শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম

লালপুর উপজেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের স্টেডিয়াম

শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম ২০০৬ সালে নির্মিত[১], বাংলাদেশের একটি উপজেলা পর্যায়ের স্টেডিয়াম। স্টেডিয়ামটি নাটোর জেলার লালপুর উপজেলা সদর হতে এক কিলোমিটার[২] পশ্চিমে বৈদ্যনাথপুর এলাকায় নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের আঁখচাষের ভূমিসীমার পূর্ব প্রান্তে লালপুর- গোপালপুর-ওয়ালিয়া-বনপাড়া সড়কের পাশে অবস্থিত।[১] এই স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের জাতীয় দিবস সমূহের কর্মসূচি, উপজেলা পর্যায়ের খেলাধুলা আয়োজিত হয়। [১] বাংলাদেশের অন্যান্য সকল ক্রীড়া ভেন্যুর মতই এই স্টেডিয়ামটি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধিভুক্ত[৩] ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার তত্ত্বাবধানে রয়েছে।

শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম
লালপুর স্টেডিয়াম
শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম
শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম
বাংলাদেশ মানচিত্রে স্টেডিয়ামের অবস্থান
প্রাক্তন নামলালপুর উপজেলা স্টেডিয়াম (২০ অক্টোবর,২০০৬ - ০৪ এপ্রিল, ২০১৩)
অবস্থানলালপুর উপজেলা, নাটোর, বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৪°১১′৫৬.০০″ উত্তর ৮৮°৫৯′২২.৮০″ পূর্ব / ২৪.১৯৮৮৮৮৯° উত্তর ৮৮.৯৮৯৬৬৬৭° পূর্ব / 24.1988889; 88.9896667
মালিকজাতীয় ক্রীড়া পরিষদ
পরিচালকলালপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা
আয়তনপ্রায় গোলাকার
ক্ষেত্রফলপাঁচ একর
উপরিভাগঘাস
স্কোরবোর্ডনেই
নির্মাণ
কপর্দকহীন মাঠ২০০৪
নির্মিত২০০৬
উদ্বোধন২০ অক্টোবর ২০০৬
নির্মাণ ব্যয় ২,৩৭,৬২,৭০০

নির্মাণ ইতিহাস

সম্পাদনা

২০০৪ সাল হতে ২ কোটি ৩৭ লক্ষ ৬২ হাজার ৭০০ টাকা ব্যয়ে স্টেডিয়াম নির্মাণ শুরু হয়[৪]। ২০ অক্টোবর, ২০০৬ তারিখে স্টেডিয়ামটির উদ্বোধন করা হয়।[১] ৪ এপ্রিল, ২০১৩ তারিখে স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তন করে শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্টেডিয়াম রাখা হয়।[১][৫]

কাঠামো

সম্পাদনা

স্টেডিয়ামটি পাঁচ একর জমির উপর নির্মিত।[১] মাঠটি পুরোপুরি গোলাকার নয়। স্টেডিয়ামটির কংক্রিট নির্মিত পূর্নাঙ্গ গ্যালারি রয়েছে। তবে প্যাভিলিয়ন নেই।

আয়োজন

সম্পাদনা

নিয়মিত আয়োজন

সম্পাদনা
  • এই স্টেডিয়ামে প্রতিবছর বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিজয় দিবসে কুচকাওয়াজ, শিশু সমাবেশ, শরীরচর্চা প্রদর্শনী এবং মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। [১][৬][৭]

উল্লেখযোগ্য আয়োজন

সম্পাদনা
  • ২০১২ঃ এই ভেন্যুতে শহীদ মমতাজ উদ্দিন স্মৃতি ফুটবল কাপ খেলা হয়।[১]
  • ০৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ঃ এই ভেন্যুতে ৪৭তম বাংলাদেশ জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা গ্রীষ্মকালীন ফুটবল টুর্নামেন্ট এই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হয়।[৮]
  • ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ঃ লালপুর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে এই ভেন্যুতে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপ (অনূর্ধ্ব-১৭) ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়।[৯]

সমস্যা

সম্পাদনা

রক্ষণাবেক্ষণ, পর্যাপ্ত লোকবল ও সংস্কারের অভাবে স্টেডিয়ামটি খেলাধুলার অযোগ্য হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।[১]

অন্যান্য ব্যবহার

সম্পাদনা
  • যাত্রাপালা ও সার্কাসের জন্য স্টেডিয়ামটি ব্যবহার করা হয়েছে।[১]

আরও দেখুন

সম্পাদনা
  1. নাটোর জেলার স্টেডিয়ামঃ শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়াম

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "এটা স্টেডিয়াম, না কাশবন?"প্রথম আলো। ২০১৯-০৭-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  2. "লালপুরে কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত স্টেডিয়ামে কাশফুল"www.dailybartoman.com। ২০১৯-০৭-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  3. "অবকাঠামো | অন্যান্য সকল"জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। ২০২০-০২-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  4. "Upazila Stadium | National Sports Council l Ministry of Youth and Sports"web.archive.org। ২০১৫-০১-০২। Archived from the original on ২০১৫-০১-০২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  5. "বীরশ্রেষ্ঠদের নামে পাঁচ জেলা স্টেডিয়াম"banglanews24.com। ২০১৯-০৬-১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  6. "লালপুরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস পালিত"Silkcity News। ২০১৯-০৭-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  7. "নাটোরে লালপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত"News Dhaka 24। ২০১৯-০৩-২৬। ২০১৯-০৪-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  8. "লালপুরে জাতীয় আন্তঃস্কুল ফুটবল টুর্নামেন্ট - Dainikshiksha"Dainik shiksha। ২০১৯-০৭-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১০ 
  9. "লালপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবলে গোপালপুর পৌরসভা চ্যাম্পিয়ন"www.dailypraptiprosongo.com। ২০২০-০৭-২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা

লালপুর উপজেলার খেলাধুলা ও বিনোদন ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ জুলাই ২০১৯ তারিখে