প্রধান মেনু খুলুন
বিশ্ব রেকর্ডরত অবস্থায় সুরেশ জোচেম

গিনেস বিশ্ব রেকর্ড (ইংরেজি: Guiness World Records) যা ২০০০ সালে থেকে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস নামে পরিচিত। এটি একটি বার্ষিক প্রকাশনাবিশেষ। এতে বিশ্বের যাবতীয় রেকর্ডসমূহ নথিবদ্ধ থাকে।

পরিচ্ছেদসমূহ

সূচনাসম্পাদনা

১৭৫৯ সালে আর্থার গিনেস ডাবলিনের সেন্ট জেমস্‌ গেট নামক স্থানে গিনেস ব্রিউরি নামক একটি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেন।[১]

বৃহৎ গলদা-চিংড়িসম্পাদনা

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গলদা-চিংড়ি পাওয়া গেছে কানাডার নোভা স্কোটিয়ায়। এটি ২০.১৫ কিলোগ্রাম (৪৪.৪ পা) ওজনের।[২][৩]

দূরত্বে বুমেরাং নিক্ষেপসম্পাদনা

১,৪০১.৫ ফুট বা ৪২৭.২ মিটার দূরত্বে বুমেরাং নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। ডেভিড সুমি নামীয় ব্যক্তি ১৫ মার্চ, ২০০৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার মুরারি রিক্রিয়েশন গ্রাউন্ডে বুমেরাং নিক্ষেপ করে দূরত্বে গিনেস বিশ্ব রেকর্ড গড়েন।[৪] এর মাধ্যমে তিনি ১৪ জুলাই, ২০০৩ সালে স্যান ফ্রান্সিসকো'র ফোর্ট ফানস্টোনে ইরিন হেমিংসের নিক্ষেপ করা পূর্বতন রেকর্ডটি ভেঙ্গে ফেলেন। ঐ সময় ইরিন ১,৩৩৩ ফুট (৪০৬.৩ মিটার) দূরত্বে এরোবি বা গোলাকার বুমেরাং নিক্ষেপ করেছিলেন।[৫]

ট্র্যাকে মাথায় বল নিয়ে দ্রুততম হাটাসম্পাদনা

মার্সেলের পৃষ্ঠপোষকতায় ২০১১ সালের ২২ অক্টোবর ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ট্র্যাকে মাথায় বল নিয়ে টানা ১৫.২ কিলোমিটার হাঁটার ভিডিও দৃশ্য ধারণ করে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করেন বাংলাদেশের আব্দুল হালিম। তিনি পেছনে ফেলেছিলেন ১১.১২ কিলোমিটার পথ হেঁটে বিশ্ব রেকর্ড গড়া মালয়েশিয়ার ই মিং লুকে। [৬]

মাথায় বল নিয়ে দ্রুততম স্কেটিংসম্পাদনা

২০১৫ সালের ২২ নভেম্বর ওয়ালটনের ব্যানারে ঢাকায় মাথায় বল নিয়ে দ্রুততম সময়ে স্কেটিং জুতা পরে ১০০ মিটার অতিক্রম করেন বাংলাদেশের আব্দুল হালিমকমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ২ নম্বর প্লাটফর্মে তিনি এই খেলা প্রদর্শন করে ২৭.৬৬ সেকেন্ডেই নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছান। ল্যাপে ওই দূরত্ব অতিক্রম করতে সময় নিয়েছিলেন ২ ঘণ্টা ৪৯ মিনিট ৫৩ সেকেন্ড। এই প্রচেষ্টার ভিডিও ফুটেজ ও অন্যান্য প্রমাণ গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কর্তৃপক্ষ যাচাই-বাছাই করে ২০১৬ সালের ২৩ মার্চ স্বীকৃতি দেয়।এই রেকর্ডটি এখন পর্যন্ত অন্য কেউ করতে পারেনি। [৭]

গিনেস বুকে বাংলাদেশীসম্পাদনা

বাংলাদেশের সুদর্শন দাশ নামের এক বাঙালি ঢোল বাদক টানা ২৭ ঘণ্টা ঢোল বাজিয়ে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করেন। ২০১৭ সালের ২৫ জুলাই তাকে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড কমিটি স্বীকৃতি দেয়।তার বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলায়। এত সময় ধরে ঢোল বাজানোর রেকর্ড এর পূর্বে কেউ করতে পারে নি।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. গিনেসবুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস ১৯৯৮
  2. "Heaviest marine crustacean"Guinness World Records। ২৮ মে ২০০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ৩, ২০০৬ 
  3. "Giant lobster landed by boy, 16"BBC News। জুন ২৬, ২০০৬। 
  4. Longest Boomerang Throw
  5. "First Quarter Mile Throw in History at Fort Funston"Business WireBusiness Wire। ২০০৩-০৭-১৬। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০০৯ 
  6. http://dailyprothomprohor.com/news/951[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১৫ মে ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৬ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা