হাদিসের শ্রেণীবিভাগ

বিভিন্ন ধরনের হাদীসের শ্রেণীবিভাগ বিভিন্ন আলেমগণ ব্যবহার করেছেন। ইসলামে হাদিস হলো রাসুল মুহাম্মাদ (স) এর উক্তি। হাদীস অধ্যয়ন বিশেষজ্ঞরা সাধারণত দুটি পদ ব্যবহার করেন - তাক্বরির হলো মৌন সমর্থন, এবং খবর হলো মুহাম্মাদ (স) এর মুখ নিসৃত বাণী এবং তাঁর অনুসৃত কাজগুলি।

তাক্বরীর শব্দটি শব্দটি দ্বারা বোঝায়, মুহাম্মদের (স) উপস্থিতিতে একজন ঈমানদার এমন কিছু করেছিল যা মুহাম্মাদ খেয়াল করেছিলেন কিন্তু অস্বীকার বা নিন্দা করেননি। সুতরাং, ঐ বিশ্বাসী বা ঈমানদার দ্বারা সম্পাদিত কাজটি মুহাম্মদের (স) কাছ থেকে স্বীকৃতি লাভ করেছে। এটি সাধারণত স্বীকার করা হয় যে, খবর সত্য বা মিথ্যা হতে পারে। হাদীস সমালোচনা বিজ্ঞানের বিদ্বানরা মনে করেন যে একটি খবর হাদীস সত্য কিনা তা সমঝোতার মাধ্যমে নির্ধারণ করা যেতে পারে। এই স্বীকার্যের ভিত্তিতেই মুসলিম পণ্ডিতদের মতে একটি হাদীস যান্নি (অমীমাংসিত/সম্ভবত সত্য) কিনা তার প্রমাণ হয়।[১]

গ্রহণযোগ্যতার ভিত্তিতে শ্রেণিবিভাগসম্পাদনা

  • সহীহ - সেসব হাদিস যেগুলো বর্ণনাকারী পরম্পরায় একটি অটুট শৃঙখলের মাধ্যমে এসেছে বর্ণনাকারীদের সকলেই সৎ চরিত্রের এবং অসাধারণ স্মৃতিশক্তির অধিকারী। এ জাতীয় হাদীসগুলো অন্য কোনো নির্ভরযোগ্য বর্ণনার সাথে সাংঘর্ষিক নয়। এবং অন্য কোনো লুকানো ত্রুটিযুক্তও নয়।[২]
  • হাসান - সেসব হাদিস যেগুলো এমন একটি বর্ণনাকারী পরিম্পরার অটুট শৃঙখলের মাধ্যমে সঞ্চরিত হয়ে এসেছে যাঁরা সকলেই সৎ চরিত্রের হলেও অপেক্ষাকৃত দুর্বল স্মৃতির অধিকারী। এই হাদিসগুলো অন্য কোনো নির্ভরযোগ্য প্রতিবেদনের সাথে সাংঘর্ষিক হবে না এবং অবশ্যই অন্য কোনও লুকানো ত্রুটিযুক্ত হতে পারবে না।[৩]
  • যয়ীফ বা দুর্বল -যা হাসানের মর্যাদা লাভ করতে পারে না কারণ এতে হাসান হাদীসের এক বা একাধিক উপাদান নেই। (উদাহরণস্বরূপ, যদি বর্ণনাকারী ভালো স্মৃতিশক্তি কিংবা ভালো চরিত্রের না হয়ে থাকে, বা বর্ণনায় কোনও গোপন ত্রুটি থাকে অথবা বর্ণনাকারীর শৃঙ্খলটি ভেঙে যায়)।[৪]
  • মাওযু বা জাল - মনগড়া এবং ভুলভাবে মুহাম্মদ এর বাণী বর্ণনা করা হাদিস।[৫]
  • মাক্বলুব - মাক্বলুব হাদীস হলো যেগুলোর দুটি ভিন্ন বর্ণনায় বর্ণনাকারীর নাম পরিবর্তন করা হয়েছে।

বর্ণনাকারীর সংখ্যার ভিত্তিতে শ্রেণিবিভাগসম্পাদনা

  • খবরে মুতাওয়াতির[৬](যাকে খবরে মাশহুর ও বলা হয়)- এ হাদিস বর্ণনাকারী সাহাবি অনেক থাকা জরুরি, যাদের একাট্টা হয়ে মুহম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের উপর মিথ্যা রচনা করা অসম্ভব।[৭] হাদিসটি যদি বাণী হয়, তবে সবাই তাকে বলতে শুনেছেন; কর্ম হলে সবাই তাকে করতে দেখেছেন; অতঃপর একদল সাহাবি থেকে একদল তাবে'ঈ বর্ণনা করেছেন; অতঃপর তাদের থেকে একদল অনুসারী বর্ণনা করেছেন; এভাবে হাদিসের বর্ণনা পরম্পরা গ্রহণযোগ্য কিতাবসমূহে লিপিবদ্ধ হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে হয়।
  • খবরে ওয়াহিদ- আযান, সালাত, সওম এবং অন্যান্য ফরজ ইবাদাতের ব্যাপারে কোন বিশ্বস্ত ব্যক্তির একক সাক্ষ্যকে খবরে ওয়াহিদ বলে। উসূলে হাদীসে এক, দুই বা তিনজন বর্ণনাকারী (রাবী) কর্তৃক বর্ণিত হাদীসকে খবরে ওয়াহিদ বলা হয়। তাই খবরে হাদিস গ্রহণযোগ্য।[৮]

জ্ঞানতাত্ত্বিক মানের ভিত্তিতে শ্রেণীবিভাগসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্য সূত্রসম্পাদনা

  1. Islahi, Amin Ahsan (২০০৯) [original Urdu edition: 1989]। Mabadi Tadabbur-i-Hadith [Fundamentals of Hadith Interpretation]। Lahore: Al-Mawrid। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জানুয়ারি ২০১৫ 
  2. Mahmūd Tahhān, Taysīr Mustalih al-Hadīth, (Lahore: Islamic Publishing House, n.d.), 33.
  3. Mahmūd Tahhān, Taysīr Mustalih al-Hadīth, (Lahore: Islamic Publishing House, n.d.), 45.
  4. Mahmūd Tahhān, Taysīr Mustalih al-Hadīth, (Lahore: Islamic Publishing House, n.d.), 62.
  5. Mahmūd Tahhān, Taysīr Mustalih al-Hadīth, (Lahore: Islamic Publishing House, n.d.), 89.
  6. "Bangla Hadith - ইসলামী গ্রন্থ / প্রশ্ন এবং উত্তর Q&A / মাস'আলা:মুতাওয়াতির হাদিস"Bangla Hadith [????? ?????]। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১২ 
  7. al-Kifāyah fī ‘ilm al-Riwāyah, Al-Khatib al-Baghdadi
  8. "Bangla Hadith -৯৫/ 'খবরে ওয়াহিদ' গ্রহণযোগ্য (كتاب أخبار الآحاد)|সহীহ বুখারী (তাওহীদ)"Bangla Hadith [????? ?????]। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-১২