বাংলাদেশ প্রশাসনিক সেবা সমিতি

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন হল বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের প্রশাসন ক্যাডারের একটি অ্যাসোসিয়েশন। [১] [২] [৩] সমিতির সভাপতি কবির বিন আনোয়ার এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান[৪]

বাংলাদেশ প্রশাসনিক সেবা সমিতি
গঠিত১৯৮১
সদরদপ্তরঢাকা, বাংলাদেশ
যে অঞ্চলে
বাংলাদেশ
দাপ্তরিক ভাষা
বাঙালি
ওয়েবসাইটbasa.org.bd

ইতিহাস সম্পাদনা

বাংলাদেশ প্রশাসনিক সেবা সমিতি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের প্রশাসন ক্যাডারের জন্য ১৯ এপ্রিল ১৯৮১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। [৫] এসোসিয়েশনের চেয়ারপারসন বিয়াম ফাউন্ডেশনেরও চেয়ারপারসন। [৬]

২৯ অক্টোবর ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার, সরকার এবং সমিতির মধ্যে আলোচনার পর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের বিচার থেকে অনাক্রম্যতা প্রদান করে। [৭] তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিচার বিভাগ এবং নির্বাহী বিভাগকে আলাদা করার বিরোধিতা করেছিল সমিতিটি। [৮] [৯] তাদের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেছে বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন[১০] ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর, সমিতি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের বিচারিক ক্ষমতার জন্য আবার লবিং শুরু করে। [১১] [১২]

২০১৭ সালের জুলাই মাসে, একটি আমন্ত্রণ কার্ডে রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের বিকৃত ছবি প্রকাশের জন্য আওয়ামী লীগের বরিশাল জেলা শাখার ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুল্লাহ সাজু তার বিরুদ্ধে মামলা করার পর বরগুনা সদর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিক সালমানকে গ্রেপ্তারের সমালোচনা করে সমিতি। [১৩] ওই মামলায় ওবায়দুল্লাহকে আওয়ামী লীগ সাময়িক বরখাস্ত করে। [১৪]

বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের পুলিশ ক্যাডারের প্রতিনিধিত্ব [১৫] এবং দুটি অ্যাসোসিয়েশন ২০১৮ সালে একসঙ্গে কাজ করতে সম্মত হয়।

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন ১২ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে অপমান না করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে দেশব্যাপী অনুষ্ঠান করেছে। [১৬] ৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, বাংলাদেশ প্রশাসনিক সেবা সমিতি ঘোড়াঘাট উপজেলার ইউএনও ওয়াহিদা খানমের একটি ডাকাতি ও হামলাকে পূর্বপরিকল্পিত বলে বর্ণনা করে। [১৭]

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন ২০ আগস্ট ২০২১ তারিখে বরিশালের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহকে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনিবুর রহমানের সরকারি বাসভবনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এবং মেয়রের অফিসের কর্মীদের দ্বারা হামলার পর। [১৮] [১৯] মুনিবুর রহমান উপস্থিত বাংলাদেশ আনসার কর্মীদের গুলি চালানোর নির্দেশ দেওয়ার পর কয়েকজন গুলিবিদ্ধসহ ৫০ জন আহত হন। [২০] সমিতি মেয়র ও তার কর্মীদের রাজনৈতিক গুণ্ডা বলে অভিহিত করেছে। [২১] সমিতির বিবৃতিতে ব্যবহৃত ভাষা প্রশাসনের সিনিয়র ক্যাডারদের দ্বারা সমালোচিত হয়েছিল। [২২] [২৩]

আরো দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Bhattacharjee, ParthaPratim; Adhikary, Tuhin Shubhra (২০১৮-০৭-০২)। "UNOs under scanner"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ Bhattacharjee, ParthaPratim; Adhikary, Tuhin Shubhra (2018-07-02). "UNOs under scanner". The Daily Star. Retrieved 2021-09-19.
  2. "Yahoo Mail"mail.yahoo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Yahoo Mail". mail.yahoo.com. Retrieved 2021-09-19.
  3. "Admin officials fear deprivation for contractual appointment"Prothom Alo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Admin officials fear deprivation for contractual appointment". Prothom Alo. Retrieved 2021-09-19.{{cite web}}: CS1 maint: url-status (link)
  4. "Home BASA"basa.org.bd। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ "Home BASA". basa.org.bd. Retrieved 19 September 2021.
  5. "About BASA"basa.org.bd। BASA। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  6. "Governing Body"BIAM Foundation। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ "Governing Body". BIAM Foundation. Retrieved 19 September 2021.{{cite web}}: CS1 maint: url-status (link)
  7. "Executive magistrates cannot be sued"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৭-১০-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  8. Staff Correspondent (২০০৭-১০-২৩)। "Govt, admin cadre meet to end row"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ Staff Correspondent (2007-10-23). "Govt, admin cadre meet to end row". The Daily Star. Retrieved 2021-09-19.
  9. Chowdhury, Rezauddin M. (২০০৭-১১-০১)। "In quest of reasons for recent outburst of civil servants"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ Chowdhury, Rezauddin M. (2007-11-01). "In quest of reasons for recent outburst of civil servants". The Daily Star. Retrieved 2021-09-19.
  10. "Judicial service men criticise admin officials' stance"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৭-১০-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Judicial service men criticise admin officials' stance". The Daily Star. 2007-10-22. Retrieved 2021-09-19.{{cite web}}: CS1 maint: url-status (link)
  11. Liton, Shakhawat (২০০৯-০৩-০৯)। "Desperate bid for judicial power"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ Liton, Shakhawat (2009-03-09). "Desperate bid for judicial power". The Daily Star. Retrieved 2021-09-19.
  12. "Admin may get back judicial horns"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০০৯-০৩-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Admin may get back judicial horns". The Daily Star. 2009-03-10. Retrieved 2021-09-19.{{cite web}}: CS1 maint: url-status (link)
  13. Report, Star Online (২০১৭-০৭-২১)। "Admin association criticises arrest of UNO"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  14. "Case Against UNO: AL suspends Barisal leader"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৭-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Case Against UNO: AL suspends Barisal leader". The Daily Star. 2017-07-22. Retrieved 2021-09-19.{{cite web}}: CS1 maint: url-status (link)
  15. "Reunion of admin, police services associations held in Dhaka"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৭-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  16. "Won't allow insults against Bangabandhu: Government officials pledge"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-১২-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  17. "Attack on UNO premeditated, not burglary: Bangladesh Administrative Service Association"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০৯-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  18. "Administrative service association demands arrest of Barishal mayor"New Age (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  19. "Admin cadre body demand arrest of Barishal city Mayor - Front Page - observerbd.com"The Daily Observer। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  20. "AL feud behind Barishal violence"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৮-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ 
  21. Anam, Mahfuz (২০২১-০৯-০৩)। "Column by Mahfuz Anam: Who do our 'public servants' serve?"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ Anam, Mahfuz (2021-09-03). "Column by Mahfuz Anam: Who do our 'public servants' serve?". The Daily Star. Retrieved 2021-09-19.
  22. "Barishal Violence: Top bureaucrats disagree with BASA statement"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৮-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "Barishal Violence: Top bureaucrats disagree with BASA statement". The Daily Star. 2021-08-24. Retrieved 2021-09-19.{{cite news}}: CS1 maint: url-status (link)
  23. "'Using inappropriate words in statement over Barishal incident was mistake'"The Financial Express (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১৯ "'Using inappropriate words in statement over Barishal incident was mistake'". The Financial Express. Retrieved 2021-09-19.{{cite news}}: CS1 maint: url-status (link)