লাসে হালস্ত্রোম

লার্স স্‌ভেন "লাসে" হালস্ত্রোম (সুয়েডিয়: [ˈla.ˈsɛ ˈhal.ˈstrœm]; ২ জুন ১৯৪৬) হলেন একজন সুয়েডীয় চলচ্চিত্র পরিচালক। তিনি পপ সঙ্গীতদল এবিবিএ-এর সঙ্গীতের ভিডিও নির্মাণ করে প্রথম পরিচিতি লাভ করেন। পরে তিনি চলচ্চিত্র নির্মাণে মনোনিবেশ করেন। তিনি সুয়েডীয় ভাষার মিৎ লিভ সোম হুন্দ (১৯৮৫) ও দ্য সিডার হাউজ রুলস (১৯৯৯) চলচ্চিত্র নির্মাণ করে দুবার শ্রেষ্ঠ পরিচালনা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার পরিচালিত অন্যান্য উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হল হোয়াট’স ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ (১৯৯৩) ও শোকোলা (২০০০), ক্যাসানোভা (২০০৫), হাচি: এ ডগ’স টেল (২০০৯) ও ডিয়ার জন (২০১০)।

লাসে হালস্ত্রোম
Lasse Hallström.jpg
লাসে হালস্ত্রোম
জন্ম
লার্স স্‌ভেন হালস্ত্রোম

(1946-06-02) ২ জুন ১৯৪৬ (বয়স ৭৪)
জাতীয়তাসুয়েডিয়
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার
কর্মজীবন১৯৭৩-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীমালো হালস্ত্রোম (বি. ১৯৭৪; বিচ্ছেদ. ১৯৮১)
লিনা ওলিন (বি. ১৯৯৪)
সন্তান

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

হালস্ত্রোম ১৯৪৬ সালের ২রা জুন সুইডেনের স্টকহোমে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা একজন দন্ত চিকিৎসক[১] এবং তার মাতা কারিন লাইবার্গ (১৯০৭-২০০০) ছিলেন একজন লেখিকা। তার মাতামহ আর্নস্ট লাইবার্গ কার্ল গুস্তাভ একমানের প্রথম মন্ত্রীসভার অর্থমন্ত্রী ও সুইডেনের লিবারেল পার্টির (১৯৩০-১৯৩৩) নেতা ছিলেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

হালস্ত্রোম সুয়েডীয় ভাষার মিৎ লিভ সোম হুন্দ (১৯৮৫) চলচ্চিত্র নির্মাণ করে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পরিচিতি অর্জন করেন এবং এই কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচালনা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এরপর তিনি মার্কিন চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেন। তার নির্মিত প্রথম মার্কিন চলচ্চিত্র ছিল ওয়ান্স অ্যারাউন্ড (১৯৯১)। তার প্রথম উল্লেখযোগ্য মার্কিন চলচ্চিত্র হল জনি ডেপলিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও অভিনীত হোয়াট’স ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ (১৯৯৩)। ডিক্যাপ্রিও এই চলচ্চিত্রে শারীরিকভাবে আংশিক বিকল চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারগোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং ন্যাশনাল বোর্ড অব রিভিউ পুরস্কার অর্জন করেন।

১৯৯৯ সালে হালস্ত্রোম দ্য সিডার হাউজ রুলস চলচ্চিত্র নির্মাণ করে দ্বিতীয়বারের মত শ্রেষ্ঠ পরিচালনা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এটি শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র-সহ ছয়টি বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে এবং মাইকেল কেইন শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা ও জন আরভিং শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য বিভাগে পুরস্কৃত হন। পরের বছর তিনি শোকোলা (২০০০) চলচ্চিত্র নির্মাণ করে সফলতা অর্জন করেন। এতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেন জনি ডেপ, জুলিয়েত বিনোশজুডি ডেঞ্চ। চলচ্চিত্রটি সমালোচনামূলক ও বক্স-অফিসে সফলতা অর্জন করে,[২][৩] এবং শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বিভাগে একাডেমি পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার ও বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে। বিনোশ ও ডেঞ্চ যথাক্রমে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীশ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কার অর্জন করেন।

২০০৫ সালে তিনি ইতালিয় অভিযাত্রী জাকোমো কাসানোভার আংশিক জীবনী অবলম্বনে ক্যাসানোভা চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন হিথ লেজার। ২০০৯ সালে তিনি ১৯৮৭ সালের জাপানি চলচ্চিত্র হাচিকো মনোগাতারি অবলম্বনে নাট্যধর্মী হাচি: এ ডগ’স টেল চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন। পরের বছর তিনি প্রণয়ধর্মী ডিয়ার জন (২০১০) চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন।

২০১২ সালে লার্স কেপলারের সুয়েডিয় ভাষার হিপনোতিসোরেন উপন্যাস অবলম্বনে তার নির্মিত একই নামের চলচ্চিত্রটি ৮৫তম একাডেমি পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র হিসেবে সুয়েডিয় নিবেদন ছিল, কিন্তু চলচ্চিত্রটি চূড়ান্ত মনোনয়নে স্থান পায়নি।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Lasse Hallstroem Biography (1946-)"বায়োগ্রাফি। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১৮ 
  2. "Chocolat (2000)"রটেন টম্যাটোস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০২০ 
  3. "Chocolat (2000)"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০২০ 
  4. রক্সবরা, স্কট (৬ সেপ্টেম্বর ২০১২)। "Lasse Hallstrom's 'The Hypnotist' is Sweden's Oscar Candidate"দ্য হলিউড রিপোর্টার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেজে লাসে হালস্ত্রোম   (ইংরেজি)