প্রধান মেনু খুলুন

বেণুধর শর্মা

ভারতীয় লেখক

বেণুধর শর্মা (হিন্দি: बेणुधर शर्मा, ইংরেজি: Benudhar Sharma) সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার লাভ করা দ্বিতীয় অসমীয়া ব্যক্তি[১]। এছাড়াও তিনি একজন সাহিত্যিক, প্রত্নতত্ত্ববিদ, সাংবাদিক, সমাজ সংস্কারক,ইতিহাসবিদ, গবেষক এবং ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের একজন অগ্রগণ্য মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন[২]। ১৯৫৬ সালের অসম সাহিত্য সভার সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত হয়েছিলেন[৩]। তাঁর সাহিত্যে ইতিহাসের তথ্য ভরে থাকার জন্য তাঁকে ইতিহাস রত্ন, ইতিহাসর যাদুকর ইত্যাদ ববহুি নামেও বিভূষিত করা হয়েছিল। রত্নকান্ত বরকাকতীদেব বেনুধর শর্মাকে ইতিহাস সূর্য আখ্যা দিয়ে সন্মান জানান। তরুণ অসমের সম্পাদক এবং প্রথম অসমীয়া দৈনিক সংবাদপত্র দৈনিক বাতরির সহকারী সম্পাদকের দায়িত্ব বহন করেছিলেন।[৪]

বেণুধর শর্মা
200px
জন্ম১৬ নভেম্বর, ১৮৯৪
চারিং, শিবসাগর, অসম
মৃত্যু২৬ ফেব্রুয়ারী, ১৯৮১
পেশাসাহিত্যিক, প্রত্নতত্ববিদ, সাংবাদিক, সমাজ সংস্কারক, মুক্তিযোদ্ধা,গবেষক, ইতিহাসবিদ,
ভাষাঅসমীয়া
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্ব ভারত
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিকংগ্রেছর কাঁচিয়লি র’দত
উল্লেখযোগ্য পুরস্কারসাহিত্য একাডেমি পুরস্কার (১৯৬০)
পদ্মভূষণ (মরণোত্তর ভাবে),

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

জন্মসম্পাদনা

বেণুধর শর্মাই ১৮৯৪ সালের ১৫ নভেম্বর অসমের শিবসাগর জেলার চারিঙে জন্মগ্রহন করেছিলেন। তাঁর পিতা স্বর্গীয় ডিম্বেশ্বর শর্মা এবং মাতা স্বর্গীযা় তুলসী দেবী[৫]

শিক্ষা এবং কর্মজীবনসম্পাদনা

বেণুধর শর্মা শিবসাগরের চারিঙে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন, তার পরে ১৯১৫ সালে শিবসাগর সরকারী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় সুখ্যাতিতে উর্ত্তীন হন। উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের জন্য কলিকতা গিয়েছিলেন যদিও অসহযোগ আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করার জন্য তাঁর উচ্চ শিক্ষা অর্ধেক হয়ে যায়। বেণুধর শর্মা কিছুদিনের জন্য শিবসাগরের ফুলেশ্বরী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং যোরহাটের বেজবরুয়া উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করে কর্ম জীবনের শুরু করেছিলেন। তিনি হাতী মহলাতে কাজ করার থেকে দোকান দিয়ে বিভিন্ন কাজ করে তিনি জীবন যুদ্ধে অগ্রণী হন। এর মধ্যে ঘরফলীয়া কংগ্রেছ নামে একটা রাজনৈতিক দল খুলে রাজনীতিরও কিছুদিন পাঠ নিয়েছিলেন। তিনি প্রথম অসমীয়া দৈনিক সংবাদপত্র দৈনিক বাতরির সহকারী সম্পাদক এবং ডিব্রুগড় থেকে প্রকাশ হওয়া তরুণ অসমেরও তিনি সম্পাদক ছিলেন।[৪]

  • ১৯০১ সালে তিনি চমারগাঁও পাঠশালাতে ভর্তি হন।
  • ১৯০৫ সালে তিনি শিবসাগর গবর্ণমেণ্ট হাইস্কুলে নাম লেখান।
  • ১৯১৫ সালে মেট্রিকুলেশন পরীক্ষাতে উর্ত্তীর্ণ হন।

মৃত্যুসম্পাদনা

১৯৮১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারীতে তাঁর মৃত্যু ঘটে৷

সাহিত্যরাজীসম্পাদনা

গ্রন্থ সংকলন

  • রবিনচন ক্রূচ (১৯১৮)
  • কংগ্রছ গাইড (১৯২৬)
  • জবহরলাল নেহেরুর জীবনী (১৯৩৫),
  • রাংপতা (১৯৪৩)
  • মঙ্গলতির কণ্ঠমালা (১৯৪৬)
  • সাতাবন ছাল (১৯২৭)
  • গঙ্গাগোবিন্দ ফুকন (১৯৫০)
  • মণিরাম দেবান (১৯৫০)
  • বেজবরুবার ধনঞ্জয় বায়ু,
  • অসম দেশ,
  • হাড় কাটোনর দেশ,
  • অসমত সোণ কমোবা ব্যবসায়,
  • অসমীয়া লো এবং হিলৈ,
  • অসমীয়া টাইপ রাইটার,
  • কটকী চরিত্র,
  • অসমীয়া চাহর গুরি কথা,
  • অসমত ইছলামর সূত্রপাত,

  • দূরবীণ (১৯৫১)
  • অসম সাহিত্য সভার ইতিহাস শাখার অভিভাষণ (১৯৫৩)
  • অসম সাহিত্য সভার সভাপতির অভিভাষণ (১৯৫৬)
  • কংগ্রছর কাঁচিয়ালি র’দত (১৯৫৯)[৬]
  • লাতুমণি (১৯৫৯)
  • দুনরি (১৯৫৯)
  • অর্ঘ্যাবলী (১৯৬৭)
  • অসম ইতিহাসর উপকরণ,
  • মোগল খেদার আখরা,
  • তুর্বক সেনার প্রেতাত্মা,
  • গদাধর সিংহর ব্রহ্মোত্তর দান,
  • লাচিত বরফুকরনর প্রশস্তি প্রস্তর,
  • দেশদ্রোহী কোন বদন নে পূর্ণানন্দ ?
  • ইতিহাসর মরণোত্তর পরীক্ষা জয়মতী কুঁবরী
  • আহোমর দিনর বিদ্যা,
  • বয়সে মানুহক বুঢ়া নকরে,
  • বাগিচা চাহাবর প্রকৃতি,

  • দক্ষিণপাট সত্র (১৯৬৮)
  • ফুল চন্দন (১৯৬৮)
  • মরমর কারেং (১৯৬৮)
  • চটাই-চ’রার কথা (১৯৬৯)
  • হেমচন্দ্র গোস্বামীর রচনাবলী (১৯৭১)
  • হেমচন্দ্র গোস্বামীর জীবনী (১৯৭১)
  • মণিরাম দেবানর গীত (১৯৭৬)
  • বিহু সম্ভাষণ,
  • বিহু এবং হুঁচরি,
  • বহাগ বিহুর বৈশিষ্ট্য,
  • বিহুর পুরণি জিলিঙণি,
  • সেই ইতিহাস প্রসিদ্ধ রঙালী বিহুতে,
  • ইতিহাসর মৌ কোঁহ,
  • অসমত ফিরিঙি,

গ্রন্থ সংকলন (ইংরাজী)

  • Rebellion of 1857,
  • via a vis Assam (১৯৫৭)
  • Wadis Account of Assam (১৯২৭ )

সাংবাদিকরূপে বেণুধর শর্মাসম্পাদনা

  • ১৯০৫ সাল থেকে তিনি 'অসম বন্তি', 'অসম বিলাসিনী, অসমীয়া, 'অমৃতবাজার পত্রিকা, 'স্টেটসম্যান' এবং 'পায়নিয়ার' ইত্যাদি কাগজে লিখতে আরম্ভ করেছিলেন।
  • ১৯৩৫ সাল থেকে দেড় বছর তিনি 'দৈনিক বাতরি'র সহকারী সম্পাদক পদে কার্যনির্বাহ করেছিলেন।
  • ১৯৩৭ সাল থেকে দু'বছর ধরে 'তরুণ অসম' কাগজে তিনি সম্পাদনা করেছিলেন[৭]

মুক্তিযোদ্ধারূপে বেণুধর শর্মাসম্পাদনা

অন্যান্য কর্মরাজীসম্পাদনা

পুরস্কারসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার বিজয়ী অসমীয়াদের তথ্য"। সাহিত্য একাডেমি। ৭ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নবেম্বর ১৬, ২০১২  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. সাহিত্য অকাডেমি বঁটা বিজয়ী অসমীয়া, লেখক :- সমীন কলিতা(পৃষ্ঠা নং- ১৭)
  3. ১৯১৭ সালের থেকে অসম সাহিত্য সভার সভাপতিদের তালিকা ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৯ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে অসম সাহিত্য সভার ওয়েবসাইট, আহরণ: ১৮ নবেম্বর, ২০১২।
  4. ত্রিদিপ গোস্বামী। পদ্মনাথ গোহাঞি বরুয়ার থেকে রংবং তেরাঙলৈ। অনন্ত হাজরিকা, বনলতা প্রকাশন। পৃষ্ঠা ৭৮,৭৯।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "বেণুধর শর্মা" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  5. সাহিত্য অকাডেমি বঁটা বিজয়ী অসমীয়া, লেখক :- সমীন কলিতা(পৃষ্ঠা নং- ২১)
  6. Amaresh Datta (১৯৮৭)। Encyclopaedia of Indian Literature: A-Devo। Sahitya Akademi। পৃষ্ঠা 273–। আইএসবিএন 978-81-260-1803-1। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০১২ 
  7. সাহিত্য অকাডেমি বঁটা বিজয়ী অসমীয়া, লেখক: সমীন কলিতা (পৃষ্ঠা নং- ২০)

টেমপ্লেট:Navbox assam biography