প্রধান মেনু খুলুন
একটি সাধারণ ক্রেডিট কার্ডের সম্মুখভাগ:
  1. Issuing bank logo
  2. EMV chip
  3. Hologram
  4. Credit card number
  5. Card brand logo
  6. Expiry Date
  7. Cardholder's name
একটি সাধারণ ক্রেডিট কার্ডের পশ্চাৎভাগ:
  1. Magnetic Stripe
  2. Signature Strip
  3. Card Security Code

ক্রেডিট কার্ড হল একটি বিশেষ ধরনের পরিশোধ ব্যবস্থার অংশ হিসেবে ব্যবহৃত প্লাস্টিক কার্ড, যা ওই পরিশোধ ব্যবস্থার ব্যবহারকারীদেরকে ইস্যু করা হয়। এই কার্ডের বাহক পণ্য ও সেবা ক্রয় করতে পারেন এবং মূল্য পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন।[১] সাধারণত স্থানীয় ব্যাংক বা ক্রেডিট ইউনিয়ন ভোক্তাদের কাছে এই কার্ডগুলি ইস্যু করে থাকে। ক্রেডিট কার্ডগুলির আকার-আকৃতি আইএসও ৭৮১০ আদর্শ মেনে চলে।

গ্রাহকসম্পাদনা

বাংলাদেশসম্পাদনা

২০১৯ সালের নভেম্বর মাস অনুযায়ী বাংলাদেশে ১২ লাখেরও বেশি ক্রেডিট কার্ড গ্রাহক ছিল।বাংলাদেশ ব্যাংকের মতে, অনলাইনে জুয়া খেলা, বৈদেশিক লেনদেন, ক্রিপ্টো কারেন্সি, লটারির টিকেট কেনা কিংবা বিদেশী প্রতিষ্ঠানের ভাগাভাগি কেনাবেচায় ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করা যায় না। [২]

সুবিধাসম্পাদনা

  • দ্রুত লেনদেন করা যায়।
  • পুরষ্কার পয়েন্ট সুবিধা পাওয়া যায়।
  • নগদ অর্থ বহনের ঝুঁকি থেকে মুক্তি
  • বর্তমানে প্রচলিত ডেবিট কার্ডের চেয়ে ক্রেডিট কার্ডের সুরক্ষা অনেক বেশি৷[২]

অসুবিধাসম্পাদনা

  • ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার করলে ঋণের ফাঁদে পড়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।
  • লুক্কায়িত ব্যয় হয়।
  • ভুল কার্ডে ঋণের বোঝা বাড়ার আশঙ্কা থাকে৷ [২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Sullivan, arthur (২০০৩)। Economics: Principles in action। Upper Saddle River, New Jersey 07458: Pearson Prentice Hall। পৃষ্ঠা 261। আইএসবিএন 0-13-063085-3 
  2. "ক্রেডিট কার্ড: বাংলাদেশের গ্রাহকরা কী কী কাজে ব্যবহার করতে পারেন, কী কাজে পারেন না-বিবিসি বাংলা"। সংগ্রহের তারিখ ২১ নভেম্বর ২০১৯