রংবাজ (১৯৭৩-এর চলচ্চিত্র)

চলচ্চিত্র

রংবাজ ১৯৭৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী চলচ্চিত্র[২]। ছবিটি পরিচালনা করছেন জহিরুল হক। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে অ্যাকশনের সূচনা করেন নায়করাজ রাজ্জাক তার 'রংবাজ' ছবির মাধ্যমে। এটিই বাংলাদেশের প্রথম অ্যাকশন ধর্মী ছবি।[৩] অভিনেতা রাজ রাজ্জাক এর নিজ চলচ্চিত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান রাজলক্ষ্মী প্রোডাকশন ব্যানারে ছবিটি নির্মাণ করা হয়।[৪] এবং 'রংবাজ' চলচ্চিত্রের মাধ্যমে একজন প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন নায়ক রাজ রাজ্জাক।[৫] ছবির মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বিখ্যাত অভিনেতা রাজ রাজ্জাক, কবরী, রোজি ও নওয়াব সিরাজদৌলা খ্যাত আনোয়ার হোসেন

রংবাজ
রংবাজ (১৯৭৩) চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
ভিসিডি কভার
পরিচালকজহিরুল হক
প্রযোজকরাজলক্ষী প্রোডাকসন
রচয়িতাজহিরুল হক
শ্রেষ্ঠাংশেরাজ্জাক
কবরী
রোজি
আনোয়ার হোসেন
হাসমত
সুরকারআনোয়ার পারভেজ
চিত্রগ্রাহকমজনু
ফরিদ
পরিবেশকগীতি চিত্রকথা
মুক্তি
  • ১৬ জানুয়ারি ১৯৭৩ (1973-01-16)
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা
নির্মাণব্যয় ৬০ হাজার[১]
আয় ৩ কোটি[১]

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

“রাজা” (রাজ্জাক) একটি বস্তি এলাকার রংবাজ, সে রংবাজি পকেটমারী সহ নানা ধান্দায় লিপ্ত থাকে সারাক্ষন। ঐ বস্তিরই মেয়ে “মালা” (কবরী) রাজাকে খুব ভালবাসে। একদিন রাজা এক চাকুরী জীবির (আনোয়ার হোসেন) পকেট মারে, লোকটা সেদিনই কেবল বেতন পেয়ে ফিরছিল। এ কারণে পাওনা মিটাতে না পেরে লোকটাকে বাড়িওয়ালা সহ পাওনাদারদের কাছে চরম অপমান হজম করতে হয়। অন্য একদিন রাজা পকেট মারতে গিয়ে জনতার তাড়া খেয়ে ঐ লোকটার ঘরে তার স্ত্রী “শিরিন” (রোজি) এর সাহায্যে বেচে গেলে তাকে বোন সম্বোধন করে আসে। অক্ষম স্বামীর অজান্তে রাজা মায়ের মতো বোনকে অনেক সাহায্য করে এবং শেষ পর্যন্ত নিজ বাসায় নিয়ে আসে। এক সময় রাজা সকল খারাপ কাজ ছেড়ে দিলে রাজার মনের মানুষ মালার মনে প্রশ্ন জাগে- আমি হাজারবার বলার পর ও ভাল পথে এলোনা আর এই মহিলা আসতে না আসতেই ভাল হয়ে গেল? এদিকে শিরিনের স্বামীও সন্দেহ করছে স্ত্রীকে। পরিশেষে সবাই জানতে পারল রাজা একজন অসাধারন মনের মানুষ, যিনি প্রতিটি মানুষকে যথাযত সম্মান করতে জানে।

--এই রংবাজ জীবনের সমাপ্তি ঘটল ভগ্নীপতির পকেট মেরে।

শ্রেষ্ঠাংশেসম্পাদনা

সংগীতসম্পাদনা

গাজী মাজহারুল আনোয়ারের গীতিতে[৬] রংবাজ ছবির সংগীত পরিচালনা করেন আনোয়ার পারভেজ

সাউন্ড ট্র্যাকসম্পাদনা

ট্র্যাক গান কন্ঠশিল্পী নোট
হৈ হৈ হৈ রঙ্গিলা রঙ্গিলা রে... সাবিনা ইয়াসমিন ও মোঃ আলি সিদ্দিকি
সে যে কেন এলো না কিছু ভালো লাগে না সাবিনা ইয়াসমিন
এই পথে পথে আমি একা চলি
রূপ দেখে চোখ ধাঁদে মন ভোলেনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "পঞ্চাশের পঞ্চাশ রংবাজ"দৈনিক কালের কন্ঠ। ২০২০-০২-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-২৮ 
  2. "'রংবাজ' চলচ্চিত্র (১৯৭৩)"। ২৩ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ জানুয়ারি ২০১১ 
  3. প্রকাশনাঃ দৈনিক মানবজমিন, ১১ এপ্রিল ২০১১ অ্যাকশনে নতুন সম্ভাবনা বিনোদন রিপোর্ট, সংগৃহীত হয়েছেঃ ১০ মে, ২০১১
  4. প্রকাশনাঃ দৈনিক আমার দেশ, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১১ নায়করাজের বিয়ের ৫০ বছর ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৭ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখে অভি মঈনুদ্দীন, সংগৃহীত হয়েছেঃ ১০ মে, ২০১১
  5. প্রকাশনাঃ দৈনিক যায়যায়দি চলচ্চিত্র প্রযোজনা থেকে রাজ্জাকের বিদায় বিনোদন রিপোর্ট, সংগৃহীত হয়েছেঃ ১০ মে, ২০১১
  6. "হাস্যরসের মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছিল গান"দৈনিক কালের কন্ঠ। ২০২০-০২-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১২-২৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা