রজার বিনি

ভারতীয় ক্রিকেটার

রজার মাইকেল হামফ্রে বিনি (কন্নড়: ರೋಜರ್ ಬಿನ್ನಿ; জন্ম: ৯ জুলাই, ১৯৫৫) কর্ণাটক প্রদেশের ব্যাঙ্গালোরে জন্মগ্রহণকারী সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা ও কোচ। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭৯ থেকে ১৯৮৭ সময়কালের ভারতের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেট ও একদিনের আন্তর্জাতিকে খেলেছেন।

রজার বিনি
Roger Binny 2018.jpg
২০১৮ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে রজার বিনি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরজার মাইকেল হামফ্রে বিনি
জন্ম (1955-07-09) ৯ জুলাই ১৯৫৫ (বয়স ৬৫)
বেঙ্গালুরু, কর্ণাটক, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, কোচ
সম্পর্কপুত্র - স্টুয়ার্ট বিনি
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৪৮)
২১ নভেম্বর ১৯৭৯ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১৩ মার্চ ১৯৮৭ বনাম পাকিস্তান
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৩০)
৬ ডিসেম্বর ১৯৮০ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ ওডিআই৯ অক্টোবর ১৯৮৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ২৭ ৭২
রানের সংখ্যা ৮৩০ ৬২৯
ব্যাটিং গড় ২৩.০৫ ১৬.১২
১০০/৫০ -/৫ -/১
সর্বোচ্চ রান ৮৩* ৫৭
বল করেছে ২৮৭০ ২৯৫৭
উইকেট ৪৭ ৭৭
বোলিং গড় ৩২.৬৩ ২৯.৩৫
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৬/৫৬ ৪/২৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১২/- ১২/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে কর্ণাটক ও গোয়া দলের পক্ষে খেলেছেন রজার বিনি। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৮৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে সর্বোচ্চ ১৮ উইকেট সংগ্রহকারী ছিলেন। তিনি ভারতের বর্তমান একদিনের আন্তর্জাতিক দলের উদীয়মান ক্রিকেটার স্টুয়ার্ট বিনি’র পিতা।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

প্রথম অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান হিসেবে ভারতের পক্ষে ক্রিকেট খেলার মর্যাদা লাভ করেন।[১] পুত্র স্টুয়ার্ট বিনিও পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে কর্ণাটক ক্রিকেট দলে খেলছেন। ব্যাঙ্গালোরে নিজ মাঠ হিসেবে পরিচিত স্থানীয় কেএসসিএ স্টেডিয়ামে ১৯৭৯ সালে টেস্ট ক্রিকেটের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে রজার বিনি’র। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত এ টেস্টে তাকে বিখ্যাত বোলার ইমরান খানসরফরাজ নওয়াজের মুখোমুখি হতে হয়। অভিষিক্ত খেলাতেই তিনি ৪৬ রানের দায়িত্বশীল ব্যাটিং করেন। তন্মধ্যে ৫ম টেস্টে ইমরান খানের বাউন্সারে ছক্কা হাকিয়েছিলেন তিনি। কার্যকরী সুইং ও অন্যতম ফিল্ডার হিসেবে তিনি ঐ সময়ে সুনাম কুড়িয়েছিলেন।

টেস্ট ক্রিকেটে তেমন সুনাম না কুড়ালেও ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে তিনি জ্বলে উঠেছিলেন স্ব-মহিমায়। তার কার্যকরী মিডিয়াম-পেস বোলিং ও সতীর্থ মদন লালের সহযোগিতা এবং অধিনায়ক কপিল দেবের দিক-নির্দেশনায় ভারত প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা লাভ করতে সমর্থ হয়।

জাতীয় নির্বাচকসম্পাদনা

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২ তারিখে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)-এর পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচকমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য নিযুক্ত হন রজার বিনি।[১]

বর্তমানে তিনি কর্ণাটক স্টেট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে অফিস বেয়ারার পদে কর্মরত আছেন। ২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে নিউজএক্স টেলিভিশন চ্যানেলে ক্রিকেট বিশ্লেষণকারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন তিনি।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

ব্যাঙ্গালোরের বেনসন টাউনে শৈশবকাল কাটে তার। ব্যাঙ্গালোরের সেন্ট জার্মেইন স্কুলে অধ্যয়ন শেষে সেন্ট জোসেফ’স ইন্ডিয়ান হাই স্কুলে পড়াশোনা করেন। সেখানে তিনি বালকদের বিভাগে বর্শা নিক্ষেপে ভারতের জাতীয় রেকর্ড ভঙ্গ করেন। বিদ্যালয় জীবনে তিনি ফুটবল ও হকি খেলেছেন।

নিকটতম বন্ধুর বোন সিন্থিয়াকে বিয়ে করেন। তাদের সংসারে লরা, লিজা এবং স্টুয়ার্ট নামীয় তিন সন্তান রয়েছে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Sandeep Patil named chief selector, Amarnath dropped"NDTV। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১২। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১২ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা