হিন্দা-কসবা শাহী জামে মসজিদ

বাংলাদেশের মসজিদ

হিন্দা-কসবা শাহী জামে মসজিদ বাংলাদেশের জয়পুরহাট জেলায় অবস্থিত ইসলামী স্থাপত্য শিল্পের ছোয়ায় নির্মিত অন্যতম মসজিদ। জয়পুরহাট শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে ক্ষেতলাল উপজেলার বড়াইল ইউনিয়নের হিন্দা গ্রামে এ মসজিদটি অবস্থিত।[১] মসজিদটির কাচ, চিনামাটির টুকরা ও মোজাইক করা দেয়ালে রয়েছে বিভিন্ন রকম নকশা যা মোগল স্থাপত্য শিল্পের অনুকরনে করা হয়েছে।

একটি সিরিজের অংশ
মসজিদ

স্থাপত্য
স্থাপত্য স্টাইল
মসজিদের তালিকা
অন্যান্য

ইতিহাসসম্পাদনা

বাংলা ১৩৬৫ সালে বাগমারী পীর হিসাবে পরিচিত চিশতিয়া তরিকার অন্যতম পীর হযরত আব্দুল গফুর চিশতীর (রহ) নির্দেশে মাওলানা আব্দুল খালেক চিশতি আমলে তারই তত্ত্বাবধানে এই মসজিদটি নির্মিত হয়। হযরত আব্দুল কাদের নিজেই এর নকশা তৈরি ও ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

কাঠামোসম্পাদনা

মসজিদটির সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য এর অবকাঠামো। মোগল আমলের আকৃতিতে নির্মিত বেশিরভাগ মসজিদের বাইরের দেয়ালে পোড়ামাটির আস্তরন দেখা যায়। কিন্তু এই মসজিদের বাইরের আস্তরণে পরিলক্ষিত হয় কাঁচ ও চিনামাটির টুকরার সমন্বয়ে বিভিন্ন নকশা। সূর্যের আলো পড়তেই এই মসজিদটির ঝলমলে নজরকাড়া রূপ যে কাওকে মুগ্ধ করে। মসজিদের কক্ষের দৈর্ঘ্য ৪৯.৫০ ফুট ও প্রস্থ ২২.৫০ ফুট। ইসলামের ৫ টি স্তম্ভের কথা চিন্তা করে এর ৫ টি গম্বুজ তৈরি করা হয়েছে। মাঝের বড় ১টি ও চারপাশের ৪টি ছোট গম্বুজ রড ছাড়াই তৈরি হয়েছে। মসজিদের উত্তর পাশে ৪০ ফুট লম্বা মিনার রয়েছে। মিনারটির নিচে একটি ছোট কক্ষ আছে যেখান থেকে আযানের ব্যবস্থা করা আছে। মিনারের উপরে মাইক স্থাপন করা আছে যেখান থেকে আযানের ধ্বনি এলাকায় মুসল্লিদের নামাজের আহ্বান জানায়। পূর্ব পাশে রয়েছে হযরত শাহ্‌ সুলতান বখতির ৪জন শিষ্যের মাজার।প্রায় ৩০০-৪০০ মুসল্লী এখানে একসাথে নামাজ আদায় করতে পারে।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

২। জয়পুরহাট জেলা প্রশাসনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৩ জুন ২০২১ তারিখে ৩। ট্যুরিস্ট ওয়েবসাইট- 'অচিন দেশে'[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]