কুরআনের ১৪টি আয়াত যেগুলো পড়লে বা শুনলে সেজদা দেওয়া ওয়াজিব হয়ে যায়,তাকে ‘সেজদার আয়াত’ বলা হয়। এই আয়াত শোনার পর সেজদা করার ব্যাপারে সবাই একমত, কিন্তু এটা ওয়াজিব হওয়ার ব্যাপারে মতপার্থক্য আছে। ইমাম আবু হানিফা বলেছেন সেজদা করা ওয়াজিব।[১]

মুহাম্মাদ (স) এর আমলসম্পাদনা

মুহাম্মদ (স) একটি বিশাল সমাবেশে যখন কুরআন তেলাওয়াত করতেন এবং ‘সিজদার আয়াত’ তেলাওয়াত করতেন তখন তিনি নিজেও সিজদা করতেন এবং সাহাবা রাও যেখানেই থাকতেন সেজদা করতেন। যদি কারো সেজদা করার জায়গা না থাকতো, সেক্ষেত্রে সম্মুখ ব্যক্তির পিঠে হলেও মাথা রাখতেন।

এও বর্ণিত আছে যে, মুহাম্মদ যখন মক্কা বিজয় উপলক্ষ্যে কুরআন তেলাওয়াত করছিলেন, সেজদার আয়াত তেলাওয়াত করার সময় যেসব লোকেরা মাটিতে দাঁড়িয়েছিল, তারা জমিনে সেজদা করেছিলেন। যারা ঘোড়া ও উটের পিঠে চড়েছিল, তারা তাদের নিজস্ব বাহন থেকে মাথা নুইয়ে ছিল।

মুহাম্মদ যখন খুতবা অবস্থায় সেজদার আয়াত তেলাওয়াত করতেন তখন তিনি নামতেন এবং সিজদা করে পুনরায় খুতবা শুরু করতেন।

সেজদা করার পদ্ধতিসম্পাদনা

নামায পড়ার জন্য যেই শর্ত, এই সিজদার জন্য একই শর্ত রয়েছে। যেমন, ওযু অবস্থায় কিবলার দিকে ফিরে আল্লাহু আকবার বলে নামাযের মতো মাটিতে মাথা রেখে, তিনবার সেজদার তাসবীহ পড়ে আল্লাহু আকবার বলে মাথা উঠাতে হয়।

সেজদা করার স্থানসম্পাদনা

নামাযের মধ্যে সেজদার আয়াত পড়লে সাজদার আয়াত পড়া মাত্র নামাযের মধ্যেই সেজদা করে নিতে হবে।

নামাযের বাহিরে সেজদার আয়াত তেলাওয়াত করলে তৎক্ষণাৎ সেজদা আদায় করতে হয়। তবে পরে আদায় করলেও সমস্যা নেই।

এক জায়গায় বসে একাধিক সেজদার আয়াত পড়লে বা শুনলে যত আয়াত তত সেজদা ওয়াজিব হবে।

রেডিও, টেলিভিশনে সেজদার আয়াত তিলাওয়াত শুনলে সেজদা ওয়াজিব হয় না।

  • প্রথম সেজদার আয়াত  : সূরা আল- আরাফ, আয়াত - ২০৬।
  • দ্বিতীয় সেজদার আয়াত  : সূরা আল-রা’দ, আয়াত - ১৫।
  • তৃতীয় সেজদার আয়াত : সূরা আন- নাহল, আয়াত - ৫০।
  • চতুর্থ সেজদার আয়াত : সুরা বনী ইসরাঈল, আয়াত - ১০৯।
  • পঞ্চম সেজদার আয়াত  : সূরা মরিয়ম, আয়াত - ৫৮।
  • ষষ্ঠ সেজদার আয়াত  : সূরা আল-হজ্ব, আয়াত - ১৮।
  • সপ্তম সেজদার আয়াত  : সূরা আল- ফুরকান, আয়াত - ৬০।
  • অষ্টম সেজদার আয়াত  : সূরা আন- নমল, আয়াত - ২৬।
  • নবম সেজদার আয়াত  : সূরা আস- সাজদা, আয়াত -১৫।
  • দশম সেজদার আয়াত : সূরা সাদ, আয়াত -২৪।
  • একাদশ সেজদার আয়াত  : সূরা হা মী সাজদা, আয়াত - ৩৮ ।
  • দ্বাদশ সেজদার আয়াত  : সূরা আন- নাজ্ম, আয়াত - ৬২।
  • ত্রয়োদশ সেজদার আয়াত  : আল- ইনশিক্বাক, আয়াত- ২১।
  • চৌদ্দতম সেজদার আয়াত  : সূরা আল-আলাক, আয়াত ১৯।
  • ইমাম শাফেয়ীর নিকট আরো একটি আয়াত : সূরা আল- হজ্ব, আয়াত - ৭৭।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. আহকামে যিন্দেগী (লেখক: মাওলানা মুহাম্মদ হেমায়েত উদ্দীন )