শিবসাগর জেলা

আসাম রাজ্যের একটি জেলা

শিবসাগর জেলা {উচ্চারণ: ˈsɪvəˌsʌgə(r) or ˈʃɪvəˌsʌgə(r)} (অসমীয়া: শিৱসাগৰ জিলা), ভারতের অসম রাজ্যের একটি প্ৰশাসনিক জিলা৷ ঐতিহাসিকভাবে একটি অতি গুৰুত্বপূৰ্ণ জেলা। ছয়শ বছরের আহোম রাজবংশের বহু উত্থান-পতনের সাক্ষী এই শিবসাগর। সমগ্ৰ জিলাতে আসামের শাসনকালের অনেক স্থাপত্য, ভাস্কৰ্য, ময়দান, পুকুর, গড়, আলিবাট আদি স্থাপনা আছে।

শিবসাগর জেলা
জেলা
(ওপরের থেকে ঘড়ির কাঁটার দিকে) শিবসাগরের শিবদৌল, শরাগুরি চাপরির আজানপীরের দরগাহ, গড়গাঁও-এর কারেংঘর, রংঘর, এবং নিশার শিবসাগর পুকুর
(ওপরের থেকে ঘড়ির কাঁটার দিকে) শিবসাগরের শিবদৌল, শরাগুরি চাপরির আজানপীরের দরগাহ, গড়গাঁও-এর কারেংঘর, রংঘর, এবং নিশার শিবসাগর পুকুর
শিবসাগর জিলার অবস্থান
শিবসাগর জিলার অবস্থান
দেশ ভারত
রাজ্যআসাম
সদরশিবসাগর
আয়তন
 • মোট২,৬৬৮ বর্গকিমি (১,০৩০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (2009)
 • মোট২৫,০৮,০২১
 • জনঘনত্ব৯৪০/বর্গকিমি (২,৪০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলভারতীয় মান সময় (ইউটিসি+5:30)
ওয়েবসাইটsivasagar.nic.in

শিবসাগর নামের উৎপত্তিসম্পাদনা

স্বৰ্গদেবতা রুদ্ৰসিংহর মৃত্যুর শিবসিংহ রাজসিংহাসনে বসে। সিংহাসনে বহি চার গৰাকী কুঁৱৰী থকাৰ পিছতো স্বৰ্গদেও শিৱসিংহই চিনাতলীয়া নটৰ জীয়েক ফুলমতী বা ফুলেশ্বরিকে পৰ্বতীয়া কুঁবরি করে আনে।রাজার কুঁবরী হয়ে ফুলমতী নাম নেয় প্ৰমথেশ্বরী। ফুলেশ্বরী কুঁবরী কেবল সুন্দরী ছিলেন না,, ছিলেন অতি বুদ্ধিমতী এবং উচ্চাভিলাষী। রাজ্যাভিষেক হবার ছমাস না হতেই 'ছত্ৰভঙ্গ যোগ' পরার চেলু উলিয়াই স্বৰ্গদেবতাকে রাজকাৰ্যের জন্য অব্যাহতি দিলেন এবং সোনা রূপার মোহর মেরে নিজে বড় রাজা হ'ল। কিন্তু এহেন প্ৰতাপী রাণীরও প্ৰতাপের এদিন শেষ হ'ল। প্ৰসব বেদনাতে জৰ্জরিত হয়ে ফুলেশ্বরী কুঁবরী ঢুকাই থাকিল। ফুলেশ্বরী কুঁবরীর মৃত্যুর পিছনে তেওঁরে ভনীয়েক দ্ৰৌপদীক স্বৰ্গদেবে বিবাহ করায়। রাণী হয়ে দ্ৰৌপদী অম্বিকা নাম নেয়। এইবার বড় রাজা হ'ল অম্বিকা। বড় রাজা হয়ে অম্বিকাই স্বামী শিবসিংহের নামে একটা পুকুর খোঁড়ে এবং তার পাড়ে দৌল নিৰ্মাণ করায়। এই পুকুরটায় হ'ল শিবসাগর পুখুৰী।[১] আহোম শাসনের প্ৰশাসনীয় কেন্দ্ৰ আছিল রংপুর নগর। কারেংঘরকে কেন্দ্ৰ করে চারপাশের অঞ্চলটি ছিল তাহানির রংপুর। বৃটিশরা এসে প্ৰথমে শিবসাগৰ পুকুরের আশে-পাশে এই অঞ্চলের প্ৰশাসনীয় কেন্দ্ৰ স্থাপন করেছিল। তারপর থেকে কালক্রমে এ অঞ্চলকে ধীরে ধীরে শিবসাগর নামে পরিচিত হয়।

ইতিহাসসম্পাদনা

অৰ্থনৈতিক গুরুত্বসম্পাদনা

শিবসাগরের অৰ্থনীতি প্ৰধানত তেল গাছ, চা, এবং কৃষির ওপরে নিৰ্ভরশীল৷

ভৌগলিক বিবরণসম্পাদনা

  • শিবসাগর জেলার অবস্থানঃ
    ২৬.৪৫- ২৭.১৫ ডিগ্ৰী উত্তৰ অক্ষাংশ আৰু ৯৪.২৫- ৯৫.২৫ ডিগ্ৰী পূব দ্ৰাঘিমাংশত অৱস্থিত।
  • মাটি কালিঃ
    ২৬৬৮ বৰ্গ কিঃমিঃ
  • জলবায়ুঃ
  • বাৰ্ষিক বৃষ্টিপাতঃ
  • গড় আৰ্দ্ৰতাঃ
  • তাপমাত্ৰাঃ
    উচ্চতম:....... ডিগ্ৰী চেলচিয়াচ
    নিম্নতম:..... ডিগ্ৰী চেলচিয়াচ
  • চারিসীমাঃ
উত্তরে ব্ৰহ্মপুত্ৰ নদী
পূর্বে ডিব্ৰুগড় জেলা
দক্ষিণে নাগালেণ্ড এবং অরুণাচল প্ৰদেশ
পশ্চিমে যোরহাট জিলা।
  • জিলাটির উল্লেখযোগ্য নদীঃ
    জিলাটির উত্তর দিকে ব্ৰহ্মপুত্ৰ নদী বয়ে গেছে। অন্য প্ৰধান নদীসমূহ হ'ল- দিচাং, দিখৌ, দরিকা, জাঁজী।

জন গাঁথনিসম্পাদনা

২০১১ সনের লোকগণনা অনুসারে শিবসাগর জেলার জনসংখ্যা ১,১৫০,২৫৩ জন; ইয়াৰে পুরুষ ৫,৮৯,৪৫৪ জন এবং মহিলা ৫৬০,৭৯৯ জন। মহিলার সংখ্যা প্ৰতি ১০০০ পুরুষের বিপরীতে ৯৫১ জনী। জন-ঘনত্ব প্ৰতি বৰ্গ কিঃমিঃ-এ ৪৩১ জন। প্রতি বছরে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ৯.৩৭%। স্বাক্ষরতার হার ৮১.৩৬%।[২]

প্ৰশাসনিক গাঁথনি[৩]সম্পাদনা

জিলা সদর

শিৱসাগর নগর

শিৱসাগর জেলা ৩টা মহকুমা নিয়ে গঠিত-

১.শিবসাগর মহকুমা
২.নাজিরা মহকুমা
৩.চরাইদেও মহকুমা

জিলাটির উন্নয়ন খণ্ড ৮ টা সেইকয়টা হচ্ছে

১.আমগুরি
২.ডিমৌ
৩.গৌরীসাগর
৪.নাজিরা
৫.সোণারি (দিচাংপানী) (গাঁও পঞ্চায়ত ১১খন)
৬.লাকুবা (গাঁও পঞ্চায়ত ৪খন)
৭.সাপেখাটী (গাঁও পঞ্চায়ত ১৫খন)
৮.পশ্চিম অভয়পুর (গাঁও পঞ্চায়ত ৬খন)
৯.খেলুবা

শিবসাগর জিলার মোট পৌর নগর ৬ খান

শিবসাগর
শিমলুগুরি
আমগুরি
নাজিরা
সোণারি
মরাণহাট

জেলাটি বিধানসভার মোট সমষ্টি ৬টা-

১০৩, আমগুরি
১০৪, নাজিরা
১০৫, মাহমরা
১০৬, সোণারি
১০৭, থাওরা
১০৮, শিবসাগর

শিবসাগরের বৰ্তমানের উপায়ুক্ত-যতীন্দ্ৰ লহকর আরক্ষী অধীক্ষক-অখিলেষ সিং

যাতায়াতসম্পাদনা

উল্লেখযোগ্য শিক্ষানুষ্ঠানসম্পাদনা

  • শিবসাগর মহাবিদ্যালয়, জয়সাগর
  • শিবসাগর ছোবালী মহাবিদ্যালয়
  • শিবসাগর বাণিজ্য মহাবিদ্যালয়
  • গড়গাঁও মহাবিদ্যালয়
  • লাচিত বরফুকণ মহাবিদ্যালয়
  • শহীদ পিয়লি ফুকণ মহাবিদ্যালয়,নামতি
  • সোণারি মহাবিদ্যালয়
  • মরাণ মহাবিদ্যালয়
  • ডিমৌ মহাবিদ্যালয়
  • শিবসাগৰ সরকারি উচ্চতর মাধ্যমিক বহুমুখী বিদ্যালয়
  • ফুলেশ্বরী উচ্চতর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়
  • গধূলা ব্ৰাউন মেমরিয়েল স্কুল
  • ছ’ফি মাৰ্চি মেমরিয়েল স্কুল
  • ডিমৌ উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়
  • দিল্লী পাব্লিক স্কুল, নাজিরা
  • শিবসাগর জাতীয় বিদ্যালয়
  • কেন্দ্ৰীয় বিদ্যালয় (তেল এবং প্ৰাকৃতিক গেছ নিগম)

জিলার উল্লেখযোগ্যস্থানসমূহ[৪]সম্পাদনা

  1. কারেংঘর বা (তলাতল ঘর)
    শিবসাগরের মূল কেন্দ্ৰ থেকে মাত্ৰ ৩ কিঃমিঃ দূরত্বে অবস্থিত। স্বৰ্গদেও রাজেশ্বর সিংহই (১৭৫১- ৬৯ খ্রিষ্টাব্দ) নিৰ্মাণ করেছিল।
  2. রংঘর
    এই রংঘরে বসে আহোম স্বৰ্গদেবতা সকলে সপৰিয়ালে খেল-ধেমালী এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেছিল। এশিয়ার প্ৰথম পেভিলিয়ন হিসাবে প্ৰখ্যাত রংঘর ১৭৪৬ সনে প্ৰমত্ত সিংহই নিৰ্মাণ করেছিল।
  3. শিবসাগর পুকুর এবং শিবদৌল
    রাণী অম্বিকা দেবী স্বামী শিবসিংহের নামে শিবসাগর পুকুর খনন করে তার পাড়ে শিবদৌল নিৰ্মাণ করে। এই দৌল ভারতের আটাইবোর ঐতিহাসিক মন্দিরের ভিতরে উল্লকেখ্য। একটা চৌহদ্দী এবং দুটা দৌল আছে- দেবী দৌল এবং বিষ্ণু দৌল।
  4. নামদাঙের শিলের সাঁকো
    নামদাং নদীর ওপরে গোটা শিলের নিৰ্মিত সাকো। ১৭০৩ সনে রুদ্ৰসিংহই নিৰ্মাণ করাইছিল। ৩৭ নং রাষ্ট্ৰীয় সড়কপথ এই সাকোর ওপর দিয়ে পার হয়ে গেছে।
  5. আজানপীরের দরগাহ

গ্যালারিসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. লীলা গগৈ (২০০৭ চন)। বেলি মাৰ গ'ল। ডিব্ৰুগড়: বনলতা।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  2. "Population of Sivasagar District"। সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ January 09, 2012  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. "Sivasagar district at a glance"। সংগ্রহের তারিখ January 09, 2012  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  4. "Places of tourist attraction"। সংগ্রহের তারিখ January 09, 2012  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)