২০২৩ সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ


২০২৩ উয়েফা অ্যাসিস্ট অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ হবে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের ৫ম সংস্করণ,উয়েফা- এর সহযোগিতায় সাফ দ্বারা আয়োজিত মহিলাদের অনূর্ধ্ব-১৫ জাতীয় দলের জন্য একটি আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রতিযোগিতা। টুর্নামেন্টটি বাংলাদেশে ২০ থেকে ২৮ মার্চ ২০২৩ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এই অঞ্চলের পাঁচটি দল অংশ নেবে। [১] [২]

২০২৩ সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ
উয়েফা অ্যাসিস্ট সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ
বিবরণ
স্বাগতিক দেশবাংলাদেশ
শহরঢাকা
তারিখ২০–৩১ মার্চ ২০২৩
দল (২টি উপ-কনফেডারেশন থেকে)
মাঠ
চূড়ান্ত অবস্থান
চ্যাম্পিয়ন রাশিয়া (১ম শিরোপা)
রানার-আপ বাংলাদেশ
তৃতীয় স্থান ভারত
চতুর্থ স্থান   নেপাল
পরিসংখ্যান
ম্যাচ১০
গোল সংখ্যা৪৯ (ম্যাচ প্রতি ৪.৯টি)
দর্শক সংখ্যা৫,৭৮৩ (ম্যাচ প্রতি ৫৭৮ জন)
শীর্ষ গোলদাতাভারত শিলজি সাজি
(৮টি গোল)
সেরা খেলোয়াড়রাশিয়া এলেনা গোলিক
সেরা গোলরক্ষকনেপাল সুজাতা তামাং
ফেয়ার প্লে পুরস্কার ভারত

নেপাল হল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন যা লিগ টেবিলের শীর্ষের জন্য আগের ২০২২ সংস্করণের শিরোপা জিতেছে। [৩]

অংশগ্রহণকারী দেশগুলো সম্পাদনা

২০২৩ সালের ২১শে জানুয়ারি তারিখে, ফিফা কর্তৃক ফুটবল শ্রীলঙ্কাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল, যার ফলে শ্রীলঙ্কা এই আসরে অংশগ্রহণে অযোগ্য।[৪] ২০২২ সালে ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের জন্য ফিফা এবং উয়েফা কর্তৃক স্থগিতাদেশের পরে রাশিয়া প্রথমবারের মতো অতিথি দেশ হিসাবে টুর্নামেন্টে অংশ নিতে চলেছে।[৫][৬]

দল অংশগ্রহণ
সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপে
সেরা সাফল্য
  বাংলাদেশ ৩য় চ্যাম্পিয়ন্স (২০১৭)
  ভুটান ৩য় ৩য় (২০১৮)
  ভারত ৩য় চ্যাম্পিয়ন্স (২০১৮, ২০১৯)
    নেপাল ৩য় চ্যাম্পিয়ন্স (২০২২)
  রাশিয়া (আমন্ত্রিত অতিথি) ১ম অভিষেক

খেলোয়াড়দের যোগ্যতা সম্পাদনা

১ জানুয়ারি ২০০৭ বা তার পরে জন্মগ্রহণকারী খেলোয়াড়রা টুর্নামেন্টে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার যোগ্য। প্রতিটি দলকে সর্বনিম্ন ১৬ জন এবং সর্বোচ্চ ২৩ জন খেলোয়াড়ের একটি স্কোয়াড নিবন্ধন করতে হবে, যার মধ্যে ন্যূনতম দুইজনকে অবশ্যই গোলরক্ষক হতে হবে।

ভেন্যু সম্পাদনা

সবগুলো ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের ঢাকার বিএসএসএস মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে

ঢাকা
বিএসএসএস মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম
ক্ষমতা: ২৫,০০০
 

ম্যাচ পরিচালনা কর্মকর্তা সম্পাদনা

গ্রুপ পর্ব সম্পাদনা

টুর্নামেন্ট ফরম্যাট সম্পাদনা

গ্রুপ টেবিলে রঙের চাবিকাঠি চ্যাম্পিয়নকে সংজ্ঞায়িত করে
চ্যাম্পিয়ন

একক রাউন্ড-রবিন, প্রতিটি দল একে অপরের সাথে খেলবে. সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট পাওয়া দল চ্যাম্পিয়ন হবে।

টাইব্রেকার

দলগুলি পয়েন্ট (জয়ের জন্য ৩ পয়েন্ট) অনুযায়ী র ্যাংকিং করা হয়, ড্রয়ের জন্য ১ পয়েন্ট, পরাজয়ের জন্য ০ পয়েন্ট), এবং যদি পয়েন্টের সাথে আবদ্ধ হয় তবে র ্যাঙ্কিং নির্ধারণের জন্য প্রদত্ত ক্রমঅনুসারে নিম্নলিখিত টাইব্রেকিং পয়েন্ট প্রয়োগ করা হয়।

  1. টাই দলগুলোর মধ্যে হেড টু হেড ম্যাচে পয়েন্ট;
  2. টাই দলগুলির মধ্যে হেড-টু-হেড ম্যাচে গোল পার্থক্য;
  3. টাই দলের মধ্যে হেড টু হেড ম্যাচে গোল করা;
  4. যদি দুটির বেশি দল টাই থাকে, এবং উপরের সমস্ত হেড-টু-হেড মানদণ্ড প্রয়োগ করার পরে, দলগুলির একটি উপসেট এখনও বাঁধা থাকে, উপরের সমস্ত হেড-টু-হেড মানদণ্ডগুলি শুধুমাত্র এই টিমের উপসেটেই পুনরায় প্রয়োগ করা হয়;
  5. গ্রুপের সব ম্যাচে গোল পার্থক্য;
  6. গ্রুপের সব ম্যাচে করা গোল;
  7. পেনাল্টি শুট-আউট যদি কেবল দুটি দল সমান হয় এবং তারা গ্রুপের শেষ রাউন্ডে মুখোমুখি হয়;
  8. গ্রুপ পর্বের সকল ম্যাচে সর্বনিম্ন শাস্তিমূলক পয়েন্ট (একটি নির্দিষ্ট ম্যাচে একজন খেলোয়াড়ের জন্য শুধুমাত্র একটি নিয়ম প্রয়োগ করা হবে):
    1. হলুদ কার্ড = −১ পয়েন্ট;
    2. এক ম্যাচে দুটি হলুদ কার্ডের জন্য বহিষ্কার = −৩ পয়েন্ট;
    3. লাল কার্ড = −৩ পয়েন্ট;
    4. হলুদ কার্ডের পর সরাসরি লাল কার্ড = −৪ পয়েন্ট;

টেবিল পয়েন্ট সম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা
  রাশিয়া ১৭ +১৬ ১২ চ্যাম্পিয়ন
  বাংলাদেশ (H) ১০ +৫
  ভারত ১৩ +৯
    নেপাল −১
  ভুটান ৩১ −২৯
২৮ মার্চ ২০২৩ তারিখের খেলা শেষের পর হালনাগাদকৃত। উৎস: সাফ
(H) স্বাগতিক।

ম্যাচ সম্পাদনা

নেপাল    ১–৪  ভারত
  • বর্ষা অলি   ৫৪'
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (এআইএফএফ)
দর্শক সংখ্যা: ২০৩
রেফারি:   ইয়াংখে শেরিং (ভুটান)
ভুটান  ১–৮  বাংলাদেশ
  • প্রেয়া ঘ্যালি   ৬৪'
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (ইউএনবি)
  • শ্রীমতি তৃষ্ণা রানী   ১৬'২৮'
  • সুলতানা আক্তার   ৩৫'
  • সৌরভী আকন্দ প্রীতি   ৪২'
  • থুইনুয়ে মারমা   ৬০'৭৭'
  • মুন্নি   ৬১'
  • সাগরিকা   ৮৫'
দর্শক সংখ্যা: ৩১৪
রেফারি:   কনিকা বর্মণ (ভারত)

বাংলাদেশ  ০–৩  রাশিয়া
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (ইউএনবি)
  • এলেনা গোলিক   ৫'৪৫'
  • আনাস্তাসিয়া কারাতায়েভা   ৬২'
দর্শক সংখ্যা: ১,২০০
রেফারি:   অঞ্জনা রাই (নেপাল)
ভুটান  ০–৫    নেপাল
  • বর্ষা অলি   ১৬'৫০'
  • দীপা রোকায়া   ৩০'
  • সেনু পারিয়ার   ৩৪'৫৮'
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (গোল নেপাল)
দর্শক সংখ্যা: ৩২২
রেফারি:   জয়া চাকমা (বাংলাদেশ)

রাশিয়া  ৯–১  ভুটান
  • আনাস্তাসিয়া চেরনোসোভা   ১১'৪৬'৪৮'
  • এলেনা গোলিক   ১৪'
  • আনাস্তাসিয়া কারাতায়েভা   ৩৭'
  • এসেনিয়া কাডিনসেভা   ৪৫+৪'৫৯'
  • সোফিয়া গোলোভিনা   ৪৯'
  • পোলিনা বোগডানোভা   ৬৬'
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন টিবিএস
  • কিরা নাউমোভা   ৪৯' (আ.গো.)
দর্শক সংখ্যা: ৩১৩
রেফারি:   কণিকা বর্মণ (ভারত)
ভারত  ০–১  বাংলাদেশ
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (ডেইলি সান)
  • অখিলা রাজন   ৭৪' (আ.গো.)
দর্শক সংখ্যা: ১,৩২৪
রেফারি:  অঞ্জনা রাই (নেপাল)

ভারত  ৯–০  ভুটান
  • মেনাকা লোরেম্বাম   ৩'
  • শিলজি   ১২'৬২'৬৯'৭৬'৭৯'
  • সিবানী দেবী নংমেইকাপাম   ৪২'৬১'
  • থোইবিসন চানু তোইজম   ৫৬'
প্রতিবেদন (সাফ)
প্রতিবেদন (এআইএফএফ)
দর্শক সংখ্যা: ৪৫২
রেফারি:   অঞ্জনা রাই (নেপাল)
নেপাল    ০–৩  রাশিয়া
প্রতিবেদন (সাফ)
  • এলেনা গোলিক   ৬৩'৭৫'
  • পোলিনা ফিলশিনা   ৮৩'
দর্শক সংখ্যা: ৩২৬
রেফারি:   তামাং মীরা (ভুটান)

বাংলাদেশ  ১–১    নেপাল
  • সাগরিকা   ৭৫'
প্রতিবেদন (সাফ)
  • সেনু পারিয়ার   ৮'
দর্শক সংখ্যা: ৬০৭
রেফারি:   কণিকা বর্মণ (ভারত)
রাশিয়া  ২–০  ভারত
  • ভাসিলিসা অ্যাভডিয়েনকো   ১০'
  • দারিয়া কোটলোভা   ১৩'
প্রতিবেদন (সাফ)
দর্শক সংখ্যা: ৭১৩
রেফারি:   জয়া চাকমা (বাংলাদেশ)

পরিসংখ্যান সম্পাদনা

গোলদাতা সম্পাদনা

এই প্রতিযোগিতায় ৯টি ম্যাচে ৪৭টি গোল হয়েছে, যা ম্যাচ প্রতি গড়ে ৫.২২টি গোল (২৬ মার্চ ২০২৩ তারিখ অনুযায়ী)।

উৎস: সাফ

৮টি গোল
৫টি গোল
  •   এলেনা গোলিক
৩টি গোল
  •   সেনু পারিয়ার
  •   বর্ষা অলি
  •   আনাস্তাসিয়া চেরনোসোভা
২টি গোল
  •   মোসাম্মৎ সাগরিকা
  •   শ্রীমতি তৃষ্ণা রানী
  •   থুইনুয়ে মারমা
  •   এসেনিয়া কাডিনসেভা
  •   আনাস্তাসিয়া কারাতায়েভা
  •   সিবানী দেবী নংমেইকাপাম
১টি গোল
  •   মেনাকা লোরেম্বাম
  •   থোইবিসন চানু তোইজম
  •   প্রিয়া ঘ্যালি
  •   পূজা
  •   মোসাম্মৎ সুলতানা আক্তার
  •   সৌরবী আকন্দ প্রীতি
  •   মুন্নি
  •   দীপা রোকায়া
  •   পোলিনা বোগডানোভা
  •   সোফিয়া গোলোভিনা
  •   পোলিনা ফিলশিনা
  •   ভাসিলিসা অ্যাভডিয়েনকো
  •   দারিয়া কোটলোভা
আত্মঘাতি গোল
  •   অখিলা রাজন (বাংলাদেশের বিরুদ্ধে)
  •   কিরা নাউমোভা (ভুটানের বিরুদ্ধে)

বিজয়ী সম্পাদনা

 ২০২৩ সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ চ্যাম্পিয়ন 
 
রাশিয়া
১ম শিরোপা

পুরস্কার সম্পাদনা

২০২৩ সাফ অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপের জন পুরস্কার প্রদান:

ফেয়ার প্লে পুরস্কার সবচেয়ে টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড় সর্বোচ্চ গোলদাতা সেরা গোলরক্ষক
  ভারত   এলেনা গোলিক   শিলজি সাজি

(৮টি গোল করেছেন)

  সুজাতা তামাং

আরো দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "SAFF to announced 2023 tournament calendar"South Asian Football Federation। ১৭ আগস্ট ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ "SAFF to announced 2023 tournament calendar". South Asian Football Federation. 17 August 2022. Retrieved 25 September 2022.
  2. "SAFF to revise fixtures after FIFA bans India"Daily New Age। ১৭ আগস্ট ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ "SAFF to revise fixtures after FIFA bans India". Daily New Age. 17 August 2022. Retrieved 25 September 2022.
  3. "Nepal Crowned U-15 Women's SAFF Champions"www.goalnepal.com। ১১ নভেম্বর ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২২ 
  4. "Suspension of the Football Federation of Sri Lanka (FFSL) from 21 January 2023 until further notice" (পিডিএফ)FIFA। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০১-২৭ 
  5. @wfootball_bd। "Russia to play in the UEFA sponsored SAFF U17 Women's Championship in March." (টুইট) – টুইটার-এর মাধ্যমে। 
  6. "সাফে খেলবে রাশিয়া!"। Bangla Tribune। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩। ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০২৩