বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি

পাকিস্তানী রাজনীতিবিদ

বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি (ইংরেজি: Bilawal Bhutto Zardari) (জন্ম: সেপ্টেম্বর ২১, ১৯৮৮) পাকিস্তান পিপলস পার্টির ২০০৭ সালে নির্বাচিত সভাপতি। তিনি পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো, এবং আসিফ আলি জারদারির একমাত্র পুত্র।[২] বর্তমানে তিনি এখন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করছেন।

বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি
بلاول بھٹو زرداری
Bilawal Bhutto Zardari, Women's World Awards 2009.jpg
২০০৯ সালে বিলওয়াল ভুট্টো
পাকিস্তান পিপলস পার্টির কো চেয়ারম্যান
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৩০ ডিসেম্বর ২০০৭
পূর্বসূরীবেনজির ভুট্টো
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1988-09-21) ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮ (বয়স ৩৩)
করাচী, সিন্ধ, পাকিস্তান
জাতীয়তাপাকিস্তানি
রাজনৈতিক দলপাকিস্তান পিপলস্‌ পার্টি
সম্পর্কভুট্টো পরিবার
বাসস্থানকরাচী
দুবাই, সংযুক্ত আরব আমিরাত
প্রাক্তন শিক্ষার্থীকরাচী গ্র্যামার স্কুল
ক্রিষ্ট চার্চ, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
ধর্মইসলাম[১]
ওয়েবসাইটPPP website

মাতৃভাষায় কথা বলতে অনভস্ত্য হওয়া সত্ত্বেও তার মা বেনজির ভুট্টো মর্মান্তিকভাবে খুন হওয়ায় তাকে ডিসেম্বর ৩০, ২০০৭ সালে তাকে পাকিস্তান পিপলস পার্টির সভাপতি মনোনীত করা হয়। [৩] সিন্ধ প্রদেশে বেনজির ভূট্টোর পারিবারিক বাসভবনে বিলাওয়াল জারদারি পাকিস্তান পিপলস পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যদের বৈঠকে বেনজিরের রেখে যাওয়া উইল পড়ে শোনান। বেনজির ভূট্টো তার উইলে দলের সভাপতি পদের জন্য তার স্বামী আসিফ আলি জারদারিকে মনোনীত করেছিলেন কিন্তু জারদারি নিজেই তার ছেলের নাম প্রস্তাব করেন এবং কমিটি তা গ্রহণ করে। [৪] তবে বিলাওয়াল লেখাপড়া শেষ করা পর্যন্ত তার পিতা সভাপতির দায়িত্ব পালন করবেন।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Bilawal Bhutto Zardari for resurrection of Quaid's Pakistan"pakmission-uk.gov.pk। ১১ জানুয়ারি ২০১১। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ 
  2. পরিবার বিলম্বিত বিচারের শিকার, বললেন বিলাওয়াল by Shamim-ur-Rahman. (DAWN) August 08 2004
  3. "ভুট্টোর সন্তানকে দলের শীর্ষ পদ প্রদান"Sky News। ২০০৯-০৬-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-৩০ 
  4. "ভুট্টোর দলের নেতৃত্বে সন্তান"। Al Jazeera English। ২০০৭-১২-৩০। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-৩০ 
  5. "ভুট্টোর সন্তানের জন্য দলে গুরুত্বপূর্ণ পদ"। The Press Association। ২০০৭-১২-৩০। ২০০৮-০১-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-৩০ 

আরও দেখুনসম্পাদনা