প্রধান মেনু খুলুন

কমিটি অব ইউনিয়ন এন্ড প্রোগ্রেস

কমিটি অব ইউনিয়ন এন্ড প্রোগ্রেস (CUP) (তুর্কী: İttihat ve Terakki Cemiyeti) ১৮৮৯ সালে ইস্তানবুলে মেডিকেল ছাত্র ইবরাহিম টেমো, আবদুল্লাহ জেভদেত, ইশাক সুকুটিআলি হুসাইনজাদে কর্তৃক একটি গোপন সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। এসময় এর নাম ছিল “কমিটি অব অটোমান ইউনিয়ন” (ইত্তিহাদ ই উস্মানি জেমিয়েতি)। পরে বাহাউদ্দিন সাকির এটিকে একটি রাজনৈতিক সংগঠনে (আরও পরে রাজনৈতিক দল) পরিণত করেন। ১৯০৬ সালে তরুণ তুর্কির সাথে জোট গঠন করা হয়।

কমিটি অব ইউনিয়ন এন্ড প্রোগ্রেস

إتحاد و ترقى (İttihad ve Terakki)
İttihad ve Terakki Cemiyeti
১৯১৩ সালের পর নেতা"তিন পাশা" (আনোয়ার পাশা, তালাত পাশা, জামাল পাশা)
স্লোগানহুররিয়াত, মুসাভাত, আদালত[১] (স্বাধীনতা, সাম্য, ন্যায়বিচার)
প্রতিষ্ঠা১৮৮৯
ভাঙ্গন১৯১৮
সদর দপ্তরইস্তানবুল (এর পূর্বে সেলোনিকা)
মতাদর্শপ্যান টার্কি‌জম
জাতীয় অধিভুক্তিউসমানীয় সাম্রাজ্য

প্রথমে একটি উদার সংস্কার আন্দোলন হিসেবে এর সূচনা হয়। উসমানীয় সরকার কর্তৃক দলটি সাম্রাজ্যের গণতন্ত্রকরণের ডাক দেয়ার কারণে নিপীড়নের স্বীকার হয়। ১৯০৮ সালের তরুণ তুর্কি বিপ্লবে দল ক্ষমতা লাভ করার পর ১৯১২ সালের সাধারণ নির্বাচন ও ১৯১৩ সালের সামরিক অভ্যুথানে ক্ষমতা সংহত করা হয়। এসময় তিন পাশা বলে খ্যাত আনোয়ার পাশা, তালাত পাশাজামাল পাশা সাম্রাজ্যের শাসকে পরিণত হন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় এই নেতৃত্বের বিরুদ্ধে আর্মেনীয় গণহত্যার অভিযোগ রয়েছে।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার পর দলের অধিকাংশ সদস্যের সামরিক আদালতে বিচার হয় ও কারারুদ্ধ করা হয়। ১৯২৬ সালে কামাল আতাতুর্ককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে কয়েকজন সদস্যের মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়। বাকি সদস্যরা রিপাবলিকান পিপলস পার্টি (তুর্কী: Cumhuriyet Halk Partisi, CHP) ও অন্যান্য দলের সদস্য হিসেবে রাজনৈতিক জীবন চালিয়ে যান।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. پاره، دولت اعليه، قوسطنطنيه، رشاد، 1908 ۲۰

বহিঃসংযোগসম্পাদনা