নজদ ও হেজাজ রাজতন্ত্র

হিজাজ ও নাজদের মালিকানা (আরবি : مملكة الحجاز ونجد) ১৯২৫ সালে নজদ সালতানাত কর্তৃক হেজাজ জয়ের পর গঠিত হয়। ১৯২৬ সালের ৮ জানুয়ারি নজদের সুলতান আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ মক্কায় রাজা হিসেবে অধিষ্ঠিত হন। ১৯২৭ সালের ২৭ জানুয়ারি তিনি নজদকে রাজতন্ত্র হিসেবে উন্নীত করেন।[১] ১৯২৭ সালের ২০ মে জেদ্দার চুক্তির মাধ্যমে যুক্তরাজ্য আবদুল আজিজের রাজত্বকে স্বীকৃতি দেয় এবং এরপর থেকে হিজাজ ও নাজদের মালিকানা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

হিজাজ ও নাজদের মালিকানা

مملكة الحجاز ونجد
Mamlakat al-Ḥijāz wa Najd
১৯২৬–১৯৩২
আরব উপদ্বীপে নজদ (বেগুনি-নীল কেন্দ্রীয় এলাকা) এবং হেজাজ (বামদিকের সবুজ এলাকা)।
আরব উপদ্বীপে নজদ (বেগুনি-নীল কেন্দ্রীয় এলাকা) এবং
হেজাজ (বামদিকের সবুজ এলাকা)।
অবস্থানজদহেজাজের রাজনৈতিক ঐক্য
রাজধানীরিয়াদ
প্রচলিত ভাষাআরবি
উসমানীয় তুর্কি
ধর্ম
ইসলাম
সরকারপূর্ণ রাজতন্ত্র
হেজাজের রাজা
নজদের সুলতান/রাজা
 
• ১৯২৫–১৯৩২
আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ
ঐতিহাসিক যুগযুদ্ধকালীন সময়
১৯ ডিসেম্বর ১৯২৫
• আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ হেজাজের রাজা হিসেবে অধিষ্ঠিত
৮ জানুয়ারি ১৯২৬
• সৌদি আরব প্রতিষ্ঠা
২৩ সেপ্টেম্বর ১৯৩২
আয়তন
১৯৩২২১,৪৯,৬৯০ বর্গকিলোমিটার (৮,৩০,০০০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা
টেমপ্লেট:Infobox country/multirow
পূর্বসূরী
উত্তরসূরী
নজদ সালতানাত
হেজাজ রাজতন্ত্র
সৌদি আরব

পরবর্তী পাঁচ বছর আবদুল আজিজ এই দুই অঞ্চলকে আলাদা রাজ্য হিসেবে শাসন করেন। ১৯৩২ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর সৌদি শাসিত প্রধান অঞ্চল আল-হাসা, কাতিফ, নজদহেজাজ কে নিয়ে সৌদি আরব গঠিত হয়।

বৈদেশিক নীতিসম্পাদনা

হিজাজ ও নাজদের মালিকানার সাথে যুক্তরাজ্যের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। ব্রিটিশদের দ্বারা সরবরাহকৃত অস্ত্রের মাধ্যমে তারা তাদের রাজ্য সম্প্রসারণনীতি বাস্তবায়ন করতে সক্ষম ছিল। আবদুল আজিজের অধীন থাকাবস্থায় হেজাজ লীগ অব নেশনস ত্যাগ করে। ১৯২৬ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ও ১৯৩১ সালে যুক্তরাষ্ট্র এই রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দেয়। ১৯৩২ সাল নাগাদ যুক্তরাজ্য, সোভিয়েত ইউনিয়ন, তুরস্ক, পারস্যনেদারল্যান্ডস কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে। ফ্রান্স, ইতালিমিশর অল্পবিস্তর সম্পর্ক স্থাপন করে।

নজদ ও হেজাজের পতাকাসম্পাদনা

নোটসম্পাদনা

  1. Joseph Kostiner, The Making of Saudi Arabia, 1916–1936: From Chieftaincy to Monarchical State (Oxford University Press US, 1993), আইএসবিএন ০-১৯-৫০৭৪৪০-৮, p104

তথ্যসূত্রসম্পাদনা