রামেন্দু মজুমদার

বাংলাদেশী অভিনেতা

রামেন্দু মজুমদার (জন্ম ৯ আগস্ট ১৯৪১) খ্যাতিমান বাংলাদেশী অভিনেতা, মঞ্চ নির্দেশক, নির্মাতা। তিনি ঢাকার মঞ্চ নাটক আন্দোলনের পথিকৃৎ। মঞ্চের পাশাপাশি তিনি টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন। শিল্পকলায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে ২০০৯ সালে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।[১] [২]

রামেন্দু মজুমদার
জন্ম (1941-08-09) ৯ আগস্ট ১৯৪১ (বয়স ৭৯)
শিক্ষাএম. এ (ইংরেজি)
মাতৃশিক্ষায়তনঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেতা, মঞ্চ নির্দেশক, নির্মাতা
দাম্পত্য সঙ্গীফেরদৌসী মজুমদার
সন্তানত্রপা মজুমদার
পুরস্কারএকুশে পদক

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

রামেন্দু মজুমদারের জন্ম ১৯৪১ সালের ৯ আগস্ট লক্ষ্মীপুরে।[৩] তার পিতা কুন্তল কৃষ্ণ মজুমদার ও মাতা লীলা মজুমদার।[৪] তিনি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেন।[৫] তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে বিএ (অনার্স) ও এমএ পাস করেন।[৪][৬]

কর্মজীবনসম্পাদনা

পড়াশোনা শেষে তিনি অধ্যাপনাকে বেছে নেন পেশা হিসেবে। চৌমুহনী কলেজে বছর তিনেক অধ্যাপনার পর পেশা পরিবর্তন করে যোগ দেন বিজ্ঞাপন শিল্পে ১৯৬৭ সালে করাচীতে। ১৯৭২ এ দেশে ফিরে বিটপী অ্যাডভার্টাইজিং এ পরিচালক হিসেবে যোগ দেন।[৭] এবং ১৯৯৩ এ প্রতিষ্ঠা করেন এক্সপ্রেশানস্‌- যেখানে এখন তিনি ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কর্মরত।[৭]

স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানসম্পাদনা

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় স্বাধীনবাংলা বেতার কেন্দ্রের কয়েকটি অনুষ্ঠানে অংশ নেন তিনি এবং বঙ্গবন্ধুর বক্তৃতা, বিবৃতির একটি ইংরেজি সংকলন সম্পাদনা করে দিল্লী থেকে প্রকাশ করেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

অভিনয় জীবনসম্পাদনা

১৯৫৮ সাল থেকে তিনি মঞ্চে নিয়মিত অভিনয় ও নির্দেশনার কাজ শুরু করেন। ১৯৬১ সালে বেতারে ও '৬৫ সালে টেলিভিশনে নাট্যশিল্পী হিসেবে যুক্ত হন। মঞ্চে অভিনয় করছেন ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে। দীর্ঘকাল তিনি সংবাদ উপস্থাপনায় করেছেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তিনি অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদারকে বিয়ে করেন। তাদের একমাত্র কন্যা - ত্রপা মজুমদার। ত্রপা একজন অভিনেত্রী ও নির্মাতা।[৮]

পুরস্কারসম্পাদনা

  • ২০০৯: শিল্পকলায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত একুশে পদকে ভূষিত হন।[৯]
  • ২০১৭: শিল্প ও সংস্কৃতিতে অবদানের জন্য আরটিভি স্টার অ্যাওয়ার্ড-২০১৬ থেকে আজীবন সম্মাননা পুরস্কার লাভ করেন।[১০]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "গান্ধী শান্তি পুরস্কার পেলেন রামেন্দু মজুমদার"Prothomalo। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-৩০ 
  2. "রামেন্দু ও ফেরদৌসী মজুমদার করোনায় আক্রান্ত"The Daily Star Bangla। ২০২০-০৮-০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-৩০ 
  3. "Bangladesh Centre / Centre de Bangladesh Ramendu MAJUMDAR" (PDF)। iti। ২ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৭ 
  4. Tobias Biancone (আগস্ট ৯, ২০১১)। "Ramendu Majumdar A man of goodwill, theatre and peace"The Daily Star 
  5. "পথিকৃৎ নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার"। bd-pratidin। জানুয়ারি ১৩, ২০১৭। 
  6. Nadia Sarwat (আগস্ট ৪, ২০০৮)। "Revisiting a creative bond"। The Daily Star। 
  7. Fayza Haq (এপ্রিল ১১, ২০১৪)। "A Theatrical Journey"। The Daily Star। 
  8. "রামেন্দু-ফেরদৌসী মজুমদার দম্পতি করোনায় আক্রান্ত"Jugantor (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-৩০ 
  9. Jamil Mahmud (ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০০৯)। "Another feather in the cap"। The Daily Star। 
  10. "রামেন্দু মজুমদার পাচ্ছেন আজীবন সম্মাননা"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ২৬ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা