আবদুর রব মিঞা ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের সৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, মুক্তিযোদ্ধা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন রাজনীতিবিদ ও সাবেক সংসদ সদস্য।[১]

আবদুর রব মিঞা
জন্ম১৮ জুন, ১৯৩৪
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত
 পাকিস্তান
 বাংলাদেশ
পেশারাজনীতি
পরিচিতির কারণ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের সৈনিক
মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক
মুক্তিযোদ্ধা
রাজনীতিবিদ,
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
পিতা-মাতামরহুম খান বাহাদুর আমীন মিঞা (পিতা)

জন্ম ও প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

আবদুর রব মিঞা ১৮ জুন, ১৯৩৪ সালে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের চাঁদপুর জেলার অন্তর্গত হাজীগঞ্জ উপজেলার মকিমাবাদ মিঞা বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম মরহুম খান বাহাদুর আমীন মিঞা।

শিক্ষা ও কর্মজীবনসম্পাদনা

তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স সম্পূর্ণ করেন। তিনি কর্মজীবনে একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

তিনি ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে তিনি উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা ছিলেন। রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সংগ্রামে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একজন সহযোদ্ধা ছিলেন। উক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরবর্তীতে মাস্টার্স শেষ করে নিজ দেশের বাড়ি চাঁদপুর জেলায় এসে তার পরবর্তী রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু করেন। তিনি আওয়ামী লীগের একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি রাজনৈতিক জীবনে ১৯৭০ সালে তার নিজ নির্বাচনী এলাকা থেকে গণপরিষদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন এবং পাঁচ বছর পর ঐ একই আসন থেকে ১৯৮০ সালে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানসম্পাদনা

তিনি ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের সময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রনেতা ছিলেন। তখন তিনি বাংলা ভাষার জন্য সংগ্রাম ও আন্দোলন করেছেন। এছাড়াও মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি চাঁদপুর মহাকুমা সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ছিলেন।

মৃত্যুসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা