা। এটি রোমান ক্যাথলিক গির্জার বিশ্ব সদর দফতর হিসেবে কাজ করে। সম্পূর্ণভাবে রোমের অভ্যন্তরে অবস্থিত ভ্যাটিকান সিটি বিশ্বের ক্ষুদ্রতম রাষ্ট্র, যার আয়তন ১১০ একর।

ভ্যাটিকান সিটি রাষ্ট্র

Status Civitatis Vaticanae
স্তাতুস্‌ চিভ়িতাতিস্‌ ভ়াতিকানে
Stato della Città del Vaticano
স্তাতো দেল্লা চিত্তা দেল্‌ ভ়াতিকানো
ভ্যাটিকান সিটির জাতীয় পতাকা
পতাকা
ভ্যাটিকান সিটির কোট অফ আর্মস
কোট অফ আর্মস
সঙ্গীত: ইন্নো এ মার্চিয়া পন্তিফিকালে  (ইতালীয়)
ভ্যাটিকান সিটির অবস্থান
রাজধানী
ও বৃহত্তম নগরী বা বসতি
ভ্যাটিকান সিটি
সরকারি ভাষালাতিন, ইতালীয়
সরকারনিরঙ্কুশ নির্বাচিত রাজতন্ত্র
• পোপ
পোপ ফ্রান্সিস
• সেক্রেটারি অফ স্টেট
পিয়েত্রো পারোলিন
গিসেপে বের্তেল্লো
স্বাধীনতা 
ইতালি রাজত্ব থেকে
• লাটেরান চুক্তি
ফেব্রুয়ারি ১১ ১৯২৯
জনসংখ্যা
• ২০১৭ আনুমানিক
১০০০[১] (২৩৬তম)
মুদ্রাইউরো (€)
সময় অঞ্চলইউটিসি+১ (সিইটি)
• গ্রীষ্মকালীন (ডিএসটি)
ইউটিসি+২ (সিইএসটি)
কলিং কোড৩৭৯[২]
ইন্টারনেট টিএলডি.va
ওয়েবসাইট
http://www.vaticanstate.va
[২] ভ্যাটিকান সিটি একটি শহর-রাষ্ট্র
দাপ্তরিক কার্যাকার্যে ব্যবহৃত হয়। দে ফ্যাকটো ভাষাগুলো হলো ইতালীয়, জার্মান, স্পেনীয়, ফরাসি, এবং পর্তুগিজ, এর পাশাপাশি ইতালীয় ভাষা সর্বাধিক ব্যবহৃত। পোপের সুইস গার্ডদের ভাষা হলো জার্মান। ডিপ্লোম্যাটিক ভাষা হলো ফরাসি।
Suffrage limited to the College of Cardinals (see Government section below).
Prior to 2002, the Vatican lira (on par with the Italian lira).
যদিও ভ্যাটিকান সিটি ইতালীয় টেলিফোন নাম্বারিং পরিকল্পনার অধীন এবং ইতালীর কান্ট্রি কোড 39-ই ব্যবহার করে, তবে ITU-T ভ্যাটিকান সিটিকে 379 কোডটি বরাদ্দ করেছে।

উত্তর-পশ্চিম রোমের ভ্যাটিকান পাহাড়ের উপর একটি ত্রিভুজাকৃতি এলাকায়, তিবের নদীর ঠিক পশ্চিমে, ভ্যাটিকান শহর অবস্থিত। দক্ষিণ-পশ্চিমের পিয়াৎসা সান পিয়েত্রো বা সেন্ট পিটার চত্বর বাদে বাকি সবদিকে ভ্যাটিকান শহর মধ্যযুগ ও রেনেসাঁর সময়ে নির্মিত প্রাচীর দিয়ে রোম শহর থেকে বিচ্ছিন্ন। প্রাচীরের ভেতরে আছে উদ্যান, বাহারী দালান ও চত্বরের সমাবেশ। সবচেয়ে বড় দালানটি হলো সেন্ট পিটারের ব্যাসিলিকা, যা রোমান ক্যাথলিকদের প্রধান গির্জা। ভ্যাটিকান সিটিতে রয়েছে একটি মহাকাশ অবজারভেটরি, লাইব্রেরী ভ্যাটিকানা।

ভ্যাটিকান সিটির নিজস্ব সংবিধান, ডাকব্যবস্থা, সীলমোহর, পতাকা এবং অন্যান্য রাষ্ট্রীয় প্রতীক বিদ্যমান। ভ্যাটিকানের নিজস্ব সেনাবাহিনীও আছে, যার নাম সুইস গার্ড; এর সদস্যসংখ্যা প্রায় ১০০। ভ্যাটিকান রেডিও নামের সরকারি বেতার স্টেশন সারা বিশ্বে পোপের কণ্ঠ ছড়িয়ে দেয়। ২০০১ সালে ভ্যাটিকান শহরে জনসংখ্যা ছিল প্রায় ১০০০। এখানে স্থায়ীভাবে বসবাস করে ও পোপের দেয়া বিশেষ দায়িত্ব পালন করে এখানকার নাগরিকত্ব পাওয়া সম্ভব।

ভ্যাটিকান সিটি শেষ পোপীয় রাষ্ট্র। ক্যাথলিক গির্জা বহু শতাব্দী ধরে মধ্য ইতালির বেশ কিছু এলাকাতে এই রাষ্ট্রগুলি স্থাপন করেছিল, যার শাসনকর্তা ছিলেন পোপ। ইতালীয় সরকার ও পোপ সম্প্রদায়ের মধ্যে বহু বছর ধরে বিতর্কের পর ১৯২৯ সালে লাতেরান চুক্তির অধীনে ভ্যাটিকান সিটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই চুক্তির অধীনে ক্যাথলিক গির্জা ক্ষতিপূরণের বিনিময়ে অন্য সব পোপীয় রাষ্ট্র থেকে দাবী প্রত্যাহার করে নেয় এবং স্বাধীন ভ্যাটিকান সিটি হিসেবে সার্বভৌমত্ব অর্জন করে। এর বর্তমান প্রধান পোপ ফ্রান্সিস, ২০১৩ সালের ১৩ই মার্চ দায়িত্বগ্রহণ করেন ।

ইতিহাসসম্পাদনা

 
লাটেরান চুক্তি অনুসারে ভ্যাটিকান সিটির অঞ্চলসমূহ

খ্রিস্ট ধর্মের প্রবর্তনের আগে থেকেই এই রাজ্যের স্থানটুকুকে পবিত্র বলে গণ্য করা হতো এবং রোমের এই অংশটুকুুতে এর আগে কখনই বসতি গড়ে উঠেনি বা কেউ এখানে বসতি স্থাপন করতে চায়নি। রোমান সাম্রাজ্যের সময় এই স্থানে ফ্রিজিয়ান দেবী সিবেল এবং তার স্বামী আটিসের উপাসনা করা হতো। খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতাব্দীর কোনো এক সময়ে আগ্রিপিনা দ্য এল্‌ডার (খ্রিস্টপূর্ব ১৪ - ৩৩ খ্রিষ্টাব্দ) এই অঞ্চলের একটি পাহাড় কেটে বিশাল উদ্যান তৈরি করেন। পরবর্তীতে সম্রাট ক্যালিগুলা এখানে একটি সারকাস তৈরির উদ্যোগ নেন যদিও তিনি তা সম্পূর্ণ তৈরি করে যেতে পারেননি। তার পরবর্তী সম্রাট নিরো এই সার্কাস সম্পন্ন করেন। এই সার্কাসটিকে তাই "নিরোর সার্কাস" (সার্কাস অফ নিরো) নামে আখ্যায়িত করা হয়। বর্তমানে সেই ভ্যাটিকানের একমাত্র দৃশ্যমান ভগ্নাবশেষ হচ্ছে ভ্যাটিকান ওবেলিস্ক। এই ওবেলিস্কটি সম্রাট ক্যালিগুলা হেলিওপলিস থেকে ভ্যাটিকানে নিয়ে এসেছিলেন তার সার্কাসের স্পিনা সাজানোর জন্য। ৬৪ খ্রিষ্টাব্দে রোমে বৃহৎ অগ্নিকাণ্ডে শহীদ খ্রিস্টানদের সমাধিস্থল হিসেবে এই স্থানটিকে ব্যবহার করা হয়েছিল। প্রাচীন প্রথাগত বিশ্বাস অনুসারে বলা হয় এই সার্কাসের প্রান্তরেই সেন্ট পিটারকে মাথা নিচে ও পা উপরে দিয়ে ক্রুশবিদ্ধ করা হয়েছিল। সার্কাসের বিপরীত দিকে ছিল একটি সমাধিসৌধ, যা ভিয়া করনেলিয়া দ্বারা সার্কাস থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ছিল। এই ভ্যাটিকানেই বহুত্ববাদী ধর্মগুলোর (যেমন প্যাগান ধর্ম) উপাসনালয়, শেষকৃত্যের সৌধ এবং অন্যান্য সৌধ ও মিনার নির্মিত হয়েছিল। এই সবকিছু নির্মিত হয়েছিল ৪র্থ খ্রিষ্টাব্দের আগে। ৪র্থ খ্রিষ্টাব্দের প্রথমভাগে সম্রাট কন্‌স্টান্টাটাইন খ্রিস্টধর্ম গ্রহণ করেন এবং তিনিই ভ্যাটিকানের কেন্দ্রভূমিতে সেন্ট পিটারের ব্যাসিলিকা নির্মাণ করেন। তখন ভ্যাটিকানের প্যাগান স্থাপনাসমূহ ধ্বংস করে ফেলা হয়। এই ব্যাসিলিকাটি প্রায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। পরবর্তীতে পোপদের সক্রিয় তত্ত্বাবধানে ব্যাসিলিকার মূল স্থাপনা সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়। বিশেষত রেনেসাঁর সময় এর খননকাজ দ্রুত এগোতে থাকে। ১৯৩৯ থেকে ১৯৪১ সালের মধ্যে পোপ দ্বাদশ পিউস-এর নির্দেশে সম্পূর্ণ স্থাপনাটি ভূমি থেকে উত্তোলিত করা হয়।

রাজনীতিসম্পাদনা

ভ্যাটিকান শহরের রাজনীতি একটি পরম ধর্মীয় রাজতন্ত্র কাঠামোয় সংঘটিত হয়। পোপ হলেন রাষ্ট্রের প্রধান। রাষ্ট্রের নির্বাহী কর্মকাণ্ড, আইন প্রণয়ন ও বিচার ব্যবস্থা সমস্ত কিছু পোপের অধীনে। ভ্যাটিকান সিটি সারাবিশ্বের রোমান ক্যাথলিকদের প্রতিনিধিত্ব করে। এটি রোমান ক্যাথলিক গির্জার বিশ্ব সদর দফতর হিসেবে কাজ করে। ভ্যাটিকান সিটির নিজস্ব সংবিধান, সীলমোহর, পতাকা, রয়েছে। [৩]

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহসম্পাদনা

ভূগোলসম্পাদনা

 
মাইকেলএঞ্জেলোর গম্বুজের উপর থেকে সেন্ট পিটার স্কয়ারের দৃশ্য

ভ্যাটিকান সিটির আয়তন মাত্র ০.৪৪ বর্গকিলোমিটার। এটি ইতালির রোম শহরের মধ্যস্থলে প্রাচীর বেষ্টিত একটি এলাকা। ভ্যাটিকান সিটির অভ্যন্তরে কোন প্রাকৃতিক জলাশয়ই নেই। শহরটি মূলত একটি ছোট পাহাড়ের উপর অবস্থিত, যার নাম ভ্যাটিকান পাহাড়।

অর্থনীতিসম্পাদনা

নিজস্ব ইউরো ব্যবস্থা চালু রয়েছে দেশটিতে। ২০০০ সালে ইতালির সঙ্গে ভ্যাটিকানও ইউরো মুদ্রা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তবে ভ্যাটিকানের ইউরো একটু আলাদা।[৩]

ভাষাসম্পাদনা

ভ্যাটিকান সিটির কোন সরকারি ভাষা নেই, তবে ইতালীয় ভাষা সর্বাধিক প্রচলিত ভাষা। রোমান ক্যাথলিক গির্জার দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে লাতিন ভাষার বিশেষ মর্যাদা আছে। যারা উচ্চপদে কাজ করে তারা নিয়মিত ইতালীয় ভাষায় কথা বলে। এছাড়া ধর্মীয় অনুষ্ঠানে লাতিন ভাষা ব্যবহার করে। ভ্যাটিকানসিটির বাসিন্দারা রোমান ক্যাথলিক ধর্ম অনুসারী।[৩]

অপরাধ সংস্কৃতিসম্পাদনা

অপরাধের দেশ বলে থাকেন অনেকে ভ্যাটিকান সিটিকে। জনসংখ্যার তুলনায় এখানে অপরাধ অনেক বেশি সংঘটিত হয়, তাই। ২০০৬ সালে দেশটির জনসংখ্যা ছিল ৪৯২। আর একই সঙ্গে রেজিস্ট্রীকৃত অপরাধকর্মের সংখ্যা ৮২৭টি। মানে প্রত্যেক নাগরিক ১.৬৮টি অপরাধের সঙ্গে জড়িত বলে হিসাব বলছে।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Holy See (Vatican City), The World Factbook, CIA. Retrieved 14 April 2009.
  2. ভ্যাটিকেন সিটিকে দিয়েছে কিন্তু ব্যবহার করেনি। ইতালির রোম থেকে প্রকৃত সংখ্যা সক্রিয় করা হয়েছে টেলিকম ইতালি মাধ্যমে এবং ইতালির টেলিফোন সংযোগ নিয়ন্ত্রণ অফিস থেকে আসা শেষ ৪ অথবা ৫ সংখ্যা ভ্যাটিকেন সিটি থেকে সুলভ। অনেক ইতালিয়াদের যারা সান মারিনোতে থাকে তাদের ফোন নাম্বার ০৬৬৯৮২ অথবা ০৬৬৯৮x + এক্সটেনশন। অন্য সমস্ত অবস্থাতে +৩৯০৬৬৯৮২ অথবা +৩৯০৬৬৯৮ এক্সটেনশন।
  3. "Vatican city | পৃথিবীর সবচেয়ে ক্ষুদ্রতম দেশ" 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা