১৩তম বাচসাস পুরস্কার

১৩তম বাচসাস পুরস্কার হল বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি কর্তৃক প্রদত্ত বাচসাস পুরস্কারের ত্রয়োদশ আয়োজন। ১৯৮৫ সালের চলচ্চিত্রের বিভিন্ন ক্ষেত্রে সেরা অবদানের জন্য এই পুরস্কার প্রদান করা হয়। এই আয়োজনে ১৪টি বিভাগে ১২ জন বিজয়ীকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।[১] দহন চলচ্চিত্রটি সর্বাধিক ১০টি বিভাগে পুরস্কার অর্জন করে।

১৩তম বাচসাস পুরস্কার
পুরস্কার দেওয়া হয়১৯৮৫ সালে চলচ্চিত্রশিল্পে গৌরবোজ্জ্বল ও অসাধারণ অবদানের জন্য
পুরস্কার প্রদান করেবাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি
উপস্থাপিতবাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি
উপস্থাপন১৯৮৬
স্থানঢাকা, বাংলাদেশ
আলোকপাত
শ্রেষ্ঠ অভিনেতাহুমায়ুন ফরিদী
দহন
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীববিতা
দহন
সর্বাধিক পুরস্কারদহন (১০টি)
 ← ১২তম বাচসাস পুরস্কার ১৪তম → 

বিজয়ীদের তালিকাসম্পাদনা

চলচ্চিত্রসম্পাদনা

বিভাগ বিজয়ী চলচ্চিত্র
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র প্রদান করা হয়নি
শ্রেষ্ঠ পরিচালক শেখ নিয়ামত আলী দহন
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হুমায়ুন ফরিদী দহন
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী ববিতা দহন
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেতা আসাদুজ্জামান নূর দহন
শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদ দহন
শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালক আনামুল হক দহন
শ্রেষ্ঠ গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার শুভরাত্রি
শ্রেষ্ঠ পুরুষ কন্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী শুভরাত্রি
শ্রেষ্ঠ নারী কন্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন শুভরাত্রি
শ্রেষ্ঠ কাহিনীকার শেখ নিয়ামত আলী দহন
শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা শেখ নিয়ামত আলী দহন
শ্রেষ্ঠ চিত্রসম্পাদক সাইদুল আনাম টুটুল দহন
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক মাসুক হেলাল দহন

সাংবাদিকতাসম্পাদনা

  • এস এম পারভেজ স্মৃতি পুরস্কার: আলমগীর কবির ("ষাটের দশকে চলচ্চিত্র সমালোচনায় শব্দ চয়ন ও দৃষ্টিভঙ্গিতে কঠোর হওয়ার নতুন ধারার সৃষ্টি হয় এবং পরবর্তীতে এক্সপ্রেস ও সিকোয়েন্স পত্রিকার মাধ্যমে চলচ্চিত্র সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য")

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. জোয়াদ, আবদুল্লাহ (২০১০)। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র: পাঁচ দশকের ইতিহাস। ঢাকা: জ্যোতিপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ৪৭৭। আইএসবিএন 984-70194-0045-9 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: invalid prefix (সাহায্য)